The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
শুক্রবার, ২৪শে মে, ২০২৪

বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোকে কুক্ষিগত করে রেখেছে ছাত্রলীগ; সভাপতি ছাত্রদল

রাবি প্রতিনিধি: ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি রাকিবুল ইসলাম রাকিব বলেন, দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ছাত্রলীগ দখল করে শিক্ষার্থীদের জিম্মি করে হলগুলোকে কুক্ষিগত করেছে। সেখানে ছাত্রদল এবং অন্যান্য দলের শিক্ষার্থীদের থাকতে দেওয়া হচ্ছে না।

বৃহস্পতিবার ( ৯ মে) সকাল ১০টায় রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র কার্যালয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের কর্মী সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি ছাত্রলীগের কর্মকাণ্ড তুলে ধরে আরো বলেন, ছাত্রলীগ ‘কোটা সংস্কার আন্দোলন’ ও ‘নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনে’ হেলমেট বাহিনী হয়ে কিভাবে হাতুড়ি পেটা করেছে তা সবাই দেখেছে। ক্যাম্পাসে আপনাদেরকে তারা অবাধে ক্লাস করতে দেয় না, হলে থাকতে দিচ্ছে না, পরীক্ষা থাকলে সেখানে বাঁধা দেওয়া হয়। তারপরও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা থেমে থাকেনি। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এসব বীর ছাত্রদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, আপনাদের স্বার্থ একটি তা হলো আপনারা গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে সর্বোচ্চ তৎপর রয়েছেন। যখন গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হবে সেদিন আপনারা বীর পুরুষ হিসাবে সম্মান পাবেন। খুব দ্রুতই সাংগঠনিক গতিশীলতা বৃদ্ধির জন্য আমরা শাখা, হল ও অন্যান্য কমিটির অনুমোদন দিবো এবং তদারকি করব।

সম্মেলনে শাখা ছাত্রদলের আহ্বায়ক সুলতান আহমদ রাহী বলেন, আপনারা আমাকে বীজ বপনের দায়িত্ব দিয়েছেন আমি তা বপন করেছি। আমি জানি কোন গাছের ফল ভালো। সুতরাং প্রতিটি বিভাগ ও হল থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্যেক পাতায়-পাতায় যেন ছাত্রদল স্থান পায় সে জন্য কারা কাজ করে যেতে পারবে তা আমি ভালো বলতে পারব। আমরা খুব শীঘ্রই রাবি ক্যাম্পাসটাকে স্লোগানে-স্লোগানে মুখরিত করতে চাই। আমরা একটি শক্তিশালী কমিটির অনুমোদন দিয়ে সাংগঠনিক গতিশীলতা ফিরিয়ে আনবো ইনশাআল্লাহ।

সম্মেলনে প্রধান বক্তার বক্তব্যে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দীন নাছির বলেন, ভাষা আন্দোলনের পর থেকে এখন পর্যন্ত সব আন্দোলন এই ছাত্রদল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় গত কয়েক বছর ধরে শাখা ছাত্রলীগ যেভাবে শিক্ষার্থীদের জীবন ঝুঁকিতে ফেলছে তা আপনারা সবাই জানেন। তারা ২১ সালে এক হিন্দু শিক্ষার্থীকে মারধর করে শিবির ট্যাগ দিয়েছে। তারা হলের খাবার চুরি করেছে। বুয়েটে আবরার হত্যা, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে এক হিন্দু শিক্ষার্থীকে হত্যা করেছে। সারা দেশে এমন ঘটনা ঘটে চলেছে তাদের দ্বারা। যেসব শিক্ষক শিক্ষার্থী ছাত্রলীগের এই কাজকে সমর্থন করছে তাদের নাম ইতিহাসে ঘৃনাক্ষরে লেখা থাকবে। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল সবসময় ন্যায় এবং মানবিক মূল্যবোধের রাজনীতি ও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা দিতে চায়‌। আমরা আশা করছি রাবি শাখা ছাত্রদল আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারের পতন ঘটাবে।

সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শ্যামল মালুমসহ শাখার সকল পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.