The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪

মন্ত্রী নয়, মুক্তিযোদ্ধা সম্ভাষন শুনতেই বেশি ভালো লাগে-বানিজ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বানিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন,মন্ত্রী টিপু মুনশি নয়,মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশি শুনতে বেশি ভালো লাগে।আমার সৌভাগ্য যে আমি আমার বাবার সাথে যুদ্ধ করতে পেরেছি।সেদিনকার ৭ ই মার্চের ভাষনে আমি ছিলাম।বঙ্গবন্ধু একটা কথা বলেছিলেন,আমি যদি হুকুম দিবার নাও পারি,তোমরা বন্ধ করে দেবে।একটা জাতিকে কতোটা আপন করে নিলে এভাবে কথাগুলো বলা যায়।বঙ্গবন্ধুকে হত্যা মানে শুধু তাকে হত্যা নয়,পুরো জাতিকে হত্যা করা।

শনিবার (১৮ মার্চ) বনানীর লেকশোর হোটেলে মিরপুর ক্লাব আয়োজিত মিরপুর ক্লাব এক্সিলেন্স এওয়ার্ড-২০২২ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সচিব সুলেমান খান,আইসিটি ডিভিশনের সচিব শামসুল আরেফিন,এনভয় গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুস সালাম মুর্শেদী প্রমুখ।

মিরপুর ক্লাবকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন,নতুন ধরনের কনসেপ্ট নিয়ে কাজ করা সহজ নয়।কিন্তু কাজ শুরু করতে গেলে সাহসের প্রয়োজন।এই সাহসটা যার মনের ভেতর আছে,সেই সফল হবে।কাজের মধ্যে ব্যাতিক্রমী চিন্তা নিয়ে আসতে হবে।হঠাৎ করে শুনলে মনে হতে পারে যে কাজটা সম্ভব হবে কিনা।তবে সম্ভব হবে না বলে যে শুরু করতে হবে না এমন কোনো কথা নেই।অনেক দূর এগিয়ে যেতে হলে সবাইকে নিয়েই যেতে হয়,আপনারা সে কাজটাই করছেন।হাজার মাইল অতিক্রম করার জন্য প্রথমে একটা স্টেপ দিয়ে শুরু করতে হয়। আপনারা সেই পথ টা শুরু করেছেন।অনেক প্রতিদ্বন্দ্বিতা থাকবে।কিন্তু সেটাকে পার করেই এগিয়ে যেতে হবে।

ক্লাবের ফাউন্ডিং প্রেসিডেন্ট এস এম মাহবুব আলম বলেন,মিরপুর ক্লাবের মটো হলো ভালো থাকবো,ভালো রাখবো।আমাদের পূর্ব পুরুষেরা গ্রামীণ যে আচার নীতি পালন করতেন,সেই আদলে আমরা আধুনিক ছোঁয়ায় নির্মান করতে যাচ্ছি বেন ইকোনমি ও কমিউনিটি সেবা।উদ্যোক্তা বিশ্ববিদ্যালয় হবে একটি বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয়,যার মূল উদ্দেশ্য হবে উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও বৃহৎ পরিসরে কাজ করা।

এবারের মিরপুর ক্লাব এক্সিলেন্স এওয়ার্ডপ্রাপ্তরা হলেন-ফারজানা চৌধুরী,মো মনজুর মফিজ,এ এস এম মহিউদ্দিন মোনেম,মইনুল হক সিদ্দিকী,আসিফ ইকবাল,মো ফয়েজ উল্লাহ,আবদুস সালাম মুর্শেদী,ফারুক হাসান,চৌধুরী নাফিজ শারাফাত,মো আল কাশেম এবং আজমত ইকবাল।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. রাজনীতি
  3. মন্ত্রী নয়, মুক্তিযোদ্ধা সম্ভাষন শুনতেই বেশি ভালো লাগে-বানিজ্যমন্ত্রী

মন্ত্রী নয়, মুক্তিযোদ্ধা সম্ভাষন শুনতেই বেশি ভালো লাগে-বানিজ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বানিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন,মন্ত্রী টিপু মুনশি নয়,মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশি শুনতে বেশি ভালো লাগে।আমার সৌভাগ্য যে আমি আমার বাবার সাথে যুদ্ধ করতে পেরেছি।সেদিনকার ৭ ই মার্চের ভাষনে আমি ছিলাম।বঙ্গবন্ধু একটা কথা বলেছিলেন,আমি যদি হুকুম দিবার নাও পারি,তোমরা বন্ধ করে দেবে।একটা জাতিকে কতোটা আপন করে নিলে এভাবে কথাগুলো বলা যায়।বঙ্গবন্ধুকে হত্যা মানে শুধু তাকে হত্যা নয়,পুরো জাতিকে হত্যা করা।

শনিবার (১৮ মার্চ) বনানীর লেকশোর হোটেলে মিরপুর ক্লাব আয়োজিত মিরপুর ক্লাব এক্সিলেন্স এওয়ার্ড-২০২২ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সচিব সুলেমান খান,আইসিটি ডিভিশনের সচিব শামসুল আরেফিন,এনভয় গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুস সালাম মুর্শেদী প্রমুখ।

মিরপুর ক্লাবকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন,নতুন ধরনের কনসেপ্ট নিয়ে কাজ করা সহজ নয়।কিন্তু কাজ শুরু করতে গেলে সাহসের প্রয়োজন।এই সাহসটা যার মনের ভেতর আছে,সেই সফল হবে।কাজের মধ্যে ব্যাতিক্রমী চিন্তা নিয়ে আসতে হবে।হঠাৎ করে শুনলে মনে হতে পারে যে কাজটা সম্ভব হবে কিনা।তবে সম্ভব হবে না বলে যে শুরু করতে হবে না এমন কোনো কথা নেই।অনেক দূর এগিয়ে যেতে হলে সবাইকে নিয়েই যেতে হয়,আপনারা সে কাজটাই করছেন।হাজার মাইল অতিক্রম করার জন্য প্রথমে একটা স্টেপ দিয়ে শুরু করতে হয়। আপনারা সেই পথ টা শুরু করেছেন।অনেক প্রতিদ্বন্দ্বিতা থাকবে।কিন্তু সেটাকে পার করেই এগিয়ে যেতে হবে।

ক্লাবের ফাউন্ডিং প্রেসিডেন্ট এস এম মাহবুব আলম বলেন,মিরপুর ক্লাবের মটো হলো ভালো থাকবো,ভালো রাখবো।আমাদের পূর্ব পুরুষেরা গ্রামীণ যে আচার নীতি পালন করতেন,সেই আদলে আমরা আধুনিক ছোঁয়ায় নির্মান করতে যাচ্ছি বেন ইকোনমি ও কমিউনিটি সেবা।উদ্যোক্তা বিশ্ববিদ্যালয় হবে একটি বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয়,যার মূল উদ্দেশ্য হবে উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও বৃহৎ পরিসরে কাজ করা।

এবারের মিরপুর ক্লাব এক্সিলেন্স এওয়ার্ডপ্রাপ্তরা হলেন-ফারজানা চৌধুরী,মো মনজুর মফিজ,এ এস এম মহিউদ্দিন মোনেম,মইনুল হক সিদ্দিকী,আসিফ ইকবাল,মো ফয়েজ উল্লাহ,আবদুস সালাম মুর্শেদী,ফারুক হাসান,চৌধুরী নাফিজ শারাফাত,মো আল কাশেম এবং আজমত ইকবাল।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন