২০২৩ সালেও সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে পরীক্ষা!

করোনার পরিস্থিতির কারণে ২০২৩ সালের কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি (ভোকেশনাল)/দাখিল এবং এইচএসসি (ভোকেশনাল)/আলিম পরীক্ষা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে নেওয়া হতে পারে।

কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সভাকক্ষে ২০২৩ সালের এসএসসি (ভোকেশনাল)/দাখিল এবং এইচএসসি (ভোকেশনাল)/আলিম পরীক্ষার্থীদের জন্য ১৫০ কর্মদিবসের জন্য পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচি নির্ধারণ সংক্রান্ত সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) সদস্য (শিক্ষাক্রম) মো. মশিউজ্জামান জানিয়েছেন, শিক্ষাবর্ষের সাধারণ নিয়ম অনুযায়ী, ২০২৩ সালের এসএসসি/দাখিল ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের নবম শ্রেণির কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা ছিল ২০২১ সালের ১ জানুয়ারি এবং এইচএসসি/আলিম ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের একাদশ শ্রেণির কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা ছিল একই বছরের ১ জুলাই। করোনার কারণে দীর্ঘদিন প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পর সপ্তাহে মাত্র দুই দিন করে সরাসরি শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হয় গত বছরের ১২ সেপ্টেম্বর। সে হিসেবে উক্ত সেশনের এসএসসি/দাখিল ও সমমানের পরীক্ষার্থীরা নবম শ্রেণিতে দীর্ঘ প্রায় ৯ মাস সরাসরি পাঠদান থেকে বঞ্চিত ছিল। অন্যদিকে, অনেক প্রতিষ্ঠানে এখনও একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রম চলমান থাকায় এইচএসসি/আলিম ও সমমানের পরীক্ষার্থীরা প্রায় আট মাসেও সরাসরি শ্রেণি কার্যক্রম শুরু করতে পারেনি। এর ফলে তাদের শিখন-ঘাটতি থেকে যাওয়ার আশঙ্কা আছে।

তিনি আরও জানান, করোনার কারণে ফের এক মাস বন্ধ থাকায় গত ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ২০২৩ সালের এসএসসি/দাখিল ও সমমানের পরীক্ষার্থীরা নবম শ্রেণিতে মাত্র ৩৫ কর্মদিবস শ্রেণি কার্যক্রমে অংশ নিতে পেরেছে। ২ মার্চ থেকে সরাসরি শ্রেণি কার্যক্রম চালু হলেও তাদের শিখন-ঘাটতি থেকে যাবে। সেক্ষেত্রে ২০২২ সালের পরীক্ষার্থীদের জন্য ইতোপূর্বে পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচি ২০২৩ সালের এইচএসসি/দাখিল ও সমমানের এবং এইচএসসি/আলিম ও সমমানের পরীক্ষার জন্য প্রযোজ্য হতে পারে।