The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ২৫শে জুন, ২০২৪

যবিপ্রবিতে খাদিজার মুক্তির দাবিতে ছাত্র ইউনিয়নের মশাল প্রজ্জ্বলন

যবিপ্রবি প্রতিনিধি: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় এক বছর ধরে কারাগারে থাকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী খাদিজাতুল কুবরার মুক্তির দাবিতে মশাল প্রজ্জ্বলন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে ছাত্র ইউনিয়ন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংসদ। এসময় তাঁরা রাষ্ট্রীয়ভাবে গণমাধ্যমের পূর্ণ স্বাধীনতার দাবি জানান।

রবিবার (২৭ আগস্ট) রাত ৮ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মশাল প্রজ্বলন ও সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শেষ করে ছাত্র ইউনিয়ন, যবিপ্রবি সংসদ। এসময় তারা Free Khadija, freedom of expression, 365 days of injustice, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা চাই ইত্যাদি স্লোগান প্লাকার্ডে লিখে নিয়ে অবস্থান করেন।

কর্মসূচিতে ছাত্র ইউনিয়ন যবিপ্রবি সংসদের নেতৃবৃন্দ বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে রাষ্ট্রের বিদ্যমান আর্থ-সামাজিক অবস্থাকেন্দ্রিক খাদিজার করা প্রশ্নগুলো কোনো অপরাধ হতে পারে না। এই রাষ্ট্রের নাগরিকদের কথা বলার স্বাধীনতা, প্রশ্ন করার স্বাধীনতা, জবাবদিহিতা চাওয়ার স্বাধীনতা দিতে হবে। গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে হবে৷ আমরা বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, যবিপ্রবি সংসদের পক্ষ থেকে খাদিজাতুল কুবরার মুক্তি চাই।

উল্লেখ্য যে, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী এবং বিতার্কিক খাদিজাতুল কুবরা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের দুই মামলায় ৩৬৫ দিন যাবৎ কারাগারে আটক আছেন। কিডনিতে পাথরসহ নানারকম শারীরিক উপসর্গে আক্রান্ত থাকার পরও বারবার তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করা হচ্ছে।

পাশাপাশি তার শারীরিক এবং মানসিক অবস্থা বিবেচনা না করে, এমনকি মামলার রায়ের আগেই মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত কয়েদিদের জন্য নির্দিষ্ট কনডেম সেলে খাদিজাকে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

খাদিজার মামলাটি যে ভিডিওর ভিত্তিতে করা হয়েছে সেখানে দেখা যায়, উপস্থাপক হিসেবে খাদিজা প্রশ্ন করেছেন, ‘আইনশৃঙ্খলার বর্তমান অবনতি ও সামাজিক অবক্ষয় সম্পর্কে আপনার মতামত কী?’, ‘ছাত্র রাজনীতি কতটা গুরুত্বপূর্ণ?’, ‘আপনি কি মনে করেন বিএনপি বিরোধী দল হিসেবে তার ভূমিকা পালনে ব্যর্থ হচ্ছে?’

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.