The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪

সমুদ্রে ভাসমান তিমিটি কিনারায় এসে পৌঁছাল

কক্সবাজার প্রতিনিধিঃ কক্সবাজারের হিমছড়ি সমুদ্রের অদূরে অগভীর জলে ভাসমান তিমিটি সমুদ্র সৈকতের কলাতলী সায়মন বীচ পয়েন্টে এসে আটকা পড়েছে। এর আগে মঙ্গলবার বেলা ১২ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত তিমিটির অবস্থান ছিল হিমছড়ি ও দরিয়ানগর সৈকতের কাছাকাছি।

মঙ্গলবার রাত ১০ টার দিকে মৃত ও অর্ধগলিত ব্রাইডস তিমিটি স্রোত ও ঢেউয়ের সাথে কলাতলী সায়মন বীচের বালিয়াড়িতে এসে আটকা পড়ে।

বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ( অতিরিক্ত সচিব) সাঈদ মাহমুদ বেলাল হায়দার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, তিমিটি প্রাথমিক পর্যবেক্ষণ করে দেখা গেছে এটি লম্বায় ৪২ ফিট, পেটের কাছে ব্যাস ২৪ ফিট, লেজের পাশের ব্যাস ১৪ ফিট। শরীরে পঁচন ধারায় এর লিঙ্গ নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি। বোরির গবেষকরা বুধবার রাত ১ টা নাগাদ অকুস্থলে নমুনা সংগ্রহ করছেন। প্রাপ্ত নমুনা বিশ্লেষন করে এর লিঙ্গ সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে। তবে তিমিটির শরীরে পঁচন ধরায় প্রয়োজনীয় তথ্য ,উপাত্ত ও নমুনা সংগ্রহ করে যত দ্রুত সম্ভব তা মাটিতে পুতে ফেলা উচিত।

ভবিষ্যতে এই তিমির কংকালটি বিভিন্ন স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও গবেষকদের জন্য প্রতিষ্ঠানিকভাবে প্রদর্শন করা যাবে।

বেলাল হায়দার আরো জানান, ১৯৭৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার সালদানহা উপ-সাগরের ডনকারগাট তিমি স্টেশনে পরিমাপ করা দীর্ঘতম ব্রাইডস তিমির দৈর্ঘ্য ছিল, ১৫.৫১ মিটার (৫০.৯ফুট)। ব্রাইডস তিমির ওজন সাধারণত ১২-২৫ মেট্রিক টন পর্যন্ত হতে পারে। লিঙ্গ ভেদে ব্রাইডস তিমির আকার ও ওজন কমবেশী হতে পারে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. জাতীয়
  3. সমুদ্রে ভাসমান তিমিটি কিনারায় এসে পৌঁছাল

সমুদ্রে ভাসমান তিমিটি কিনারায় এসে পৌঁছাল

কক্সবাজার প্রতিনিধিঃ কক্সবাজারের হিমছড়ি সমুদ্রের অদূরে অগভীর জলে ভাসমান তিমিটি সমুদ্র সৈকতের কলাতলী সায়মন বীচ পয়েন্টে এসে আটকা পড়েছে। এর আগে মঙ্গলবার বেলা ১২ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত তিমিটির অবস্থান ছিল হিমছড়ি ও দরিয়ানগর সৈকতের কাছাকাছি।

মঙ্গলবার রাত ১০ টার দিকে মৃত ও অর্ধগলিত ব্রাইডস তিমিটি স্রোত ও ঢেউয়ের সাথে কলাতলী সায়মন বীচের বালিয়াড়িতে এসে আটকা পড়ে।

বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ( অতিরিক্ত সচিব) সাঈদ মাহমুদ বেলাল হায়দার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, তিমিটি প্রাথমিক পর্যবেক্ষণ করে দেখা গেছে এটি লম্বায় ৪২ ফিট, পেটের কাছে ব্যাস ২৪ ফিট, লেজের পাশের ব্যাস ১৪ ফিট। শরীরে পঁচন ধারায় এর লিঙ্গ নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি। বোরির গবেষকরা বুধবার রাত ১ টা নাগাদ অকুস্থলে নমুনা সংগ্রহ করছেন। প্রাপ্ত নমুনা বিশ্লেষন করে এর লিঙ্গ সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে। তবে তিমিটির শরীরে পঁচন ধরায় প্রয়োজনীয় তথ্য ,উপাত্ত ও নমুনা সংগ্রহ করে যত দ্রুত সম্ভব তা মাটিতে পুতে ফেলা উচিত।

ভবিষ্যতে এই তিমির কংকালটি বিভিন্ন স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও গবেষকদের জন্য প্রতিষ্ঠানিকভাবে প্রদর্শন করা যাবে।

বেলাল হায়দার আরো জানান, ১৯৭৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার সালদানহা উপ-সাগরের ডনকারগাট তিমি স্টেশনে পরিমাপ করা দীর্ঘতম ব্রাইডস তিমির দৈর্ঘ্য ছিল, ১৫.৫১ মিটার (৫০.৯ফুট)। ব্রাইডস তিমির ওজন সাধারণত ১২-২৫ মেট্রিক টন পর্যন্ত হতে পারে। লিঙ্গ ভেদে ব্রাইডস তিমির আকার ও ওজন কমবেশী হতে পারে।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন