The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪

আন্তর্জাতিক সম্মেলনে নিটারের শিক্ষার্থীর গবেষণা উপস্থাপন

দীপংকর, নিটার: ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে প্রথমবারের মতো দুই দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন সম্পন্ন করলো আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপকমিটি।

চতুর্থ শিল্প বিপ্লব নিয়ে উপমহাদেশে প্রথম কোনো রাজনৈতিক সংগঠন হিসেবে দুই দিনব্যাপী সম্মেলনের আয়োজন এটি। শুক্রবার (৪ নভেম্বর) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এই সম্মেলনের উদ্বোধন করেন।

শনিবার (৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় এই সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠান হয় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে।

আন্তর্জাতিক সম্মেলনে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে গবেষণাপত্র জমা দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়। ২০টি ক্যাটাগরিতে প্রায় ৫৮০ জন গবেষক তাদের গবেষণা পত্র জমা দেয়। পেপার ও পোস্টার জমা পড়ে ৬৬২টি। এগুলোর মধ্যে ২৫২ টি গবেষণা উপস্থানের সুযোগ হয়।

সাভারের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড রিসার্চ (নিটার) এর ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট এর ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. রবিউল আলম মারুফের ২ টি গবেষণা প্রবন্ধ গ্রহণযোগ্যতা পায়।

তার ২ টি গবেষণার একটি ন্যানোপার্টিকেল সংশ্লেষণ যোগে পাথুরকুচির পাতার থেকে অধিক বিদুৎ এবং পাওয়ার জেনারেশন এবং অন্যটি রোবোটিকস গবেষণায় মাল্টি ভেক্টর মেথড ব্যবহারে কম জটিলতায় ডিভাইস তৈরীর প্রবন্ধ। এদিকে ন্যানোপার্টিকেল ব্যবহারে বিদুৎ সরবরাহের প্রবন্ধে জন্য গবেষকমন্ডলী হলেন নিটারের ইইই ডিপার্টমেন্টের প্রভাষক নিরুপম দাস এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. মো. কামরুল আলম খান।

আন্তর্জাতিক সম্মেলনে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে গবেষণাপত্র জমা দেওয়ার আহ্বান জানানো হয় যেখানে শুধু বাংলাদেশের গবেষকরা নন— ইউরোপ, আমেরিকা, কানাডা, ভারত, জাপান, চীন, অস্ট্রেলিয়া, তাইওয়ান, মালয়েশিয়া, ব্রাজিল, দক্ষিণ কোরিয়া, সিঙ্গাপুর থেকেও গবেষকরা শতাধিক পেপার জমা দিয়েছেন। এদের মধ্যে রয়েছেন- সিলিকন ভ্যালির বিভিন্ন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান, লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজ, অস্ট্রেলিয়ার মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়, কানাডার ম্যাকমাস্টার ও ক্যালগারি বিশ্ববিদ্যালয়, আমেরিকার টেক্সাস আর্লিংটন বিশ্ববিদ্যালয়, বোস্টন বিশ্ববিদ্যালয়, ফিনল্যান্ডের হেলসিংকি বিশ্ববিদ্যালয়, জাপানের কিউসু বিশ্ববিদ্যালয়, দক্ষিণ কোরিয়ার সিউল ন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়, চায়না অ্যাকাডেমি অব সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয় ইত্যাদি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানের গবেষকরা।

এছাড়াও বুয়েট, কুয়েট, চুয়েট, রুয়েট, ডুয়েট, আইইউটি, নিটার সহ দেশের বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের গবেষকরা সম্মেলনে পেপার জমা দেন।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. ক্যাম্পাস
  3. আন্তর্জাতিক সম্মেলনে নিটারের শিক্ষার্থীর গবেষণা উপস্থাপন

আন্তর্জাতিক সম্মেলনে নিটারের শিক্ষার্থীর গবেষণা উপস্থাপন

দীপংকর, নিটার: ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে প্রথমবারের মতো দুই দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন সম্পন্ন করলো আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপকমিটি।

চতুর্থ শিল্প বিপ্লব নিয়ে উপমহাদেশে প্রথম কোনো রাজনৈতিক সংগঠন হিসেবে দুই দিনব্যাপী সম্মেলনের আয়োজন এটি। শুক্রবার (৪ নভেম্বর) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এই সম্মেলনের উদ্বোধন করেন।

শনিবার (৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় এই সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠান হয় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে।

আন্তর্জাতিক সম্মেলনে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে গবেষণাপত্র জমা দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়। ২০টি ক্যাটাগরিতে প্রায় ৫৮০ জন গবেষক তাদের গবেষণা পত্র জমা দেয়। পেপার ও পোস্টার জমা পড়ে ৬৬২টি। এগুলোর মধ্যে ২৫২ টি গবেষণা উপস্থানের সুযোগ হয়।

সাভারের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড রিসার্চ (নিটার) এর ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট এর ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. রবিউল আলম মারুফের ২ টি গবেষণা প্রবন্ধ গ্রহণযোগ্যতা পায়।

তার ২ টি গবেষণার একটি ন্যানোপার্টিকেল সংশ্লেষণ যোগে পাথুরকুচির পাতার থেকে অধিক বিদুৎ এবং পাওয়ার জেনারেশন এবং অন্যটি রোবোটিকস গবেষণায় মাল্টি ভেক্টর মেথড ব্যবহারে কম জটিলতায় ডিভাইস তৈরীর প্রবন্ধ। এদিকে ন্যানোপার্টিকেল ব্যবহারে বিদুৎ সরবরাহের প্রবন্ধে জন্য গবেষকমন্ডলী হলেন নিটারের ইইই ডিপার্টমেন্টের প্রভাষক নিরুপম দাস এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. মো. কামরুল আলম খান।

আন্তর্জাতিক সম্মেলনে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে গবেষণাপত্র জমা দেওয়ার আহ্বান জানানো হয় যেখানে শুধু বাংলাদেশের গবেষকরা নন— ইউরোপ, আমেরিকা, কানাডা, ভারত, জাপান, চীন, অস্ট্রেলিয়া, তাইওয়ান, মালয়েশিয়া, ব্রাজিল, দক্ষিণ কোরিয়া, সিঙ্গাপুর থেকেও গবেষকরা শতাধিক পেপার জমা দিয়েছেন। এদের মধ্যে রয়েছেন- সিলিকন ভ্যালির বিভিন্ন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান, লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজ, অস্ট্রেলিয়ার মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়, কানাডার ম্যাকমাস্টার ও ক্যালগারি বিশ্ববিদ্যালয়, আমেরিকার টেক্সাস আর্লিংটন বিশ্ববিদ্যালয়, বোস্টন বিশ্ববিদ্যালয়, ফিনল্যান্ডের হেলসিংকি বিশ্ববিদ্যালয়, জাপানের কিউসু বিশ্ববিদ্যালয়, দক্ষিণ কোরিয়ার সিউল ন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়, চায়না অ্যাকাডেমি অব সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয় ইত্যাদি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানের গবেষকরা।

এছাড়াও বুয়েট, কুয়েট, চুয়েট, রুয়েট, ডুয়েট, আইইউটি, নিটার সহ দেশের বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের গবেষকরা সম্মেলনে পেপার জমা দেন।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন