The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪

ভারতের স্কুলে নিষিদ্ধ হচ্ছে স্যার-ম্যাডাম সম্বোধন

সাঈদ মঈনঃ এখন থেকে আর ‘স্যার’ বা ‘ম্যাডাম’ নয়, ডাকতে হবে ‘টিচার’। লিঙ্গবৈষম্য ঘোচাতে এবার এমনই পদক্ষেপ করতে চলেছে ভারতের কেরালা রাজ্য। এমনটাই খবর জানাচ্ছে হিন্দুস্তান টাইমসের।

প্রচলিত ধ্যান-ধারণার বাইরে গিয়ে নতুন পথ দেখালো ভারতের কেরালা রাজ্য। শিক্ষার আলোয় যারা আলোকিত করছেন তাদের লিঙ্গভেদের প্রয়োজন নেই। তাদের একটাই পরিচয় হবে, তারা ‘শিক্ষক’। এখন থেকে তাই আর ‘স্যার’ বা ‘ম্যাডাম’ ডাকা নয়, তার পরিবর্তে ডাকতে হবে ‘টিচার’। লিঙ্গবৈষম্য ঘোচাতে এবার এমনই পদক্ষেপ করতে চলেছে কেরালা।

দেশটির একাধিক গণমাধ্যমের খবরসূত্রে জানা যায়, কেরালার শিশু সুরক্ষা অধিকার কমিশন স্কুল পর্যায় থেকেই শিশুদের মধ্যে লিঙ্গসমতা গড়ে তুলতে এমন নির্দেশনা জারি করেছে। ইতোমধ্যে রাজ্যের শিক্ষা দপ্তরকে এই মর্মে নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভারতে বহুদিন ধরেই লিঙ্গবৈষম্য ঘোচানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। এ সমস্যা দূর করতে ছোট থেকেই শিশুদের মধ্যে লিঙ্গসমতা গড়ে তুলতে হবে। কেরালার শিশু সুরক্ষা অধিকার কমিশনের দাবি, শিক্ষকদের ‘স্যার’ বা ‘ম্যাডাম’ বলে ডাকলে সেখান থেকে লিঙ্গ বিভাজন করা সহজ। ফলে ‘টিচার’ শব্দটি অনেক বেশি উপযুক্ত। ‘টিচার’ শব্দকে লিঙ্গনিরপেক্ষ বলে মনে করেছে কমিশনের বিশেষজ্ঞ প্যানেল।

টিচার’ শব্দটি চালু হলে, সেটা নিঃসন্দেহে শিক্ষা ও লিঙ্গ বৈষম্যের ক্ষেত্রে বড় পদক্ষেপ হবে বলে মনে করছেন অনেকেই।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. ক্যাম্পাস
  3. ভারতের স্কুলে নিষিদ্ধ হচ্ছে স্যার-ম্যাডাম সম্বোধন

ভারতের স্কুলে নিষিদ্ধ হচ্ছে স্যার-ম্যাডাম সম্বোধন

সাঈদ মঈনঃ এখন থেকে আর ‘স্যার’ বা ‘ম্যাডাম’ নয়, ডাকতে হবে ‘টিচার’। লিঙ্গবৈষম্য ঘোচাতে এবার এমনই পদক্ষেপ করতে চলেছে ভারতের কেরালা রাজ্য। এমনটাই খবর জানাচ্ছে হিন্দুস্তান টাইমসের।

প্রচলিত ধ্যান-ধারণার বাইরে গিয়ে নতুন পথ দেখালো ভারতের কেরালা রাজ্য। শিক্ষার আলোয় যারা আলোকিত করছেন তাদের লিঙ্গভেদের প্রয়োজন নেই। তাদের একটাই পরিচয় হবে, তারা ‘শিক্ষক’। এখন থেকে তাই আর ‘স্যার’ বা ‘ম্যাডাম’ ডাকা নয়, তার পরিবর্তে ডাকতে হবে ‘টিচার’। লিঙ্গবৈষম্য ঘোচাতে এবার এমনই পদক্ষেপ করতে চলেছে কেরালা।

দেশটির একাধিক গণমাধ্যমের খবরসূত্রে জানা যায়, কেরালার শিশু সুরক্ষা অধিকার কমিশন স্কুল পর্যায় থেকেই শিশুদের মধ্যে লিঙ্গসমতা গড়ে তুলতে এমন নির্দেশনা জারি করেছে। ইতোমধ্যে রাজ্যের শিক্ষা দপ্তরকে এই মর্মে নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভারতে বহুদিন ধরেই লিঙ্গবৈষম্য ঘোচানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। এ সমস্যা দূর করতে ছোট থেকেই শিশুদের মধ্যে লিঙ্গসমতা গড়ে তুলতে হবে। কেরালার শিশু সুরক্ষা অধিকার কমিশনের দাবি, শিক্ষকদের ‘স্যার’ বা ‘ম্যাডাম’ বলে ডাকলে সেখান থেকে লিঙ্গ বিভাজন করা সহজ। ফলে ‘টিচার’ শব্দটি অনেক বেশি উপযুক্ত। ‘টিচার’ শব্দকে লিঙ্গনিরপেক্ষ বলে মনে করেছে কমিশনের বিশেষজ্ঞ প্যানেল।

টিচার’ শব্দটি চালু হলে, সেটা নিঃসন্দেহে শিক্ষা ও লিঙ্গ বৈষম্যের ক্ষেত্রে বড় পদক্ষেপ হবে বলে মনে করছেন অনেকেই।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন