The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ২৩শে জুলাই, ২০২৪

আসন ফাঁকা রেখে ভর্তি কার্যক্রম শেষ করায় ১৬ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে রিট

গুচ্ছভুক্ত ১৬ টি বিশ্ববিদ্যালয় আসন ফাকা রেখে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি কার্যক্রম শেষ করায় চার শিক্ষার্থী মো. ইমাম হোসেন, এথিক্স অবন্তী খান, মো. ওয়াহিদুর রহমান লিমন এবং শাকিল হোসেন রাতুলের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এ বি এম ওয়ালিয়ুর রহমান খান এ রিট দায়ের করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলো এভাবে আসন শূন্য রেখে ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ করায় সহস্রাধিক শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এমতাবস্থায় বিবাদীদের আগামী সাতদিনের মধ্যে মোট ফাঁকা আসনের সংখ্যা প্রকাশ করার বিষয়ে নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে রিটে।

উক্ত রিটে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ও জিএসটি গুচ্ছভুক্ত সমন্বিত ভর্তি কমিটির সদস্য সচিবকে বিবাদী করা হয়েছে।

রিটে উল্লেখ করা হয়েছে, নির্ভরযোগ্য সূত্র থেকে নিশ্চিত হওয়া গেছে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে আসন খালি থাকলেও মেধাতালিকা অনুযায়ী চূড়ান্ত ভর্তি তালিকা প্রকাশ না করেই ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে। জিএসটি ভর্তি পরীক্ষায় ৫১ থেকে ৫৪ নম্বর অর্জনকারী রিটের বাদী চার শিক্ষার্থী এক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আরেক বিশ্ববিদ্যালয়ে ছোটাছুটি করলেও বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তাদের প্রকৃত ফাঁকা আসনের সংখ্যা জানায়নি।

বাদীরা ফাঁকা আসনে ভর্তির যোগ্য হলে তাদের স্পট এডমিশনের জন্য ডাকতে বলা হয়েছে। অন্যথায় বিবাদীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে রিটে উল্লেখ করা হয়েছে।

 

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.