সংক্ষিপ্ত সিলেবাসেই হবে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা

সংক্ষিপ্ত সিলেবাসেই নেওয়া হবে ২০২৩ সালের এসএসসি-এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। এ জন্য চলতি বছরের জন্য নির্ধারিত পুনর্বিন্যাসকৃত (সংক্ষিপ্ত) সিলেবাসে আগামী বছর পরীক্ষা নিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব দিয়েছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)। এটি নিয়ে আজ মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১২টায় মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এনসিটিবির প্রস্তাবে বলা হয়েছে, ২০২৩ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা কোন সিলেবাসে হবে সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সবাই সিদ্ধান্তহীনতায় রয়েছেন। চলতি বছরের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা আগামী বছর এসএসসি ও সমমানে এবং একাদশের শিক্ষার্থীরা এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় অংশ নেবে।

এ বিষয়ে এনসিটিবির চেয়ারম্যান (রুটিন দায়িত্ব) অধ্যাপক মো. মশিউজ্জামান গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আগামী বছর এসএসসি-এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা চলতি বছরের মতো সিলেবাসে নিতে মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছি। গত মার্চে প্রস্তাবটি পাঠানো হয়। আমরা প্রস্তাব দিলেও এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।’

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক তপন কুমার সরকার বলেন, ‘চলতি বছরের মতো আগামী বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা পুনর্বিন্যাসকৃত সিলেবাসে হবে। তবে কয়টি বিষয়ে পরীক্ষা হবে, কত নম্বরে বা কত সময়ে, তা শিক্ষামন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে জানাবেন।’

জানা গেছে, ২০২৩ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নবম শ্রেণিতে ক্লাস ২০২১ সালের পয়লা জানুয়ারি থেকে করার কথা থাকলেও শুরু করেছে ১২ সেপ্টেম্বর। আর এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা ১ জুলাইয়ের পরিবর্তে শুরু করেছে গত ২ মার্চ। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সময় টেলিভিশন ও অনলাইন ক্লাস এবং অ্যাসাইনমেন্ট করে ছাত্রছাত্রীরা শিখন প্রক্রিয়ায় অংশ নেয়। এরপরও শিখন ঘাটতি রয়েই গেছে।

সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে নেওয়ার কারণ হিসেবে এনসিটিবি বলছেন, ২০২৩ সালের পরীক্ষার্থীদের পূর্ণ সিলেবাস সম্পন্ন করা সম্ভব হবে না। এ ছাড়া অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের জন্য ২০২১ ও ২০২২ সালের সিলেবাস অনুযায়ী প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করতে হবে, যা সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি করতে পারে।

চলতি বছরের সিলেবাস অনুযায়ী আগামী বছর এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা নিলে সমস্যা অনেকাংশে কমে যাবে। সংশ্লিষ্ট সবার পক্ষে সিলেবাস অনুসরণ করা সহজ হবে বলেও মনে করছে এনসিটিবি।