The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ২৫শে জুন, ২০২৪

বিএসভিইআরের ২৯তম আন্তর্জাতিক বার্ষিক সম্মেলন শুরু শনিবার

বাকৃবি প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ সোসাইটি ফর ভেটেরিনারি এডুকেশন রিসার্চ (বিএসভিইআর) এর ২৯তম বার্ষিক বৈজ্ঞানিক সম্মেলন আগামী শনিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) শুরু হবে। এবারের সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে, ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রেক্ষাপটে প্রাণীস্বাস্থ্যের টেকসই উন্নতি এবং উৎপাদন’। দুই দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলনে দেশ বিদেশের ৫০০জন বিজ্ঞানী, গবেষক, মাঠ পর্যায়ের ভেটেরিনারিয়ান ও উদ্যোক্তা এতে অংশগ্রহণ করছেন। তাদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া থেকে রয়েছেন দুইজন বিজ্ঞানী। পাশাপাশি এবারই প্রথম স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের এই সম্মেলনে অংশ নেওয়ার সুযোগ থাকছে।

বিএসভিইআরের বার্ষিক বৈজ্ঞানিক সম্মেলন উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এসব কথা বলেন বিএসভিইআরের সাধারণ সম্পাদক ও বাকৃবির মাইক্রোবায়োলজি ও হাইজিন বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আরিফুল ইসলাম। শুক্রবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০ টায় বাকৃবির ভেটেরিনারি অনুষদের মেডিসিন সম্মেলন কক্ষে ওই সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।

তিনি আরও বলেন, বৈজ্ঞানিক সম্মেলনে একটি সিম্পোজিয়াম সেশন, একটি প্লেনারি সেশন এবং আটটি ওপেন পেপার সেশন রয়েছে। একটি বার্ষিক বক্তৃতা, একটি মূল প্রবন্ধ এবং দুটি পূর্ণাঙ্গ বক্তৃতা সহ মোট ৭০টি মৌখিক উপস্থাপনা এবং ৮৪টি পোস্টার পেপার উপস্থাপন করা হবে। এর পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের একটি ইভেন্ট পরিচালনা করবেন ফুড এন্ড এগ্রিকালচার অরগানাইজেশনের (এফএও) বাংলাদেশের ইমার্জেন্সি সেন্টার ফর ট্রান্সবাউন্ডারি অ্যানিমাল রোগ বিষয়ক কান্ট্রি টিম লিডার ড. এরিক ব্রাম।

সংবাদ সম্মেলনে ড. আরিফ আরও জানান, বৈজ্ঞানিক সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বাকৃবির প্যাথলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলাম। এবছর প্যাথলজি বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক এবং সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইকবাল হোসেন বার্ষিক লেকচার অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত হয়েছেন। পাশাপাশি সার্জারি ও অবস্ট্রিটিক্স বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক এবং বাকৃবির প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতার হোসেনকে ভেটেরিনারি গবেষণা এবং শিক্ষায় অসামান্য অবদান এবং নেতৃত্বের জন্য আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হবে। এছাড়া সম্মেলনে উপস্থাপিত গবেষণাপত্রের মধ্যে থেকে মৌখিক ও পোস্টার উভয় ক্যাটাগরিতে তিনজন করে সেরা উপস্থাপকের পুরষ্কার প্রদান করা হবে।

বিএসভিইআরের সভাপতি ও বাকৃবির সার্জারি ও অবস্টেট্রিক্স বিভাগের অধ্যাপক ড. ফরিদা ইয়াসমিন বারির সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএসভিইআরের ২৯তম বৈজ্ঞানিক সম্মেলনের আয়োজক কমিটির সভাপতি ও প্যাথলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. মকবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সার্জারি ও অবস্টেট্রিক্স বিভাগের অধ্যাপক ড. নাছরীন সুলতানা জুয়েনা এবং কালচারাল উপকমিটির সভাপতি ও মাইক্রোবায়োলজি ও হাইজিন বিভাগের অধ্যাপক ড. মোছা. মিনারা খাতুন।

এসময় অধ্যাপক ড. নাছরীন সুলতানা জুয়েনা বলেন, স্মার্ট বাংলাদেশ তৈরির ভিশনকে সামনে রেখে প্রাণিসম্পদ খাতের টেকসই উন্নয়নের ব্যাপারে জোর দিতেই এবছর প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লব প্রাণিসম্পদ শিল্পে উদ্ভাবন ও উন্নতির জন্য অনেক সুয়োগ নিয়ে আসবে। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, ইন্টারনেট অব থিংস এবং রোবোটিক্সের মতো উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহারে প্রাণিস্বাস্থ্য, আচরণ এবং কর্মদক্ষতার উপর ব্যাপক উন্নতি হবে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের সাথে জড়িত প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে প্রাণিজ পণ্যের আরও দক্ষ ও টেকসই উৎপাদন নিশ্চিত করতে সক্ষম হবে।

সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক ড. ফরিদা ইয়াসমিন বারি বলেন, বিএসভিইআরের সম্মেলন বার্ষিক বৈজ্ঞানিক মিলনমেলা। এবারের সম্মেলনে ন্যানো টেকনোলজি, ভ্যাকসিন, এন্টি মাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স, ফুড সিকিউরিটি, হার্বাল প্রোডাকটিভিটির বিষয়গুলো বেশি গুরুত্ব পাবে। আধুনিক এই প্রযুক্তির সাহায্যে স্বল্প খরচেই সেবাগুলো উপভোগ করতে পারবেন প্রান্তিক পর্যায়ের ক্ষুদ্র কৃষকেরা।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.