The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ২৫শে জুন, ২০২৪

ভলান্টিয়ার ফর বাংলাদেশের উদ্যোগে নারী দিবসে চালু হয়েছে প্যাড ব্যাংক

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে(বশেমুরবিপ্রবি) ‘ভলান্টিয়ার ফর বাংলাদেশ(VDB)’ এবং ‘ইন্সপিরেশন ফর হিউম্যান ওয়েলফেয়ার (IHW)’ এর যৌথভাবে ভিন্নধর্মী এক উদ্যোগ গ্রহন করেছে। সংগঠনগুলোর উদ্যোগে নারীদের পিরিয়ডের বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে ‘প্যাড ব্যাংক’ স্থাপন করা হয়েছে। এতে নারী শিক্ষার্থীরা বিনামূল্যে যেকোনো সময় প্যাড ব্যাংক থেকে সুবিধা নিতে পারবে বলে জানা যায়।

বুধবার (৮ই মার্চ) সকাল ১১ ঘটিকায় বিশ্ব নারী দিবস উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমি ভবনে নারীদের স্বাস্থ্য সচেতনার জন্য প্যাড ব্যাংক স্থাপন করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মো. কামরুজ্জামান, অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. ফায়েকুজ্জামান। এবং প্যাড ব্যাংক উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ভলান্টিয়ার ফর বাংলাদেশ(VBD)’ এবং ‘ইন্সপিরেশন ফর হিউম্যান ওয়েলফেয়ার (IHW)’ এর সদস্যবৃন্দ সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

এবিষয়ে গোপালগঞ্জ জেলা ভলান্টিয়ার ফর বাংলাদেশ(VBD) এর সভাপতি ওমর ফারুক অপু বলেন, আমাদের সংগঠনের বেশিরভাগ সদস্য বিশ্ববিদ্যালয়ের। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীরা হলে থাকার কারনে পিরিয়ডের সময়কালে তারা প্যাডের সুবিধা পায়না। কারন এর আগে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে এমন সহযোগিতা করা হয়নি৷ সেজন্য আমরা বিশ্ববিদ্যালয় প্যাড ব্যাংক স্থাপন করেছি৷ তিনি বলেন, পিরিয়ড চলাকালে নারী শিক্ষার্থীরা এখান থেকে বিনামূল্যে প্যাড সংগ্রহ করতে পারবে৷

বিশ্ব নারী দিবেস এমন উদ্যোগের বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মো. কামরুজ্জামান বলেন, নারী দিবসে ‘ভলান্টিয়ার ফর বাংলাদেশ(VDB)’ এবং ‘ইন্সপিরেশন ফর হিউম্যান ওয়েলফেয়ার (IHW)’-এর যৌথ উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন খুবই খুশি। বিশেষ করে নারীদের প্রয়োজনীয় এমন একটি অপরিহার্য বিষয়ে ভিন্নধর্মী উদ্যোগ গ্রহন করার জন্য সংগঠনগুলোকে ধন্যবাদ জানান তিনি। পরবর্তীতে নারীদের স্বাস্থসচেতনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটা টয়লেট নারীদের জন্য আলাদা সাইন যুক্ত এবং গর্ভবতী নারীদের জন্য আলাদা ব্যবস্থা করা হবে। এসময় তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে আমরা VBD এবং IHW সংগঠনকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করা হবে। এবং প্যাড শেষ হয়ে গেলে প্রশাসনের উদ্যোগে নতুন করে প্যাডের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান তিনি।

প্যাড ব্যাংকের সুবিধা এবং এর কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা সমাজবিজ্ঞান
তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী জ্যোতি রায় বলেন, মেয়েদের পিরিয়ড একটি প্রাকৃতিক বিষয়। এটি আমাদের যেকোনো সময় যেকোনো জায়গায় হয়ে থাকে। কিন্তু সাথে প্যাড না থাকলে আমরা অস্বস্তিকর অবস্থায় পড়ে যাই৷ অন্যদিকে, আমাদেরকে বেশিরভাগ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকতে হয়৷ ফলে এটি আরও একটি বিষয় হয়ে দাঁড়ায়৷ তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে ফার্মেসী না থাকার কারনে বাহিরে গিয়ে প্যাড নিতে হয়। কিন্তু এখন আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরেই প্যাডের সুবিধা পাব। প্যাড ব্যাংক স্থাপন করার জন্য তিনি ‘ভলান্টিয়ার ফর বাংলাদেশ(VDB)’ এবং ‘ইন্সপিরেশন ফর হিউম্যান ওয়েলফেয়ার (IHW)’ সংগঠনগুলোকে ধন্যবাদ জানান।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.