জনপ্রতিনিধিদের ‘সম্মান না পাওয়ার’ বিষয়ে ডিসিদের সংবেদনশীল হতে নির্দেশনা মন্ত্রীর

সংসদ সদস্য থেকে শুরু করে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের অনেক সময় স্থানীয় প্রশাসন বা অন্য সরকারি অফিসে ‘সেই ধরনের’ সম্মান না পাওয়ার বিষয়ে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) আরও সংবেদনশীল হতে নির্দেশনা দিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

আজ বৃহস্পতিবার তিন দিনব্যাপী ডিসি সম্মেলনের শেষ দিনে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত বিষয়ে আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন। রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে এই সম্মেলন হচ্ছে।

ডিসিদের দেওয়া নির্দেশনার কথা জানাতে গিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‌‘আমরা বলেছি, আমাদের সহকর্মীরা, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা, এমনকি সংসদ সদস্য বলেছেন, স্থানীয় প্রশাসন কিংবা অন্য সরকারি অফিস অনেক সময় সেই ধরনের সম্মান দেয় না কিংবা তাঁরা যেহেতু নির্বাচিত হয়েছেন, কিছু অঙ্গীকার করেছেন, সেগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিবেচনা করা হয় না। এ বিষয়ে যেন তাঁরা (ডিসি) আরও সংবেদনশীল হন। এটি খুবই দুঃখজনক, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ হয় না। এ জন্যই বলা হয়েছে।’

স্থানীয় পর্যায়ে প্রবাসীদের বিভিন্ন দুঃখ-দুর্দশার কথা জানিয়ে সে বিষয়েও সংবেদনশীল হতে ডিসিদের আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, এক কোটির বেশি প্রবাসী বিদেশে আছেন। তাঁরা অভিযোগ করেন, তাঁরা ঠিকমতো পাসপোর্ট পান না, পুলিশের ছাড়পত্র হয় না। সময়মতো বিবাহসনদ, জন্মসনদ হয় না। অনেক সময় দেশে এলে হয়রানি করা হয়। তাঁদের ভূমি অনেকে বেদখল করে ফেলে। তাঁদের মরদেহ আনতে অনেক সময় ঠিকমতো তথ্য পাওয়া যায় না। প্রবাসীদের এ ধরনের একাধিক অভিযোগ আছে। এ জন্য তিনি আশা করেন এ বিষয়ে ডিসিরা অনেক বেশি সংবেদনশীল হবেন। যাতে এই ধরনের সেবা সহজে হয়।

মন্ত্রী আরও বলেন, স্থানীয় প্রশাসন যেগুলো নিজেরাই করতে পারে, সেগুলো অনেক সময় ঢাকায় পাঠিয়ে দেয় এবং নিজেদের দায়িত্ব এড়িয়ে যায়। এর ফলে সবাই ঢাকাকেন্দ্রিক হচ্ছেন। এ বিষয়েও সজাগ হতে ডিসিদের বলা হয়েছে।