The Rising Campus
News Media

টুইটারের পরিচালনা পর্ষদ ভেঙে ইলোন মাস্ক নিজেই হচ্ছেন সিইও

সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্ট টুইটারের পরিচালনা পর্ষদ ভেঙে দিয়েছেন সংস্থাটির নতুন মালিক এবং ইলেকট্রিক গাড়ি নির্মাতা ও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান টেসলার প্রধান নির্বাহী ইলন মাস্ক। একইসঙ্গে টুইটারের নতুন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে নিজের নাম ঘোষণা করেছেন ইলন মাস্ক। একথা বলছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কয়েক মাসের টানাপোড়েনের পর রেকর্ড ৪৪ বিলিয়ন ডলারে মার্কিন এই মাল্টি-বিলিওনিয়ার গত সপ্তাহে সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্ট টুইটার কিনে নেন। এখন নিজেই সংস্থার প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব গ্রহণ করলেন।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, সারা বিশ্বের রাজনীতিবিদ ও সাংবাদিকরা টুইটার ব্যবহার করেন এবং মালিকানা হাতে পাওয়ার পর বেশ দ্রুতই সংস্থাটিতে নিজের প্রভাব রাখতে শুরু করেছেন মাস্ক। সোশ্যাল মিডিয়ার জনপ্রিয় এই প্লাটফর্মটিতে তিনি যে সংস্কারের কথা বলছেন তাতে টুইটার কীভাবে অ্যাকাউন্ট যাচাই করে সেটি ছাড়াও সংস্থাটিতে চাকরি ছাঁটাইয়ের মতো বিষয়গুলোও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

জানা গেছে, টুইটারে প্রথম রাউন্ডের ছাটাই নিয়ে আলোচনা চলছে। এটি কোম্পানিটির ২৫ শতাংশ কর্মীকে প্রভাবিত করতে পারে। এ বিষয়ে টুইটারের কাছে বিবিসি জানতে চাইলেও তাতে সাড়া দেয়নি সংস্থাটি।

এছাড়া ইলন মাস্ক কোম্পানিতে হাই প্রোফাইল মিত্রদের নিয়ে আসায় টুইটারের শীর্ষ নির্বাহীদের ইতোমধ্যেই তাদের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মার্কিন সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জে দাখিল করা নথির বরাতে জানা গেছে, গত ২৭ অক্টোবর টুইটারের মালিকানা কিনে নেওয়ার পর সংস্থাটির একমাত্র পরিচালক হয়েছেন ইলন মাস্ক। এর আগে টুইটারের পরিচালক ছিলেন নয়জন।

পরিচালনা পর্ষদ থেকে বিদায় নেওয়া কর্মকর্তাদের মধ্যে ব্রেট টেলর ও পরাগ আগরওয়ালও রয়েছেন। তারা যথাক্রমে টুইটার বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন।

অবশ্য টুইটারের মালিক হিসেবে ইলন মাস্ক ঠিক কতদিন প্রধান নির্বাহী হিসেবে থাকবেন বা অন্য কাউকে এই পদে নিয়োগ করতে পারেন কিনা সে বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

রয়টার্স বলছে, টেসলার বস ইলন মাস্ক সোমবার বলেছেন, তিনি টুইটারের প্রধান নির্বাহী হিসাবে কাজ করবেন। মার্কিন এই ধনকুবের রকেট কোম্পানি স্পেসএক্স, ব্রেন-চিপ স্টার্টআপ নিউরালিংক এবং টানেলিং ফার্ম দ্য বোরিং কোম্পানিও পরিচালনা করেন।

উল্লেখ্য, চলতি বছর এপ্রিলে রেকর্ড ৪৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে টুইটার কিনে নেওয়ার ঘোষণা করেছিলেন ইলন মাস্ক। এরপরে নিজের সিদ্ধান্ত থেকে পিছিয়ে আসেন মাস্ক। সেসময় তিনি জানিয়েছিলেন, অনুমানের থেকে টুইটারে বট বা ভুয়া অ্যাকাউন্টের সংখ্যা কয়েক গুণ বেশি হওয়ার কারণেই সংস্থাটি কেনার এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসা।

তবে অক্টোবরের শুরুতে সোশ্যাল মিডিয়ার জায়ান্ট এই প্রতিষ্ঠান কেনার সিদ্ধান্তে ফিরে আসেন ইলন মাস্ক। এসময় আগে যে দামে টুইটার কিনতে চেয়েছিলেন সেই দামেই আবার কেনার প্রক্রিয়া এগিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দেন তিনি। এরপর গত সপ্তাহে টুইটার কেনার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেন তিনি।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.