The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
শুক্রবার, ১৯শে জুলাই, ২০২৪

বিশ্ব নেতাদের অভিনন্দন-শুভেচ্ছায় ভাসছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান

বেশ নাটকিয়তার পর তুরস্কের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন গড়ায় রান-অফে। প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ রান-অফ নির্বাচনে কেমাল কিলিচদারোগলুকে পরাজিত করে টানা তৃতীয়বারের মতো তুরস্কের নতুন প্রেসিডেন্ট হয়েছেন রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান। নির্বাচনে জয়ের মাধ্যমে আরও পাঁচ বছর তুরস্কে তার ক্ষমতা নিশ্চিত করেন মুসলিম বিশ্বের জনপ্রিয় এই নেতা।

সর্বশেষ পাওয়া তথ্য মতে ৯৯.৪৩ শতাংশ ব্যালট গণনা সম্পন্ন হয়েছে এবং সেই ফলাফল অনুসারে, তুরস্কের জনপ্রিয় এই নেতা ৫২.১৬ শতাংশ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। অন্যদিকে প্রতিদ্বন্দ্বী কিলিচদারোগ্লু পেয়েছেন ৪৭.৮৬ শতাংশ ভোট।

৬৯ বছর বয়সী এরদোয়ান ২০০৩ সালে প্রাথমিকভাবে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে তুরস্কের ক্ষমতায় এসেছিলেন। রোববার সন্ধ্যায় তুরস্কের সুপ্রিম ইলেকশন কাউন্সিলের (ওয়াইএসকে) চেয়ারম্যান প্রেসিডেন্ট পদে এরদোয়ানের পুনর্নির্বাচিত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

আর এরপরই বিশ্ব নেতাদের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা বার্তায় ভাসছেন এরদোয়ান।

এদিকে নির্বাচনের পর আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো পরাজয় স্বীকার করেননি প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কেমাল কিলিচদারোগলু। এক বার্তায় তিনি বলেছেন: ‘দেশের জন্য যেসব সমস্যা অপেক্ষা করছে সেটি নিয়েই এখন আসলে আমি দুঃখ পাচ্ছি।’

যুক্তরাষ্ট্রঃ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন নির্বাচনে বিজয়ের পরেই প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে তাদের অভিনন্দন বার্তা পাঠিয়েছেন।

এরদোয়ানকে অভিনন্দন জানিয়ে টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় বাইডেন বলেছেন, ‘আমি দ্বিপাক্ষিক ইস্যুতে এবং বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ ভাগ করে নেওয়ার বিষয়ে ন্যাটো মিত্র হিসাবে (এরদোয়ানের সাথে) একসাথে কাজ চালিয়ে যাওয়ার জন্য উন্মুখ।’

একই সাথে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন তুরস্ককে সামরিক জোট ন্যাটোর মূল্যবান মিত্র এবং অংশীদার বলে অভিহিত করেছেন। রোববারের রান-অফ নির্বাচনে ভোটদানের উচ্চ হার এবং তুরস্কের ‘দীর্ঘ গণতান্ত্রিক ঐতিহ্যের’ প্রশংসাও করেছেন ব্লিংকেন।

রাশিয়াঃ
নির্বাচনে জয়ের পর ‘প্রিয় বন্ধু’ এরদোয়ানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। একইসঙ্গে এরদোয়ান ও তুরস্কের পররাষ্ট্রনীতির ভূয়সী প্রশংসাও করেছেন তিনি। পুতিন বলেন, ‘বন্ধুত্বপূর্ণ রুশ-তুর্কি সম্পর্ক শক্তিশালীকরণ এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে পারস্পরিক সহযোগিতার জন্য আপনার ব্যক্তিগত অবদানের অত্যন্ত প্রশংসা করি আমরা।’

নির্বাচনে জয় নিশ্চিত হওয়ার পরপরই প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে অভিনন্দন বার্তা পাঠান প্রেসিডেন্ট পুতিন। ওই বার্তায় পুতিন বলেন, ‘নির্বাচনে বিজয় তুরস্কের সরকারপ্রধান হিসাবে আপনার নিঃস্বার্থ কাজের একটি স্বাভাবিক ফলাফল। একইসঙ্গে এই জয় রাষ্ট্রীয় সার্বভৌমত্বকে শক্তিশালী করার এবং স্বাধীন পররাষ্ট্রনীতি পরিচালনার জন্য তুরস্কের জনগণের সমর্থনের স্পষ্ট প্রমাণ।’

কাতারঃ
নির্বাচনে জয়ের পর কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় তিনি বলেছেন, ‘আমার প্রিয় ভাই রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান, আপনার বিজয়ের জন্য অভিনন্দন। আমি আপনার নতুন মেয়াদে আপনার সাফল্য কামনা করছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘তুর্কি জনগণের অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির ক্ষেত্রে এবং আমাদের শক্তিশালী দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের অগ্রগতির মাধ্যমে আপনি এটি অর্জন করতে পারবেন।’

ইউক্রেনঃ
এরদোয়ানকে তার বিজয়ের জন্য অভিনন্দন জানিয়েছেন ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তিনি বলেছেন, তিনি ‘আমাদের দেশের সুবিধার জন্য কৌশলগত অংশীদারিত্ব জোরদার করার পাশাপাশি ইউরোপের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার জন্য সহযোগিতা জোরদার করার’ আশা করেন।

জার্মানিঃ
এরদোয়ানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎস। এসময় উভয় দেশের জনগণ এবং অর্থনীতি কতটা ‘গভীরভাবে জড়িত’ তা উল্লেখ করে বলেছেন, ‘একসাথে আমরা আমাদের অভিন্ন এজেন্ডাকে নতুন উদ্দীপনার সাথে এগিয়ে নিতে চাই!’

ফ্রান্স
ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেছেন, ফ্রান্স ও তুরস্ক ‘এগিয়ে যেতে থাকবে’। ম্যাক্রোঁ টুইটারে লিখেছেন, ‘ফ্রান্স এবং তুরস্কের একসাথে মোকাবিলা করার জন্য বিশাল চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এর মধ্যে ইউরোপে শান্তির প্রত্যাবর্তন, আমাদের ইউরো-আটলান্টিক জোটের ভবিষ্যৎ, ভূমধ্যসাগর ইস্যুও রয়েছে। প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে আমি অভিনন্দন জানাই, আমরা এগিয়ে যেতে থাকব।’

ইউরোপীয় ইউনিয়নঃ
ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মিশেল এবং ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডার লেইন রোববারের নির্বাচনে জয়লাভের জন্য এরদোয়ানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

ইইউ প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘তুরস্কের প্রেসিডেন্ট হিসেবে পুনরায় নির্বাচিত হওয়ার জন্য রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ানকে অভিনন্দন। আগামী বছরগুলোতে ইইউ-তুরস্কের সম্পর্ক আরও গভীর করতে আপনার সাথে আবারও কাজ করার জন্য আমি উন্মুখ।’

যুক্তরাজ্যঃ
ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক এক টুইট বার্তায় বলেন, তিনি ‘ন্যাটো মিত্র হিসাবে নিরাপত্তা হুমকি মোকাবিলাসহ’ যুক্তরাজ্য এবং তুরস্কের মধ্যে ‘শক্তিশালী সহযোগিতার’ সম্পর্ক অব্যাহত রাখার বিষয়ে উন্মুখ।

আর্মেনিয়াঃ
আর্মেনীয় প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনিয়ান এরদোয়ানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। একই সাথে তিনি দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক ‘পূর্ণ স্বাভাবিককরণের’ বিষয়ে কাজ করার জন্য উন্মুখ।

সুইডেনঃ
সুইডিশ প্রধানমন্ত্রী উলফ ক্রিস্টারসন টুইটারের মাধ্যমে এরদোয়ানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। একই সাথে তিনি জোর দিয়ে বলেছেন, দুই দেশের নিরাপত্তা তাদের ‘ভবিষ্যৎ অগ্রাধিকার’।

ইসরায়েলঃ
ইসরায়েলের প্রেসিডেন্ট আইজ্যাক হারজগ বলেছেন, তিনি ‘এটাই বিশ্বাস করেন’ যে তিনি ও এরদোয়ান উভয় দেশের মধ্যে ‘ভালো সম্পর্ক জোরদার ও সম্পর্কের নতুন ক্ষেত্র প্রসারিত করতে একসাথে কাজ চালিয়ে যাবেন’।

লিবিয়াঃ
লিবিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবদুল হামিদ দিবেইবাহ রোববারের নির্বাচনে এরদোয়ানের বিজয়কে প্রেসিডেন্টের সফল প্রকল্প ও নীতির প্রতি তুর্কি জনগণের আস্থার পুনর্নবীকরণ হিসেবে বর্ণনা করেছেন। মূলত দিবেইবাহের ত্রিপোলি-ভিত্তিক জাতীয় ঐক্য সরকারকে সমর্থন করছে তুরস্ক। অন্যদিকে লিবিয়ার পূর্বঞ্চলীয়-ভিত্তিক প্রতিদ্বন্দ্বী সরকারের বিরোধিতা করে থাকে আঙ্কারা।

ফিলিস্তিনঃ
ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ শাতায়েহ নির্বাচনে বিজয়ের জন্য এরদোয়ান এবং তুর্কি জনগণকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। এছাড়া ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ গোষ্ঠী হামাসের রাজনৈতিক কার্যালয়ের প্রধান ইসমাইল হানিয়াহ বলেছেন: ‘নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার জন্য প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে আমি অভিনন্দন জানাই এবং তুর্কি জনগণের সঠিক অবস্থানকে সাধুবাদ জানাই। আমরা আমাদের সংগ্রাম এবং জেরুজালেমের জন্য তাদের সমর্থন পেতে উন্মুখ।’

আজারবাইজানঃ
আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ ফোনে এরদোয়ানকে অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি তাকে বাকু সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়ার মধ্যে সম্প্রতিক সময়ের যুদ্ধে গেম চেঞ্জার হিসেবে তুরস্ক আজারবাইজানকে সহায়তা করে থাকে।

ইরানঃ
ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি এরদোয়ানের পুনরায় নির্বাচিত হওয়াকে ‘তুরস্কের জনগণের অব্যাহত মূল্যবান আস্থার নিদর্শন’ বলে অভিহিত করেছেন। তিনি আশা ব্যক্ত করেন ‘পরবর্তী পর্যায়ে তুরস্কের সাথে আমাদের সম্পর্ক ভালো প্রতিবেশী হিসেবে এবং পারস্পরিক স্বার্থের ভিত্তিতে অব্যাহত থাকবে।’

পাকিস্তানঃ
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ এক টুইট বার্তায় বলেছেন, প্রেসিডেন্ট পদে এরদোয়ানের পুনরায় নির্বাচিত হওয়াটা ‘ঐতিহাসিক’ ঘটনা। ‘তিনি (এরদোয়ান) নিপীড়িত মুসলমানদের জন্য শক্তির স্তম্ভ এবং তাদের অবিচ্ছেদ্য অধিকারের লড়াইয়ে সাহসী কণ্ঠস্বর।’

ব্রাজিলঃ
ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলা দা সিলভা এরদোয়ানকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, নতুন মেয়াদে এরদোয়ান যেন তুরস্কের জনগণের জন্য ‘অনেক কাজ’ করতে পারবেন। লুলা টুইটারে লিখেছেন, ‘শান্তি, দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে লড়াই এবং বিশ্বের উন্নয়নে বিশ্বব্যাপী সহযোগিতায় ব্রাজিলের অংশীদারিত্বে আস্থা রাখতে পারেন এরদোয়ান। আমরা একসাথে কাজ করতে পারি।’

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.