যাঁরা বেশি নাক ডাকেন, তাঁদের ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি, দাবি গবেষণায়

অনেক মানুষকেই ঘুমের মধ্যে নাক ডাকতে দেখা যায়। কেউ বেশি নাক ডাকেন কেউ বা আবার মাঝে মাঝে। ঠাণ্ডা-সর্দিজনিত কারণেও অনেককে নাক ডাকতে দেখা যায়। নাক ডাকা নিয়ে অনেকেই ঠাট্টা করেন। কিন্তু বিষয়টি মোটেই হাসি ঠাট্টায় উড়িয়ে দেয়ার মত নয়।

সম্প্রতি সুইডেনের উপসালা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক দল গবেষক দাবি করেছেন, যারা নাক ডেকে ঘুমান, তাদের ক্যানসার আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।

বারসেলোনার একটি বিজ্ঞান সম্মেলনে বিজ্ঞানী আন্দ্রেয়াস পামের নেতৃত্বে প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্র তার দাবি করেণ, মানুষের নাক ডাকার পিছনে একটি বড় কারণ ‘অবসট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়া’ বা ‘ওএসএ’। এই সমস্যার কারণে নাকের ভেতর দিয়ে বায়ুপ্রবাহের পথ বন্ধ হয়ে আসে। তাই ঘুমের সময় শব্দ হয়।

গবেষণার জন্য চার হাজার ২০০ জন ওএসএ রোগীর উপর একটি জরিপ চালান বিজ্ঞানীরা। গবেষণায় দেখা যায়, রোগীদের প্রায় অর্ধেকই শেষ পাঁচ বছরের মধ্যে ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছেন।

কিন্তু কেন এমন হয় এর কারণ জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। তারা জানান, অনেক ওএসএ রোগীর মধ্যেই স্থূলতা, ডায়াবেটিসের মতো সমস্যা দেখা যায়। আগে ভাবা হত সেগুলিই ক্যানসারের আশঙ্কা বাড়ায়। তবে নতুন পরীক্ষায় দেখা গেছে, এই সমস্যায় ভোগা মানুষদের মধ্যে রক্তে তুলনামূলক ভাবে অনেক দ্রুত অক্সিজেনের পরিমাণ কমে যায়। বিশেষ করে ঘুমের মধ্যে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। দীর্ঘমেয়াদি ভিত্তিতে এই অক্সিজেন কমে যাওয়ার কারণেই ক্যানসারের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

তবে সম্পূর্ণ বিষয়টি নিয়ে নিশ্চিত হতে আরও গবেষণা প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা