The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

শ্বশুরবাড়ি গিয়ে মারপিটে প্রাণ গেল যুবকের

টিআরসি রিপোর্টঃ রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর মানিকনগর এলাকায় মারপিটে আব্দুল্লাহ আল সোহান (২৮) নামে যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় বাড়িওয়ালাসহ বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) রাত ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে মুগদা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত সোহানের চাচাতো ভাই সাগর মিয়া জানান, মঙ্গলবার রাতে সোহান ও তার স্ত্রী মাসুমা সিদ্দিকা দোলার বাসায় যান। তখন দোলাদের বাসায় তাদের পরিবারের কেউ ছিলেন না। দোলার বাসার বাড়িওয়ালা ও স্থানীয়রা বিয়ের বিষয়ে জানতেন না। কারণ দুই বছর আগে আদালতের মাধ্যমে দোলাকে বিয়ে করেছিলেন সোহান।

তিনি বলেন, এ সময় বাড়িওয়ালা জামাল তাদেরকে জেরা করতে থাকেন। এক পর্যায়ে দোলা তাদের বিয়ের কাগজপত্র বাড়িওয়ালাকে দেখান। কিন্তু তারপরেও বাড়িওয়ালা দোলার কাছ থেকে সোহানকে ছিনিয়ে নিয়ে পাশের বাসার নিচে নিয়ে যায়। এরপর তাকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি দিতে থাকেন। এক পর্যায়ে সোহান অচেতন হয়ে পড়লে প্রথমে মনোয়ারা হাসপাতাল ও পরে মুগদা মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সাগর মিয়া বলেন, সোহানের শরীরে বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। কানাডা যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন সোহান। পিঠার ব্যবসা ছিল তার, বিভিন্ন দোকানে পাইকারি বিক্রি করতেন। বর্তমানে খিলগাঁও সি ব্লক আনসার ক্যাম্পে পেছনে ভাড়া বাসায় থাকেন তারা। তার বাড়ি পটুয়াখালী জেলার বাউফল থানার গোলাবাড়ি গ্রামে। এক ভাই এক বোনের মাঝে সোহান বড়। তার বাবার নাম ইউনুস খান।

বিষয়টি নিশ্চিত করে যাত্রাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজুল আলম বলেন, মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে মানিকনগরের মনোয়ারা হাসপাতালের পেছনে এ ঘটনাটি ঘটে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে সোহানের মরদেহ উদ্ধার করে। পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে রাত ১২টার দিকে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় অভিযুক্ত বাড়িওয়ালা জামালসহ বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। কী ঘটেছিল সে বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. জাতীয়
  3. শ্বশুরবাড়ি গিয়ে মারপিটে প্রাণ গেল যুবকের

শ্বশুরবাড়ি গিয়ে মারপিটে প্রাণ গেল যুবকের

টিআরসি রিপোর্টঃ রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর মানিকনগর এলাকায় মারপিটে আব্দুল্লাহ আল সোহান (২৮) নামে যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় বাড়িওয়ালাসহ বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) রাত ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে মুগদা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত সোহানের চাচাতো ভাই সাগর মিয়া জানান, মঙ্গলবার রাতে সোহান ও তার স্ত্রী মাসুমা সিদ্দিকা দোলার বাসায় যান। তখন দোলাদের বাসায় তাদের পরিবারের কেউ ছিলেন না। দোলার বাসার বাড়িওয়ালা ও স্থানীয়রা বিয়ের বিষয়ে জানতেন না। কারণ দুই বছর আগে আদালতের মাধ্যমে দোলাকে বিয়ে করেছিলেন সোহান।

তিনি বলেন, এ সময় বাড়িওয়ালা জামাল তাদেরকে জেরা করতে থাকেন। এক পর্যায়ে দোলা তাদের বিয়ের কাগজপত্র বাড়িওয়ালাকে দেখান। কিন্তু তারপরেও বাড়িওয়ালা দোলার কাছ থেকে সোহানকে ছিনিয়ে নিয়ে পাশের বাসার নিচে নিয়ে যায়। এরপর তাকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি দিতে থাকেন। এক পর্যায়ে সোহান অচেতন হয়ে পড়লে প্রথমে মনোয়ারা হাসপাতাল ও পরে মুগদা মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সাগর মিয়া বলেন, সোহানের শরীরে বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। কানাডা যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন সোহান। পিঠার ব্যবসা ছিল তার, বিভিন্ন দোকানে পাইকারি বিক্রি করতেন। বর্তমানে খিলগাঁও সি ব্লক আনসার ক্যাম্পে পেছনে ভাড়া বাসায় থাকেন তারা। তার বাড়ি পটুয়াখালী জেলার বাউফল থানার গোলাবাড়ি গ্রামে। এক ভাই এক বোনের মাঝে সোহান বড়। তার বাবার নাম ইউনুস খান।

বিষয়টি নিশ্চিত করে যাত্রাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজুল আলম বলেন, মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে মানিকনগরের মনোয়ারা হাসপাতালের পেছনে এ ঘটনাটি ঘটে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে সোহানের মরদেহ উদ্ধার করে। পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে রাত ১২টার দিকে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় অভিযুক্ত বাড়িওয়ালা জামালসহ বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। কী ঘটেছিল সে বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন