The Rising Campus
News Media
বৃহস্পতিবার, ২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

কক্সবাজারে ১০১ ইয়াবা কারবারির রায় জানা যাবে ১৪ নভেম্বর

তাফহীমুল আনাম, কক্সবাজার: কক্সবাজারের টেকনাফে প্রথম দফায় আত্মসমর্পণকারী ১০১ ইয়াবা কারবারির মামলায় আসামিদের পক্ষে সাফাই সাক্ষ্য ও তর্ক-যুক্তি উপস্থাপনের জন্য ১৪ নভেম্বর নির্ধারণ করেছেন আদালত। এদিন যুক্তি-তর্ক শেষে রায় ঘোষণার দিন ঠিক করবেন বিচারক।

আজ সোমবার (৭ নভেম্বর) কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল এ তারিখ নির্ধারণ করেন বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) ফরিদুল আলম।

তিনি বলেন, ১০১ জন আসামিকে চিহ্নিত করেছেন আদালত। আসামিপক্ষের আইনজীবী দুজনের সাফাই সাক্ষ্য প্রদানের আবেদন করেছেন। আদালত তা আমলে নিয়ে ১৪ নভেম্বর তারিখ নির্ধারণ করেছেন। ওই দিন সাফাই সাক্ষ্য শেষ হলে যুক্তি-তর্ক শেষে জানা যাবে কবে এ মামলার রায় ঘোষণা হবে।

পিপি আরও বলেন, ‘গত ৩০ অক্টোবর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা টেকনাফ থানার তৎকালীন পরিদর্শক (তদন্ত) এবিএমএস দোহার সাক্ষ্য প্রদানের মধ্য দিয়ে এই মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হয়েছে। মামলায় মোট ২১ জন সাক্ষী দিয়েছেন। বর্তমানে মামলার সকল আসামি জামিনে আছেন।

২০১৯ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি টেকনাফ সদরের টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের উপস্থিতিতে ১০২ জন ইয়াবাকারবারি সাড়ে ৩ লাখ ইয়াবা, ৩০টি দেশীয় তৈরি বন্দুক ও ৭০ রাউন্ড গুলিসহ আত্মসমর্পণ করেন। ওই দিনই তাদের নামে টেকনাফ মডেল থানায় অস্ত্র ও মাদক আইনে মামলা হয়। বাদী টেকনাফ থানার তৎকালীন পরিদর্শক (অপারেশন) শরীফ ইবনে আলম।

ওই দিনই আদালতের মাধ্যমে আত্মসমর্পণকারী সবাইকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে কক্সবাজার জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। ১০২ আসামির মধ্যে মামলার বিচারিক কার্যক্রম চলাকালে ২০০৯ সালের ৭ আগস্ট আসামি মোহাম্মদ রাসেল অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. আইন-আদালত
  3. কক্সবাজারে ১০১ ইয়াবা কারবারির রায় জানা যাবে ১৪ নভেম্বর

কক্সবাজারে ১০১ ইয়াবা কারবারির রায় জানা যাবে ১৪ নভেম্বর

তাফহীমুল আনাম, কক্সবাজার: কক্সবাজারের টেকনাফে প্রথম দফায় আত্মসমর্পণকারী ১০১ ইয়াবা কারবারির মামলায় আসামিদের পক্ষে সাফাই সাক্ষ্য ও তর্ক-যুক্তি উপস্থাপনের জন্য ১৪ নভেম্বর নির্ধারণ করেছেন আদালত। এদিন যুক্তি-তর্ক শেষে রায় ঘোষণার দিন ঠিক করবেন বিচারক।

আজ সোমবার (৭ নভেম্বর) কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল এ তারিখ নির্ধারণ করেন বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) ফরিদুল আলম।

তিনি বলেন, ১০১ জন আসামিকে চিহ্নিত করেছেন আদালত। আসামিপক্ষের আইনজীবী দুজনের সাফাই সাক্ষ্য প্রদানের আবেদন করেছেন। আদালত তা আমলে নিয়ে ১৪ নভেম্বর তারিখ নির্ধারণ করেছেন। ওই দিন সাফাই সাক্ষ্য শেষ হলে যুক্তি-তর্ক শেষে জানা যাবে কবে এ মামলার রায় ঘোষণা হবে।

পিপি আরও বলেন, ‘গত ৩০ অক্টোবর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা টেকনাফ থানার তৎকালীন পরিদর্শক (তদন্ত) এবিএমএস দোহার সাক্ষ্য প্রদানের মধ্য দিয়ে এই মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হয়েছে। মামলায় মোট ২১ জন সাক্ষী দিয়েছেন। বর্তমানে মামলার সকল আসামি জামিনে আছেন।

২০১৯ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি টেকনাফ সদরের টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের উপস্থিতিতে ১০২ জন ইয়াবাকারবারি সাড়ে ৩ লাখ ইয়াবা, ৩০টি দেশীয় তৈরি বন্দুক ও ৭০ রাউন্ড গুলিসহ আত্মসমর্পণ করেন। ওই দিনই তাদের নামে টেকনাফ মডেল থানায় অস্ত্র ও মাদক আইনে মামলা হয়। বাদী টেকনাফ থানার তৎকালীন পরিদর্শক (অপারেশন) শরীফ ইবনে আলম।

ওই দিনই আদালতের মাধ্যমে আত্মসমর্পণকারী সবাইকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে কক্সবাজার জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। ১০২ আসামির মধ্যে মামলার বিচারিক কার্যক্রম চলাকালে ২০০৯ সালের ৭ আগস্ট আসামি মোহাম্মদ রাসেল অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন