The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
শনিবার, ২রা মার্চ, ২০২৪

৩০০ কোটির লটারি জিতেও স্ত্রী-সন্তানের কাছে গোপন রেখেছেন!

লটারিতে তিনি যেটা জিতেছেন বাংলাদেশি মুদ্রায় তার পরিমাণ ৩০০ কোটি টাকার বেশি। স্বাভাবিকভাবেই এই আনন্দে আত্মহারা হওয়ার কথা ছিল ওই ব্যক্তির। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো, এত বড় সুখবর তিনি স্ত্রী-সন্তানকেও জানাননি। কারণ কি? তার করণ ভয়, এত টাকা হাতে পাওয়ার খবরে পরিবারের সদস্যরা অলস হয়ে যাবেন, ভবিষ্যতে আর পরিশ্রম করতে চাইবেন না!

অদ্ভুত এই ঘটনাটি ঘটেছে চীনে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ন্যানিং ইভিনিং নিউজের বরাতে ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, লি নামে ওই ব্যক্তি সম্প্রতি লটারিতে ২১ কোটি ৯০ লাখ ইউয়ান (২ কোটি ৯৯ লাখ মার্কিন ডলার) জিতেছেন। গত সপ্তাহে চীনের দক্ষিণে গুয়াংজি অঞ্চলের রাজধানী ন্যানিংয়ের লটারি অফিসে তিনি একাই পুরস্কারের অর্থ গ্রহণ করেন।

এসময় তার পরনে ছিল উজ্জ্বল হলুদ রঙের একটি কার্টুন কস্টিউম। ফলে মুখ ঢাকা থাকায় তার পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি।

একা আসার বিষয়ে লি স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আমি আমার স্ত্রী ও সন্তানকে এই ভয়ে বলিনি যে, তারা খুব বেশি আত্মতুষ্ট হবে এবং ভবিষ্যতে কাজ বা পরিশ্রম করতে চাইবে না।

লটারিতে জেতা অর্থ থেকে ৫০ লাখ ইউয়ান একটি দাতব্য সংস্থায় দান করেছেন লি। বাকি অর্থ দিয়ে কী করবেন, তা এখনো ভাবেননি বলে জানান তিনি। ট্যাক্স বাদ দিয়ে প্রায় ১৭ কোটি ১৬ লাখ ইউয়ান (২৪০ কোটি টাকা প্রায়) হাতে পেয়েছেন ভাগ্যবান ওই ব্যক্তি।

জানা যায়, ন্যানিং থেকে একটু দূরে লিতাং শহরের একটি দোকান থেকে লটারির সেই টিকিট কিনেছিলেন লি। যখন জানতে পারেন কপাল খুলে গেছে, তখন তিনি গাড়ি চালিয়ে পার্শ্ববর্তী বড় শহরে যান পুরস্কার সংগ্রহ করতে।

কিন্তু মূল্যবান টিকিটটি হারিয়ে যেতে পারে, এই ভয়ে বাইরে আর কোথাও যাননি লি। তিনি বলেন, আমি শুধু মাত্র হোটেলে শুয়েছিলাম। কারণ ভয় হচ্ছিলো, বাইরে গেলে যদি লটারির টিকিট হারিয়ে যায়!

বিভিন্ন উন্নয়ন ও খেলাধুলার জন্য অর্থ সংগ্রহের লক্ষ্যে নিয়মিত লটারির আয়োজন করে থাকে চীনের কেন্দ্রীয় সরকার। তার মাধ্যমেই এ বছর বিপুল অংকের অর্থ জিতলেন লি নামে ওই ব্যক্তি।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. আন্তর্জাতিক
  3. ৩০০ কোটির লটারি জিতেও স্ত্রী-সন্তানের কাছে গোপন রেখেছেন!

৩০০ কোটির লটারি জিতেও স্ত্রী-সন্তানের কাছে গোপন রেখেছেন!

লটারিতে তিনি যেটা জিতেছেন বাংলাদেশি মুদ্রায় তার পরিমাণ ৩০০ কোটি টাকার বেশি। স্বাভাবিকভাবেই এই আনন্দে আত্মহারা হওয়ার কথা ছিল ওই ব্যক্তির। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো, এত বড় সুখবর তিনি স্ত্রী-সন্তানকেও জানাননি। কারণ কি? তার করণ ভয়, এত টাকা হাতে পাওয়ার খবরে পরিবারের সদস্যরা অলস হয়ে যাবেন, ভবিষ্যতে আর পরিশ্রম করতে চাইবেন না!

অদ্ভুত এই ঘটনাটি ঘটেছে চীনে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ন্যানিং ইভিনিং নিউজের বরাতে ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, লি নামে ওই ব্যক্তি সম্প্রতি লটারিতে ২১ কোটি ৯০ লাখ ইউয়ান (২ কোটি ৯৯ লাখ মার্কিন ডলার) জিতেছেন। গত সপ্তাহে চীনের দক্ষিণে গুয়াংজি অঞ্চলের রাজধানী ন্যানিংয়ের লটারি অফিসে তিনি একাই পুরস্কারের অর্থ গ্রহণ করেন।

এসময় তার পরনে ছিল উজ্জ্বল হলুদ রঙের একটি কার্টুন কস্টিউম। ফলে মুখ ঢাকা থাকায় তার পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি।

একা আসার বিষয়ে লি স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আমি আমার স্ত্রী ও সন্তানকে এই ভয়ে বলিনি যে, তারা খুব বেশি আত্মতুষ্ট হবে এবং ভবিষ্যতে কাজ বা পরিশ্রম করতে চাইবে না।

লটারিতে জেতা অর্থ থেকে ৫০ লাখ ইউয়ান একটি দাতব্য সংস্থায় দান করেছেন লি। বাকি অর্থ দিয়ে কী করবেন, তা এখনো ভাবেননি বলে জানান তিনি। ট্যাক্স বাদ দিয়ে প্রায় ১৭ কোটি ১৬ লাখ ইউয়ান (২৪০ কোটি টাকা প্রায়) হাতে পেয়েছেন ভাগ্যবান ওই ব্যক্তি।

জানা যায়, ন্যানিং থেকে একটু দূরে লিতাং শহরের একটি দোকান থেকে লটারির সেই টিকিট কিনেছিলেন লি। যখন জানতে পারেন কপাল খুলে গেছে, তখন তিনি গাড়ি চালিয়ে পার্শ্ববর্তী বড় শহরে যান পুরস্কার সংগ্রহ করতে।

কিন্তু মূল্যবান টিকিটটি হারিয়ে যেতে পারে, এই ভয়ে বাইরে আর কোথাও যাননি লি। তিনি বলেন, আমি শুধু মাত্র হোটেলে শুয়েছিলাম। কারণ ভয় হচ্ছিলো, বাইরে গেলে যদি লটারির টিকিট হারিয়ে যায়!

বিভিন্ন উন্নয়ন ও খেলাধুলার জন্য অর্থ সংগ্রহের লক্ষ্যে নিয়মিত লটারির আয়োজন করে থাকে চীনের কেন্দ্রীয় সরকার। তার মাধ্যমেই এ বছর বিপুল অংকের অর্থ জিতলেন লি নামে ওই ব্যক্তি।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন