The Rising Campus
News Media
শুক্রবার, ৩রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

স্কালোনির নামে হচ্ছে রাস্তার নামকরণ, আলভারেজের নামে ক্লাব

তাকে নিয়ে হয়নি মাতামাতি, ছিল না উল্লাস। তবে আর্জেন্টিনার শিরোপা ক্ষরা কাটানোর নেপথ্য নায়ক একজন লিওনেল স্কালোনি। ২৮ বছরের আক্ষেপ ঘুচিয়ে কোপা আমেরিকা কিংবা ৩৬ বছর পর আলবিসেলেস্তেদের হাতে সোনালি ট্রফির পূর্ণতা পেয়েছে এই মাস্টারমাইন্ডের কৌশলে।

নিজ শহর পাহুতোর জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টাইন কোচ লিওনেল স্কালোনি। তাকে সংবর্ধনা প্রদানের সাথে সাথে শহরের একটি রাস্তার নামকরণ  করা হচ্ছে তার নামে।

একই সঙ্গে চার গোল করা হুলিয়ান আলভারেজকে নেচে গেয়ে বরণ করে নিয়েছে তার নিজ শহর করদোবার জনগণ। তার ছোটবেলার ক্লাব অ্যাথলেটিকো কালসিনের নাম পরিবর্তন করে ইতোমধ্যে আলভারেজের নামে করেছে কর্তৃপক্ষ।

স্কালোনি বলেন দীর্ঘ ১ মাসের লড়াই শেষে এখন সময়টা উপভোগের। ফিরে গেছেন নিজ শহর পুহাতোয়। সবার ভালোবাসায় সিক্ত স্কালোনি পেয়েছেন সংবর্ধনা। এছাড়াও তার শহরের একটি রাস্তার নামকরণ হচ্ছ তার নামে।

লিওনেল স্কালোনি আরো বলেন, এটা শুধু পুহাতোর নয় সবার জয়। এই কয়েকদিনে আমরা যা অর্জন করেছি তা সারাজীবন আমাদের হৃদয়ে থাকবে। মেসির খেলে যাওয়া নিয়েও কোন সংশয় রাখেননি স্কালোনি। তার ভাবনার পুরোটা জুড়েই আর্জেন্টাইন তারকা। আর্জেন্টাইন কোচ বলেন, ইতোমধ্যে মেসি খেলা চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। ১০ নম্বর জার্সি সেভ।

তবে নিয়ম মেনেই এই জার্সি পরতে হয়। যদি সে না খেলে অন্য কাউকে এটা আমাদের দিতে হবে। এরই মধ্যে স্কালোনির ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা বলেছেন আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি ক্লাউদিও তাপিয়া। পরবর্তী ১০ বছরের জন্য আকাশী নীলদের হয়ে কাজ করবেন এই ট্যাকটিশিয়ান।

এদিকে করদোবার জনগণ সংবর্ধনায় ভাসিয়েছেন তরুণ ফরোয়ার্ড জুলিয়ান আলভারেজকে। প্রায় ১০ হাজার মানুষ রাস্তায় নেমেছিলেন বিশ্বকাপজয়ী বীরকে দেখতে। খোলা বাসে তার সঙ্গী হয়েছিলেন পরিবারের সদস্যরা।

জুলিয়ান আলভারেজ বলেন, নিজের দেশকে প্রতিনিধিত্ব করা সত্যি গর্বের। আমি সবসময় চেয়েছি। তবে মাত্র ২২ বছর বয়সে যে এটা হবে আমি কখনো ভাবিনি। ছোট বেলার ক্লাব অ্যাথলেটিকো কালসিনের মাঠে নেচে গেয়ে উদযাপন করেছেন শিরোপা জয়। যে ক্লাব এখন থেকে পরিচিতি পাবে বিশ্বকাপের প্রথম আসরেই ৪ গোল করে বাজিমাত করা জুলিয়ান আলভারেজের নামে।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. খেলাধুলা
  3. স্কালোনির নামে হচ্ছে রাস্তার নামকরণ, আলভারেজের নামে ক্লাব

স্কালোনির নামে হচ্ছে রাস্তার নামকরণ, আলভারেজের নামে ক্লাব

তাকে নিয়ে হয়নি মাতামাতি, ছিল না উল্লাস। তবে আর্জেন্টিনার শিরোপা ক্ষরা কাটানোর নেপথ্য নায়ক একজন লিওনেল স্কালোনি। ২৮ বছরের আক্ষেপ ঘুচিয়ে কোপা আমেরিকা কিংবা ৩৬ বছর পর আলবিসেলেস্তেদের হাতে সোনালি ট্রফির পূর্ণতা পেয়েছে এই মাস্টারমাইন্ডের কৌশলে।

নিজ শহর পাহুতোর জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টাইন কোচ লিওনেল স্কালোনি। তাকে সংবর্ধনা প্রদানের সাথে সাথে শহরের একটি রাস্তার নামকরণ  করা হচ্ছে তার নামে।

একই সঙ্গে চার গোল করা হুলিয়ান আলভারেজকে নেচে গেয়ে বরণ করে নিয়েছে তার নিজ শহর করদোবার জনগণ। তার ছোটবেলার ক্লাব অ্যাথলেটিকো কালসিনের নাম পরিবর্তন করে ইতোমধ্যে আলভারেজের নামে করেছে কর্তৃপক্ষ।

স্কালোনি বলেন দীর্ঘ ১ মাসের লড়াই শেষে এখন সময়টা উপভোগের। ফিরে গেছেন নিজ শহর পুহাতোয়। সবার ভালোবাসায় সিক্ত স্কালোনি পেয়েছেন সংবর্ধনা। এছাড়াও তার শহরের একটি রাস্তার নামকরণ হচ্ছ তার নামে।

লিওনেল স্কালোনি আরো বলেন, এটা শুধু পুহাতোর নয় সবার জয়। এই কয়েকদিনে আমরা যা অর্জন করেছি তা সারাজীবন আমাদের হৃদয়ে থাকবে। মেসির খেলে যাওয়া নিয়েও কোন সংশয় রাখেননি স্কালোনি। তার ভাবনার পুরোটা জুড়েই আর্জেন্টাইন তারকা। আর্জেন্টাইন কোচ বলেন, ইতোমধ্যে মেসি খেলা চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। ১০ নম্বর জার্সি সেভ।

তবে নিয়ম মেনেই এই জার্সি পরতে হয়। যদি সে না খেলে অন্য কাউকে এটা আমাদের দিতে হবে। এরই মধ্যে স্কালোনির ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা বলেছেন আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি ক্লাউদিও তাপিয়া। পরবর্তী ১০ বছরের জন্য আকাশী নীলদের হয়ে কাজ করবেন এই ট্যাকটিশিয়ান।

এদিকে করদোবার জনগণ সংবর্ধনায় ভাসিয়েছেন তরুণ ফরোয়ার্ড জুলিয়ান আলভারেজকে। প্রায় ১০ হাজার মানুষ রাস্তায় নেমেছিলেন বিশ্বকাপজয়ী বীরকে দেখতে। খোলা বাসে তার সঙ্গী হয়েছিলেন পরিবারের সদস্যরা।

জুলিয়ান আলভারেজ বলেন, নিজের দেশকে প্রতিনিধিত্ব করা সত্যি গর্বের। আমি সবসময় চেয়েছি। তবে মাত্র ২২ বছর বয়সে যে এটা হবে আমি কখনো ভাবিনি। ছোট বেলার ক্লাব অ্যাথলেটিকো কালসিনের মাঠে নেচে গেয়ে উদযাপন করেছেন শিরোপা জয়। যে ক্লাব এখন থেকে পরিচিতি পাবে বিশ্বকাপের প্রথম আসরেই ৪ গোল করে বাজিমাত করা জুলিয়ান আলভারেজের নামে।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন