The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
বুধবার, ১৯শে জুন, ২০২৪

৪ হাজার ৩৮ টি গবেষণা প্রকল্প সম্পন্ন করেছে বাউরেস

বাকৃবি প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ সিস্টেমের (বাউরেস) তত্ত্বাবধায়নে ৪ হাজার ৩৮টি গবেষণা প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে ৬০১ টি গবেষণা প্রকল্প চলমান রয়েছে। প্রতি বছর বার্ষিক কর্মশালায় চলমান এসব গবেষণা প্রকল্প সমূহের অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়। ২৭ এপ্রিল (শনিবার) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ নজরুল ইসলাম সম্মেলন কক্ষে ২ দিনব্যাপী বাউরেসের এবারের বার্ষিক গবেষণা অগ্রগতি কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠিত হবে।

শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) বিকাল ৫টায় এক সংবাদ সম্মেলনে ওই কর্মশালা সম্পর্কে জানান বাউরেসের পরিচালক অধ্যাপক ড. মাহফুজা বেগম।

অধ্যাপক ড. মাহফুজা বেগম বলেন, দুইদিন ব্যাপী গবেষণা অগ্রগতির ২০২২-২০২৩ এর উদ্বোধনী কর্মশালায় এইচ-ইনডেক্সের ওপর ভিত্তি করে বাকৃবির মোট ১৬ জন গবেষককে ‘গ্লোবাল রিসার্চ ইমপ্যাক্ট রিকগনাইজেশন অ্যাওয়ার্ড-২০২৪’ প্রদান করা হবে। কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে কৃষি উৎপাদনে বিশেষ অবদান রাখার জন্য খামারি পর্যায়ের ৬ জন কৃষককে ‘প্রফেসর ড. আশরাফ আলী খান স্মৃতি কৃষি পুরস্কার-২০২৩’ প্রদান করা হবে। প্রথমবারের মতো এবছর কৃষি প্রযুক্তি প্রচার ও প্রসারে অবদান রাখার জন্য একজনকে ‘বাউরেস কৃষি সাংবাদিকতা এওয়ার্ড-২০২৪’ প্রদান করা হবে।

অধ্যাপক ড. মাহফুজা বেগম বলেন, বাউরেসের কর্মশালায় মোট ২০ টি সমান্তরাল টেকনিক্যাল সেশন ও ২ টি পোস্টার সেশন অনুষ্ঠিত হবে। টেকনিক্যাল সেশনে প্রায় ৬০১ টি গবেষণা প্রকল্পের ফলাফল উপস্থাপন করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালিত গবেষণা প্রকল্প থেকে উন্নত মানের ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর জার্নালে আর্টিকেল প্রকাশ করায় প্রকাশনা খরচ বাবদ ৬১ জনকে মোট ২৭ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা প্রদান করা হবে।

কর্মশালার প্রথম দিনে, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ড. শামছুল আলম। বাউরেসের পরিচালক অধ্যাপক ড. মাহফুজা বেগমের সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাকৃবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমদাদুল হক চৌধুরী। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের পরিচালক ড. দেবাশিষ সরকার, খাদ্য ও কৃষি সংস্থার বাংলাদেশ প্রতিনিধি ড. সী জাউসীন।

কর্মশালার দ্বিতীয় দিনে, টেকনিক্যাল সেশন শেষে একটি সমাপনী অনুষ্ঠিত হবে। অনুষ্ঠানে কারিগরি সেশন ভিত্তিক সারাংশ রিপোর্ট উপস্থাপন করা হবে এবং কারিগরি কমিটির মূল্যায়নের ভিত্তিতে প্রতিটি সেশন থেকে ১ জন করে মোট ২০ জনকে সেরা উপস্থাপনকারীর পুরষ্কার হিসেবে সনদ ও সম্মাননা প্রদান করা হবে। ২ টি পোষ্টার সেশন থেকে মোট ৬ জনকে পুরস্কৃত করা হবে।

উল্লেখ্য, বাকৃবির গবেষণা কার্যক্রম সুক্ষ্ম ভাবে পরিচালনার জন্য ১৯৮৪ সালের ৩০ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেটের ১৬১তম অধিবেশনে বাউরেস অনুমোদন লাভ করে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.