The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪

সাত কলেজ দুই বিভাগে ১০০ আসন বাদ রেখেই শেষ ভর্তি প্রক্রিয়া

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সাত সরকারি কলেজে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি প্রক্রিয়া প্রায় শেষের দিকে। ২৩ হাজার ২৬২টি আসনে চূড়ান্ত মেধাতালিকা প্রকাশের পর দ্বিতীয় কিস্তির টাকা জমা নিচ্ছে ভর্তি কমিটি। তবে কবি নজরুল সরকারি কলেজ দুই বিভাগের ১০০ আসন বাদ রেখেই শেষ হচ্ছে এবারের ভর্তি কার্যক্রম।

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কমিটি সূত্রে জানা গেছে, কবি নজরুল সরকারি কলেজের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের ৫০ ও একই অনুষদের মার্কেটিং বিভাগের ৫০ আসনে ভর্তি নেয়নি ভর্তি কমিটি। কলেজটিতে এ দুই বিভাগের অনুমোদন না থাকায় ভর্তি কার্যক্রমের বাইরে ছিল দুই বিভাগের এ ১০০ আসন।

অধিভুক্ত সাত সরকারি কলেজের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে বিজ্ঞান, বাণিজ্য এবং কলা ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদের অধীনের অধীনে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কলেজগুলোতে মোট ২৬ হাজার ১৬০টি আসনের কথা বলা হলেও মূলত ২৩ হাজার ২৬২ আসনেই ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হয়েছে। আসনের বিষয়ে প্রকাশিত প্রথম সংখ্যাটি (২৬১৬০) তথ্যগত ভুল ছিল। অন্যদিকে কবি নজরুলের দুই বিভাগের ১০০ আসন অনুনোমোদিত হওয়া এটি ছিল হিসাবের বাইরে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে কবি নজরুল কলেজ দুই বিভাগের অনুমোদন নিতে পারলে সেগুলোও তালিকাভুক্ত করা হবে। কলেজটিতে বিভাগগুলোর অনুমোদন না থাকায় এবারের ভর্তি পরীক্ষায় এ আসনগুলো কোনো কাজে আসেনি।

তবে ভিন্ন কথা বলছে কবি নজরুল সরকারি কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজটির শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এবি এস এ সাদী মোহাম্মদ বলেন, সাত কলেজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত হওয়ার পর থেকে এ কলেজের সবগুলো বিভাগের সব আসনে ভর্তি পরীক্ষা হয়েছে। তবে এবারে কেন বিভাগগুলোর অনুমোদন নিয়ে প্রশ্ন আসছে সে বিষয়ে কোন তথ্য নেই।

এছাড়া এ কবি নজরুল সরকারি কলেজের সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলোর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে প্রতিবেদনটি প্রকাশ হওয়ার আগ পর্যন্ত তাদের কাছ থেকে কোনো ধরনের প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

এদিকে, গত সোমবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সাত কলেজের ভর্তি পরীক্ষার চূড়ান্ত মেধাতালিকা প্রকাশিত হয়। চূড়ান্ত তালিকায় মনোনীত শিক্ষার্থীরা গত বুধবার থেকে ভর্তির অবশিষ্ট টাকা ২য় কিস্তির মাধ্যমে পরিশোধ করছে। দ্বিতীয় কিস্তির টাকা জমা নেয়ার ক্ষেত্রে প্রথম কিস্তির জমাকৃত টাকা স্বয়ংক্রিয়ভাবে তাতে সমন্বয় হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্রান্ত ওয়েবসাইটের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, চূড়ান্ত মনোনয়নের সকল শিক্ষার্থীদের দ্বিতীয় কিস্তির ভর্তি ও নিবন্ধনের পে-স্লিপ তৈরি হয়েছে। ভর্তিচ্ছুদের আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারির মধ্যে টাকা জমা দিয়ে টাকা জমার রসিদ সংগ্রহ করতে হবে। এরপর ২০-২৩ ফেব্রুয়ারি স্ব স্ব কলেজে সশরীরে হাজির হয়ে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু করবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার (শিক্ষা-২) মুনসী শামস উদ্দীন আহম্মদ স্বাক্ষরিত পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির পাঠদান আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে। পাঠদান শুরু করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সাত কলেজের সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করা হয়েছে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. ক্যাম্পাস
  3. সাত কলেজ দুই বিভাগে ১০০ আসন বাদ রেখেই শেষ ভর্তি প্রক্রিয়া

সাত কলেজ দুই বিভাগে ১০০ আসন বাদ রেখেই শেষ ভর্তি প্রক্রিয়া

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সাত সরকারি কলেজে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি প্রক্রিয়া প্রায় শেষের দিকে। ২৩ হাজার ২৬২টি আসনে চূড়ান্ত মেধাতালিকা প্রকাশের পর দ্বিতীয় কিস্তির টাকা জমা নিচ্ছে ভর্তি কমিটি। তবে কবি নজরুল সরকারি কলেজ দুই বিভাগের ১০০ আসন বাদ রেখেই শেষ হচ্ছে এবারের ভর্তি কার্যক্রম।

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কমিটি সূত্রে জানা গেছে, কবি নজরুল সরকারি কলেজের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের ৫০ ও একই অনুষদের মার্কেটিং বিভাগের ৫০ আসনে ভর্তি নেয়নি ভর্তি কমিটি। কলেজটিতে এ দুই বিভাগের অনুমোদন না থাকায় ভর্তি কার্যক্রমের বাইরে ছিল দুই বিভাগের এ ১০০ আসন।

অধিভুক্ত সাত সরকারি কলেজের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে বিজ্ঞান, বাণিজ্য এবং কলা ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদের অধীনের অধীনে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কলেজগুলোতে মোট ২৬ হাজার ১৬০টি আসনের কথা বলা হলেও মূলত ২৩ হাজার ২৬২ আসনেই ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হয়েছে। আসনের বিষয়ে প্রকাশিত প্রথম সংখ্যাটি (২৬১৬০) তথ্যগত ভুল ছিল। অন্যদিকে কবি নজরুলের দুই বিভাগের ১০০ আসন অনুনোমোদিত হওয়া এটি ছিল হিসাবের বাইরে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে কবি নজরুল কলেজ দুই বিভাগের অনুমোদন নিতে পারলে সেগুলোও তালিকাভুক্ত করা হবে। কলেজটিতে বিভাগগুলোর অনুমোদন না থাকায় এবারের ভর্তি পরীক্ষায় এ আসনগুলো কোনো কাজে আসেনি।

তবে ভিন্ন কথা বলছে কবি নজরুল সরকারি কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজটির শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এবি এস এ সাদী মোহাম্মদ বলেন, সাত কলেজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত হওয়ার পর থেকে এ কলেজের সবগুলো বিভাগের সব আসনে ভর্তি পরীক্ষা হয়েছে। তবে এবারে কেন বিভাগগুলোর অনুমোদন নিয়ে প্রশ্ন আসছে সে বিষয়ে কোন তথ্য নেই।

এছাড়া এ কবি নজরুল সরকারি কলেজের সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলোর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে প্রতিবেদনটি প্রকাশ হওয়ার আগ পর্যন্ত তাদের কাছ থেকে কোনো ধরনের প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

এদিকে, গত সোমবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সাত কলেজের ভর্তি পরীক্ষার চূড়ান্ত মেধাতালিকা প্রকাশিত হয়। চূড়ান্ত তালিকায় মনোনীত শিক্ষার্থীরা গত বুধবার থেকে ভর্তির অবশিষ্ট টাকা ২য় কিস্তির মাধ্যমে পরিশোধ করছে। দ্বিতীয় কিস্তির টাকা জমা নেয়ার ক্ষেত্রে প্রথম কিস্তির জমাকৃত টাকা স্বয়ংক্রিয়ভাবে তাতে সমন্বয় হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্রান্ত ওয়েবসাইটের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, চূড়ান্ত মনোনয়নের সকল শিক্ষার্থীদের দ্বিতীয় কিস্তির ভর্তি ও নিবন্ধনের পে-স্লিপ তৈরি হয়েছে। ভর্তিচ্ছুদের আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারির মধ্যে টাকা জমা দিয়ে টাকা জমার রসিদ সংগ্রহ করতে হবে। এরপর ২০-২৩ ফেব্রুয়ারি স্ব স্ব কলেজে সশরীরে হাজির হয়ে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু করবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার (শিক্ষা-২) মুনসী শামস উদ্দীন আহম্মদ স্বাক্ষরিত পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির পাঠদান আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে। পাঠদান শুরু করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সাত কলেজের সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করা হয়েছে।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন