The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০২৪

সবাই ভুলে যায়, আমি ও এক জন নারী: শ্রাবন্তী

টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে অনেক সময়ই সমালোচনা শিকার হয়েছিলেন। এবার ফের বিতর্কে জড়ালেন অভিনেত্রী। জিম খুলে অনেকের কাছেই টাকা নিয়েছিলেন নাকি তিনি। কিন্তু ফেরত দেননি বলে অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে।

শুক্রবার (৭ এপ্রিল) থেকে একের পর এক অভিযোগ। তবে চুপ ছিলেন তিনি। অবশেষে ক্ষোভ উগরে অভিনেত্রী এ প্রসঙ্গে মুখ খুললেন।

তিনি বলেন, ‘বহু দিন হলো আমি এই জিমের সঙ্গে যুক্ত নই। হ্যাঁ, এটা ঠিক যখন জিমটি খোলা হয়েছিল তখন আমি ছিলাম। কিন্তু বহু দিন হয়ে গেল কোনও যোগাযোগ নেই এই জিমের সঙ্গে আমার। টাকাপয়সার কোনও লেনদেনও কেউ দেখাতে পারবেন না।’

শ্রাবন্তী বলেন, ‘সবাই আসলে আমাকে নিয়ে চর্চা করে মজা পায়। ভিউ বেশি আসে বলে হয়তো এমনটা করে। কিন্তু সবাই ভুলে যাচ্ছে, দিন শেষে আমিও একটা নালী। আমারও সন্তান আছে। আমার একটা পরিবারও আছে। এই ঘটনায় আমি খুবই বিরক্ত। একদমই ভালো লাগছে না আর।’

কয়েক মাস আগে মধ্যমগ্রামের স্টার মলে ‘দ্য ফিটনেস এম্পায়ার’ নামক জিমটি খোলা হয়। যেখানে ভর্তির জন্য প্রত্যেকের কাছ থেকে সাড়ে সাত হাজার টাকা নেয়া হয়েছিল। পার্সোনাল ট্রেনারের জন্য নেয়া হয় চার হাজার টাকা। হোলির জন্য বন্ধ ছিল জিম। তারপর থেকে আর খোলেনি সেই জিম। কর্তৃপক্ষের সঙ্গে অনেক বার যোগাযোগের চেষ্টাও করেছিলেন গ্রাহকরা। কিন্তু যোগাযোগ না করতে পেরে তারা পুলিশের দ্বারস্থ হন। তবে এই জিমে শ্রাবন্তী ছাড়াও রয়েছেন আরও দুজন মালিক।

শ্রাবন্তীর মতো নায়িকা যুক্ত থাকায় আগ্রহ নিয়ে অনেকেই জিমে ভর্তি হন। সারা বছরের সাবস্ক্রিপশনের মোটা টাকা জমা দেন অনেকে।

চলতি বছরের শুরুর দিকেও বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে অফার দেয়া হয়েছিল। ১৮ হাজার টাকায় সারা বছরের সাবস্ক্রিপশন। এক দফা সাড়ে সাত হাজার টাকা দিয়ে মিলেছিল ভর্তি। জিমে যোগ দেয়ার পর পার্সোনাল ট্রেনারের ফি বাবদ আরও চার হাজার টাকা দিতে হয়। কিন্তু হঠাৎ কাউকে কিছু না জানিয়ে সম্প্রতি বন্ধ হয়ে যায় জিমটি।

অভিযোগ প্রসঙ্গে শ্রাবন্তী জানিয়েছেন, যারা নাম নথিভুক্ত করেছেন তারা নিশ্চয়ই সময়মতো সবকিছু পেয়ে যাবেন। নিশ্চয়ই কোনো কারণে জিমটা বন্ধ করা হয়েছে।

সূত্র: আনন্দবাজার।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.