The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
বৃহস্পতিবার, ১৩ই জুন, ২০২৪

সাত কলেজের স্নাতক ১ম বর্ষের ক্লাস শুরু ২০ সেপ্টেম্বর

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) অধিভুক্ত রাজধানীর সরকারি সাত কলেজের (২০২২-২০২৩ শিক্ষাবর্ষ) আন্ডারগ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামের (স্নাতক) ১ম বর্ষের ক্লাস ২০ সেপ্টেম্বর শুরু হবে।

বুধবার (২৩ আগস্ট) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন ভর্তি কমিটির আহ্বায়ক এবং কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. মোস্তাফিজুর রহমান।

তিনি বলেন, ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে সরকারি সাত কলেজে আন্ডারগ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামে ভর্তি চলবে ১৬-২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু হবে ২০ সেপ্টেম্বর। শিক্ষার্থীদের ‘কলেজ ও বিষয়’ মনোনয়নের প্রথমধাপ শুরু হয়েছে ২২ আগস্ট। এরপর দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থও পঞ্চম ধাপের মনোনয়ন তালিকা যথাক্রমে ২৮ আগস্ট, ৪ সেপ্টেম্বর, ১০ সেপ্টেম্বর এবং ১৬ সেপ্টেম্বর প্রকাশ করা হবে। বিষয় মনোনয়ন প্রকাশের পর অনলাইনে অগ্রিম ৩ হাজার টাকা জমা দিয়ে আসন নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, একজন শিক্ষার্থীকে যেকোনো ধাপের মনোনয়নে একটি বিষয়ের জন্য মনোনীত হওয়ার পর নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে টাকা জমা করতে হবে। টাকা জমা দেওয়ার সময় শিক্ষার্থীকে দু’টি বিকল্পের যেকোনো একটি বেছে নিতে হবে।

>>  যদি শিক্ষার্থী মনোনীত কলেজের মনোনীত বিষয়টিতেই চূড়ান্তভাবে ভর্তি হওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। তবে সে বিষয় ‘পরিবর্তনে আগ্রহী নই’ বেছে নিয়ে উল্লিখিত ৩ হাজার টাকা অগ্রিম জমা করবে। এই ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর মনোনীত কলেজ ও বিষয় পরবর্তী মনোনয়নের ধাপগুলোতে পরিবর্তন হবে না।

>> যদি শিক্ষার্থী তার পছন্দক্রম অনুযায়ী ক্রমের উপরের দিকের বিষয়ে স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্থানান্তরে (অটোমাইগ্রেশন) আগ্রহী হয়, তবে সে ‘বিষয় পরিবর্তনে আগ্রহী’ অপশন বেছে নিয়ে ৩ হাজার টাকা প্রাথমিকভাবে জমা করবে। পরবর্তী ধাপের মনোনয়নগুলোতে তার এই অটোমাইগ্রেশন অপশন চালু থাকবে। তবে পরবর্তী যেকোনো ধাপের মনোনয়নে মনোনীত বিষয়ে বিকল্প ব্যবহার করে অটোমাইগ্রেশন বন্ধ করতে পারবে।

একই সঙ্গে পরিশোধিত টাকা পরে কলেজে ভর্তির সময়ে ভর্তি ও অন্যান্য ফি-র সঙ্গে সমন্বয় করা হবে। অপরদিকে যদি কোনো শিক্ষার্থী ফি পরিশোধ না করে, তবে তার মনোনয়ন বাতিল বলে গণ্য হবে এবং মেধাক্রম অনুযায়ী অন্য শিক্ষার্থীকে উক্ত বিষয়ে মনোনয়ন দেওয়া হবে। পরে কোনো পর্যায়ে তার আবেদন আর বিবেচিত হবে না।

কোনো শিক্ষার্থী ভর্তির কার্যক্রম সম্পন্ন না করলে বা ভর্তি বাতিল করলেও অগ্রিম পরিশোধিত ফি সম্পূর্ণভাবে অফেরৎযোগ্য থাকবে বলে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.