The Rising Campus
News Media
শুক্রবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩

বিবিসির প্রভাবশালী শীর্ষ ১০০ নারীর তালিকায় বাংলাদেশের সানজিদা

বাংলাদেশের মেয়ে সানজিদা ইসলাম ছোঁয়া বিবিসির তৈরি করা ২০২২ সালের বিশ্বে অনুপ্রেরণাদায়ী এবং প্রভাবশালী শীর্ষ ১০০ নারীর তালিকায় স্থান পেয়েছেন। তার গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের নান্দাইলের। কিশোরগঞ্জের গুরুদয়াল সরকারি কলেজে অনার্স ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী তিনি।

৬ ডিসেম্বর রোজ মঙ্গলবার বিবিসি মনোনীত ১০০ নারীকে নিয়ে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছেন। বিশ্বের রাজনীতি, শিক্ষা, সংস্কৃতি, ক্রীড়া, অধিকার আন্দোলন, স্বাস্থ্য ও বিজ্ঞান প্রভৃতি শাখায় এসব নারীকে নতুন তালিকায় স্থান দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে অ্যাক্টিভিজম ও অ্যাডভোকেসি শাখায় রয়েছে সানজিদা ইসলাম ছোঁয়ার নাম।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বে যেসব দেশে বাল্যবিয়ের হার সবচেয়ে বেশি তার মধ্যে বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য। বাল্যবিয়ে থেকে মেয়েদের কীভাবে রক্ষা করা যায়, সেই চেষ্টা করছেন সানজিদা ইসলাম ছোঁয়া।

২০১৯ সালে নান্দাইল পাইলট গার্লস হাইস্কুলে বিবিসি মিডিয়া অ্যাকশনের ‘হ্যালো চেক’ অনুষ্ঠানে বাল্যবিয়ের প্রভাব সম্পর্কে জানতে পারেন ছোঁয়া। তখন তিনি দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী, বয়স ১৬ বছর। এরপর এটি বন্ধে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। বাল্যবিয়ের ঘটনা কানে এলেই বন্ধু, শিক্ষক ও সহযোগীদের নিয়ে পুলিশকে জানান তিনি। এজন্য ‘ঘাসফড়িং’ নামে সংগঠনও প্রতিষ্ঠা করেছেন ছোঁয়া।

এ নিয়ে দশমবারের মতো বিশ্বের ১০০ জন অনুপ্রেরণাদায়ী ও প্রভাবশালী নারীর তালিকা প্রকাশ করেছে বিবিসি। চলতি বছরের মনোনয়ন তালিকার জন্য যোগ্য নারীদের মনোনীত করতে আগে নির্বাচিত ১০০ জন নারীর মতামত নিয়েছে বিবিসি।

ছোঁয়া গণমাধ্যমে বলেন, ‘আমি মনে করি, অল্প বয়সে বিয়ে করা খাঁচায় বন্দি জীবনের মতো। ময়মনসিংহে আমার আশেপাশে একসময় বছরে ৪০-৫০টির মতো বাল্যবিয়ের ঘটনার কথা জেনেছি। তবে এখন সেই সংখ্যা ২-৩টিতে নেমে এসেছে। বাল্যবিয়ে বন্ধে আমরা ঘাসফড়িং থেকে যেভাবে কাজ করে এসেছি তাতে শতভাগ না হলেও উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন ঘটাতে পেরেছি।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. উদ্যোক্তা ও সফলতার গল্প
  3. বিবিসির প্রভাবশালী শীর্ষ ১০০ নারীর তালিকায় বাংলাদেশের সানজিদা

বিবিসির প্রভাবশালী শীর্ষ ১০০ নারীর তালিকায় বাংলাদেশের সানজিদা

বাংলাদেশের মেয়ে সানজিদা ইসলাম ছোঁয়া বিবিসির তৈরি করা ২০২২ সালের বিশ্বে অনুপ্রেরণাদায়ী এবং প্রভাবশালী শীর্ষ ১০০ নারীর তালিকায় স্থান পেয়েছেন। তার গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের নান্দাইলের। কিশোরগঞ্জের গুরুদয়াল সরকারি কলেজে অনার্স ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী তিনি।

৬ ডিসেম্বর রোজ মঙ্গলবার বিবিসি মনোনীত ১০০ নারীকে নিয়ে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছেন। বিশ্বের রাজনীতি, শিক্ষা, সংস্কৃতি, ক্রীড়া, অধিকার আন্দোলন, স্বাস্থ্য ও বিজ্ঞান প্রভৃতি শাখায় এসব নারীকে নতুন তালিকায় স্থান দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে অ্যাক্টিভিজম ও অ্যাডভোকেসি শাখায় রয়েছে সানজিদা ইসলাম ছোঁয়ার নাম।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বে যেসব দেশে বাল্যবিয়ের হার সবচেয়ে বেশি তার মধ্যে বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য। বাল্যবিয়ে থেকে মেয়েদের কীভাবে রক্ষা করা যায়, সেই চেষ্টা করছেন সানজিদা ইসলাম ছোঁয়া।

২০১৯ সালে নান্দাইল পাইলট গার্লস হাইস্কুলে বিবিসি মিডিয়া অ্যাকশনের ‘হ্যালো চেক’ অনুষ্ঠানে বাল্যবিয়ের প্রভাব সম্পর্কে জানতে পারেন ছোঁয়া। তখন তিনি দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী, বয়স ১৬ বছর। এরপর এটি বন্ধে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। বাল্যবিয়ের ঘটনা কানে এলেই বন্ধু, শিক্ষক ও সহযোগীদের নিয়ে পুলিশকে জানান তিনি। এজন্য ‘ঘাসফড়িং’ নামে সংগঠনও প্রতিষ্ঠা করেছেন ছোঁয়া।

এ নিয়ে দশমবারের মতো বিশ্বের ১০০ জন অনুপ্রেরণাদায়ী ও প্রভাবশালী নারীর তালিকা প্রকাশ করেছে বিবিসি। চলতি বছরের মনোনয়ন তালিকার জন্য যোগ্য নারীদের মনোনীত করতে আগে নির্বাচিত ১০০ জন নারীর মতামত নিয়েছে বিবিসি।

ছোঁয়া গণমাধ্যমে বলেন, ‘আমি মনে করি, অল্প বয়সে বিয়ে করা খাঁচায় বন্দি জীবনের মতো। ময়মনসিংহে আমার আশেপাশে একসময় বছরে ৪০-৫০টির মতো বাল্যবিয়ের ঘটনার কথা জেনেছি। তবে এখন সেই সংখ্যা ২-৩টিতে নেমে এসেছে। বাল্যবিয়ে বন্ধে আমরা ঘাসফড়িং থেকে যেভাবে কাজ করে এসেছি তাতে শতভাগ না হলেও উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন ঘটাতে পেরেছি।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন