The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
সোমবার, ৪ঠা মার্চ, ২০২৪

সপ্তাহে ৭দিন কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি খোলাসহ চার দফা দাবিতে ইবি ছাত্র ইউনিয়নের স্মারকলিপি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সপ্তাহে সাতদিন কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি খোলাসহ চার দফা দাবিতে প্রধান গ্রন্থাগারিক এস. এম আব্দুল লতিফের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইউনিয়ন সংসদ। আজ বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে সংগঠনির সভাপতি ইমানুল সোহান, সাধারণ সম্পাদক মুখলেছুর রহমান সুইটের নেতৃত্বে অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

তাদের দাবিসমূহ হচ্ছে, সপ্তাহে সাত দিন লাইব্রেরি খোলা রাখা, ব্যক্তিগত বই নিয়ে শিক্ষার্থীদের প্রবেশের সুযোগ দান, অন্তত এক সপ্তাহের জন্য বই ইস্যু করার সুযোগ দেওয়া ও থেমে যাওয়া ডিজিটালাইজেশন প্রক্রিয়া পুনরায় শুরু করা।

এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত গ্রন্থাগারিক এস এম আব্দুল লতিফ বলেন, ‘পর্যাপ্ত লোকবলের অভাবে আমরা এ বিশাল লাইব্রের সপ্তাহের সাতদিন খোলা রাখতে পারছি না। লোকবল দিলে লাইব্রেরি সবদিনই খোলা রাখতে পারব।’ তিনি আরও বলেন, করোনার কারণে লাইব্রেরি ডিজিটালাইজেশনের কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর সেসময় পরপর তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। কিন্তু কোন তদন্ত কমিটিই আজ পর্যন্ত কোন রিপোর্ট জমা দিতে পারে নি। এবং এটা চালু করার জন্য আমি তিনবার লিখিত দিয়েছি কোন কাজ হয়নি। কম্পিউটার গুলো অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে আছে এবং চালু না করার ফলে এর আইপিএসগুলো একেবারে নষ্ট হয়ে গিয়েছে। এখানে দক্ষ লোকবল দিলে আমি পুনরায় এর কাজ চালু করতে পারব।

আর একসপ্তাহ বই নেয়ার ইস্যুতে গ্রন্থাগারিক বলেন, বই কেনার জন্য বরাদ্দ ৩৬লক্ষ টাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৬টি ডিপার্টমেন্টেই দেয়া হয় মিনিমাম দুইকপি বই কেনার জন্য দিয়ে থাকে। এক কপি কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে জমা দিতে হয় আরেক কপি বিভাগগুলো তাদের সেমিনার লাইব্রেরিতে রাখে। কিন্তু আটটি বিভাগ এ অর্থ নিয়ে থাকলেও এখন পর্যন্ত বই দিতে পারে নি। যার ফলে অনেক বই এখানে নেই।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. রাজনীতি
  3. সপ্তাহে ৭দিন কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি খোলাসহ চার দফা দাবিতে ইবি ছাত্র ইউনিয়নের স্মারকলিপি

সপ্তাহে ৭দিন কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি খোলাসহ চার দফা দাবিতে ইবি ছাত্র ইউনিয়নের স্মারকলিপি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সপ্তাহে সাতদিন কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি খোলাসহ চার দফা দাবিতে প্রধান গ্রন্থাগারিক এস. এম আব্দুল লতিফের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইউনিয়ন সংসদ। আজ বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে সংগঠনির সভাপতি ইমানুল সোহান, সাধারণ সম্পাদক মুখলেছুর রহমান সুইটের নেতৃত্বে অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

তাদের দাবিসমূহ হচ্ছে, সপ্তাহে সাত দিন লাইব্রেরি খোলা রাখা, ব্যক্তিগত বই নিয়ে শিক্ষার্থীদের প্রবেশের সুযোগ দান, অন্তত এক সপ্তাহের জন্য বই ইস্যু করার সুযোগ দেওয়া ও থেমে যাওয়া ডিজিটালাইজেশন প্রক্রিয়া পুনরায় শুরু করা।

এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত গ্রন্থাগারিক এস এম আব্দুল লতিফ বলেন, ‘পর্যাপ্ত লোকবলের অভাবে আমরা এ বিশাল লাইব্রের সপ্তাহের সাতদিন খোলা রাখতে পারছি না। লোকবল দিলে লাইব্রেরি সবদিনই খোলা রাখতে পারব।’ তিনি আরও বলেন, করোনার কারণে লাইব্রেরি ডিজিটালাইজেশনের কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর সেসময় পরপর তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। কিন্তু কোন তদন্ত কমিটিই আজ পর্যন্ত কোন রিপোর্ট জমা দিতে পারে নি। এবং এটা চালু করার জন্য আমি তিনবার লিখিত দিয়েছি কোন কাজ হয়নি। কম্পিউটার গুলো অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে আছে এবং চালু না করার ফলে এর আইপিএসগুলো একেবারে নষ্ট হয়ে গিয়েছে। এখানে দক্ষ লোকবল দিলে আমি পুনরায় এর কাজ চালু করতে পারব।

আর একসপ্তাহ বই নেয়ার ইস্যুতে গ্রন্থাগারিক বলেন, বই কেনার জন্য বরাদ্দ ৩৬লক্ষ টাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৬টি ডিপার্টমেন্টেই দেয়া হয় মিনিমাম দুইকপি বই কেনার জন্য দিয়ে থাকে। এক কপি কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে জমা দিতে হয় আরেক কপি বিভাগগুলো তাদের সেমিনার লাইব্রেরিতে রাখে। কিন্তু আটটি বিভাগ এ অর্থ নিয়ে থাকলেও এখন পর্যন্ত বই দিতে পারে নি। যার ফলে অনেক বই এখানে নেই।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন