The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪

স্মার্ট পাওয়ার এন্ড এনার্জি চ্যালেঞ্জ প্রতিযোগিতার ফাইনালে নিটার শিক্ষার্থী মারুফ

বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ, বিদ্যুৎ ব্যবস্থার আধুনিকায়ন ও টেকসই সমাধানে স্মার্ট পাওয়ার ও এনার্জি বিষয়ক উদ্ভাবনী আইডিয়াকে বাস্তবে রূপ দিতে আয়োজিত হচ্ছে ‘বিচ্ছুরণ’ উদ্ভাবনী প্রতিযোগিতা।

এবারের স্মার্ট পাওয়ার এন্ড এনার্জিতে স্বয়ংসম্পূর্ণ বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে তারুণ্যের প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলা; বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের পাওয়ার সেল এবং গ্রীন ডেল্টা ইনস্যুরেন্স কোম্পানির উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিযোগিতায় সর্বমোট ৭০০+ আইডিয়া সাবমিট হয়।

স্মার্ট পাওয়ার এন্ড এনার্জি চ্যালেঞ্জ-২০২৩ এ সাভারের জাতীয় বস্ত্র প্রকৌশল ও গবেষণা ইন্সটিটিউট(নিটার) এর ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টর তৃতীয় বর্ষের ছাত্র মো: রবিউল আলম মারুফ  তার আইডিয়া সাবমিশন করেন। সর্বশেষ তথ্যমতে, তিনি গ্রান্ড ফিনালের শীর্ষ ২০ এর মধ্যে অবস্থান করছেন।

আগামী ৯ ডিসেম্বর, শনিবার রাজধানীর শের-ই বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে এই গ্রান্ড ফিনাল অনুষ্ঠিত হবে যার সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে উপস্থিত থাকবেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ,এমপি ।

উল্লেখ্য, গ্রান্ড ফিনালে ১০ জনকে জয়ী ঘোষনা করা হবে, যেখানে প্রত্যেকে তার গবেষণা আইডিয়া বাস্তবায়নের জন্য ৫ লাখ টাকা পাবেন।

এবারের বিচ্ছুরণ বাছাইপর্বে বিচারক হিসেবে যারা ছিলেন তারা  হলেন  বংগবন্ধু শেখ মুজিব ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড.মো:মাহফুজুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড.মো: মামুন-উর-রশিদ,  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মো:এল পলাশ, এআইউবি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন অধ্যাপক  দিপ নন্দী এবং বাপেক্স প্রকৌশল বিভাগের ডিজিএম ইঞ্জিনিয়ার মো:শেফাউল ইসলাম।

মারুফ জানান যে, এর আগেও ২০২১ সালে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের এর উদ্দ্যোগে আয়োজিত বিকিরণে তার আইডিয়া সাবমিশন করলেও প্রথম রাউন্ডেই বাতিল হয়ে যায়। নিটারের প্রকৌশল বিভাগের শিহ্মার্থী হয়ে জাতীয় পর্যায়ে কাজ উপস্থাপন করা তার জন্য গৌরব এবং আনন্দের। ভবিষ্যতেও এই উদ্ভাবনী প্রচেষ্টা চালু থাকবে বলেও তিনি জানান।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. উদ্যোক্তা ও সফলতার গল্প
  3. স্মার্ট পাওয়ার এন্ড এনার্জি চ্যালেঞ্জ প্রতিযোগিতার ফাইনালে নিটার শিক্ষার্থী মারুফ

স্মার্ট পাওয়ার এন্ড এনার্জি চ্যালেঞ্জ প্রতিযোগিতার ফাইনালে নিটার শিক্ষার্থী মারুফ

বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ, বিদ্যুৎ ব্যবস্থার আধুনিকায়ন ও টেকসই সমাধানে স্মার্ট পাওয়ার ও এনার্জি বিষয়ক উদ্ভাবনী আইডিয়াকে বাস্তবে রূপ দিতে আয়োজিত হচ্ছে 'বিচ্ছুরণ' উদ্ভাবনী প্রতিযোগিতা।

এবারের স্মার্ট পাওয়ার এন্ড এনার্জিতে স্বয়ংসম্পূর্ণ বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে তারুণ্যের প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলা; বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের পাওয়ার সেল এবং গ্রীন ডেল্টা ইনস্যুরেন্স কোম্পানির উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিযোগিতায় সর্বমোট ৭০০+ আইডিয়া সাবমিট হয়।

স্মার্ট পাওয়ার এন্ড এনার্জি চ্যালেঞ্জ-২০২৩ এ সাভারের জাতীয় বস্ত্র প্রকৌশল ও গবেষণা ইন্সটিটিউট(নিটার) এর ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টর তৃতীয় বর্ষের ছাত্র মো: রবিউল আলম মারুফ  তার আইডিয়া সাবমিশন করেন। সর্বশেষ তথ্যমতে, তিনি গ্রান্ড ফিনালের শীর্ষ ২০ এর মধ্যে অবস্থান করছেন।

আগামী ৯ ডিসেম্বর, শনিবার রাজধানীর শের-ই বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে এই গ্রান্ড ফিনাল অনুষ্ঠিত হবে যার সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে উপস্থিত থাকবেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ,এমপি ।

উল্লেখ্য, গ্রান্ড ফিনালে ১০ জনকে জয়ী ঘোষনা করা হবে, যেখানে প্রত্যেকে তার গবেষণা আইডিয়া বাস্তবায়নের জন্য ৫ লাখ টাকা পাবেন।

এবারের বিচ্ছুরণ বাছাইপর্বে বিচারক হিসেবে যারা ছিলেন তারা  হলেন  বংগবন্ধু শেখ মুজিব ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড.মো:মাহফুজুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড.মো: মামুন-উর-রশিদ,  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মো:এল পলাশ, এআইউবি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন অধ্যাপক  দিপ নন্দী এবং বাপেক্স প্রকৌশল বিভাগের ডিজিএম ইঞ্জিনিয়ার মো:শেফাউল ইসলাম।

মারুফ জানান যে, এর আগেও ২০২১ সালে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের এর উদ্দ্যোগে আয়োজিত বিকিরণে তার আইডিয়া সাবমিশন করলেও প্রথম রাউন্ডেই বাতিল হয়ে যায়। নিটারের প্রকৌশল বিভাগের শিহ্মার্থী হয়ে জাতীয় পর্যায়ে কাজ উপস্থাপন করা তার জন্য গৌরব এবং আনন্দের। ভবিষ্যতেও এই উদ্ভাবনী প্রচেষ্টা চালু থাকবে বলেও তিনি জানান।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন