The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
শনিবার, ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪

শাবিপ্রবিতে আসন ফাঁকা ২৮৬টি

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) ২০২০-২১ সেশনে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি কার্যক্রম চলছে। পঞ্চম ধাপের ভর্তি শেষে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ফাঁকা রয়েছে ২৮৬টি আসন। আসনগুলো মেধাতালিকা অনুযায়ী পূরণ করা হবে বলে জানিয়েছে ভর্তি কমিটি।

সূত্র জানায়, বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘এ’ ইউনিটে ৯৫৫টি সাধারণ আসনের বিপরীতে ফাঁকা রয়েছে ১৪৭টি। সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘বি’ ইউনিটের ৬০২টি আসনের বিপরীতে ফাঁকা রয়েছে ১৩৯টি। এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগের ২২৫টি আসনের বিপরীতে ৫৭টি, বাণিজ্য বিভাগের ৮৩টি আসনের বিপরীতে ৩২টি ও মানবিক বিভাগের ২৯৪টি আসনের বিপরীতে ৫০টি আসন ফাঁকা রয়েছে।

প্রথমবারের মতো গুচ্ছভুক্ত হয়ে ভর্তি পরীক্ষা নেয় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে ভর্তি কার্যক্রম শুরু করে তারা। পরে ভিসি বিরোধী আন্দোলনে ছেদ পড়ে ভর্তি কার্যক্রমে।

আসন ফাঁকার বিষয়টি নিশ্চিত করে ভর্তি কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. মুশতাক আহমেদ বলেন, পঞ্চম ধাপের ভর্তি শেষে মোট ১ হাজার ৫৮৭টি আসনের বিপরীতে ফাঁকা রয়েছে ২৮৬ আসন। আশা করি খুব দ্রুত ভর্তি কার্যক্রম শেষ হবে।

এদিকে ভর্তি পরীক্ষার সাড়ে তিন মাস পার হলেও এখানো ভর্তি কার্যক্রম শেষ করতে না পারায় শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। নির্ধারিত সময়ে ভর্তি শেষ করতে না পারাকে তারা গুচ্ছের সমন্বয়হীনতাকে দায়ী করেছেন। ভর্তি অফিস জানায়, বারবার মেধাতালিকা প্রকাশের পরও পর্যাপ্ত শিক্ষার্থী না পাওয়ায় ভর্তি শেষ করতে দেরি হচ্ছে। এছাড়া ভিসি বিরোধী আন্দোলনেও স্বাভাবিকভাবে ভর্তির কাজ চলমান ছিলো না। ভর্তির কাজ শেষ হওয়ার পরপরই ক্লাস শুরু হবে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. ক্যাম্পাস
  3. শাবিপ্রবিতে আসন ফাঁকা ২৮৬টি

শাবিপ্রবিতে আসন ফাঁকা ২৮৬টি

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) ২০২০-২১ সেশনে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি কার্যক্রম চলছে। পঞ্চম ধাপের ভর্তি শেষে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ফাঁকা রয়েছে ২৮৬টি আসন। আসনগুলো মেধাতালিকা অনুযায়ী পূরণ করা হবে বলে জানিয়েছে ভর্তি কমিটি।

সূত্র জানায়, বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘এ’ ইউনিটে ৯৫৫টি সাধারণ আসনের বিপরীতে ফাঁকা রয়েছে ১৪৭টি। সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘বি’ ইউনিটের ৬০২টি আসনের বিপরীতে ফাঁকা রয়েছে ১৩৯টি। এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগের ২২৫টি আসনের বিপরীতে ৫৭টি, বাণিজ্য বিভাগের ৮৩টি আসনের বিপরীতে ৩২টি ও মানবিক বিভাগের ২৯৪টি আসনের বিপরীতে ৫০টি আসন ফাঁকা রয়েছে।

প্রথমবারের মতো গুচ্ছভুক্ত হয়ে ভর্তি পরীক্ষা নেয় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে ভর্তি কার্যক্রম শুরু করে তারা। পরে ভিসি বিরোধী আন্দোলনে ছেদ পড়ে ভর্তি কার্যক্রমে।

আসন ফাঁকার বিষয়টি নিশ্চিত করে ভর্তি কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. মুশতাক আহমেদ বলেন, পঞ্চম ধাপের ভর্তি শেষে মোট ১ হাজার ৫৮৭টি আসনের বিপরীতে ফাঁকা রয়েছে ২৮৬ আসন। আশা করি খুব দ্রুত ভর্তি কার্যক্রম শেষ হবে।

এদিকে ভর্তি পরীক্ষার সাড়ে তিন মাস পার হলেও এখানো ভর্তি কার্যক্রম শেষ করতে না পারায় শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। নির্ধারিত সময়ে ভর্তি শেষ করতে না পারাকে তারা গুচ্ছের সমন্বয়হীনতাকে দায়ী করেছেন। ভর্তি অফিস জানায়, বারবার মেধাতালিকা প্রকাশের পরও পর্যাপ্ত শিক্ষার্থী না পাওয়ায় ভর্তি শেষ করতে দেরি হচ্ছে। এছাড়া ভিসি বিরোধী আন্দোলনেও স্বাভাবিকভাবে ভর্তির কাজ চলমান ছিলো না। ভর্তির কাজ শেষ হওয়ার পরপরই ক্লাস শুরু হবে।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন