The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪

বিদেশে উচ্চশিক্ষা : সেরা ১০টি স্কলারশিপ সম্পর্কে জেনে রাখুন

বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণে স্কলারশিপ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। উচ্চশিক্ষা গ্রহণে বিদেমে পাড়ি জমাতে স্কলারশিপ হতে পারে আপনার জাদুর কাঠি। ফুল ফান্ডেড স্কলারশিপে সব কিছুই, যেমনঃ বসবাসের জন্য ভাতা, যাতায়াত ভাতা, এয়ার টিকিট ইত্যাদি অন্তর্ভুক্ত থাকে।

স্কলারশিপ পাওয়ার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের পছন্দের দেশগুলো হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জাপান, চীন, জার্মানি, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া এবং রাশিয়া। এইসকল দেশের সরকারি স্কলারশিপ সংক্রান্ত খোঁজখবর মিলবে তাদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটগুলোতে।

বিদেশে উচ্চশিক্ষা: ১০টি জনপ্রিয় স্কলারশিপ

১। ফুল ব্রাইট স্কলারশিপঃ যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ফুল ব্রাইট স্কলারশিপ বিশ্বের অন্যতম সন্মানজনক স্কলারশিপ প্রোগ্রাম। এই প্রোগ্রামের আওতায় ১৫৫টি দেশের ৪ হাজার শিক্ষার্থীকে স্কলারশিপ প্রদান করা হয়। বিজ্ঞান, কলা, মানবিক কিংবা প্রকৌশল বিদ্যসহ বিভিন্ন বিষয়ের জন্যই এই স্কলারশিপ পাওয়া যায়। এই স্কলারশিপের জন্য কোন শিক্ষার্থী নির্বাচিত হলে তার আসা-যাওয়ার বিমান ভাড়া, টিউশন ফি সহ যাবতীয় একাডেমিক ফি, থাকা-খাওয়া এবং ব্যক্তিগত খরচের জন্য মাসিক স্টাইপেন্ড, স্বাস্থ্য বীমা, ভ্রমণ ভাতা সহ ইত্যাদি পেয়ে থাকেন।

আবেদনের যোগ্যতা: ফুল ব্রাইট স্কলারশিপ পেতে আপনাকে বাংলাদেশের যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রথম শ্রেণীর স্নাতক ডিগ্রিধারী হতে হবে, ইউএসএর কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রী থাকা যাবে না, স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর বাংলাদেশের হতে হবে। কমপক্ষে দুই বছর কর্ম-অভিজ্ঞতা থাকা আবশ্যক।  IELTS এ ন্যূনতম ৭ অথবা TOEFL ন্যূনতম ৮০ স্কোর থাকতে হবে, সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে হবে।

বিস্তারিত জানতে পারবেন এই লিংকের মাধ্যমেঃ https://apply.iie.org/apply/?sr=5b5a74ae-fac9-4b69-a5cd-8e65e5225750

২। শেভেনিং স্কলারশিপ ও কমনওয়েলথ মাস্টার্স স্কলারশিপঃ  

এটি যুক্তরাজ্যভিত্তিক স্কলারশিপ প্রোগ্রাম। এই স্কলারশিপের আন্ডারে প্রতি বছর ১৪৪ দেশ থেকে ১৫০০ জন ছত্র-ছাত্রীদের পড়ার সুযোগ প্রদান করা হয়। এই স্কলারশিপের আওতায় ইংল্যান্ডে পড়াশোনর পাশাপাশি ২ লাখ টাকাও পাওয়া যায়। তবে এর জন্য প্রয়োজন হবে ২ বছরের কাজের অভিজ্ঞতা এবং পড়াশোনা শেষে ২ বছরের মধ্যে নিজ দেশে ফিরে আসার নিশ্বয়তা।

এই স্কলারশিপের আওতায় শিক্ষার্থী টিউশন ফি, মাসিক ভাতা, নিজ দেশ থেকে যুক্তরাজ্যে যাওয়া-আসার যাতায়াত ভাতা, একটি ভিসা আবেদনের খরচ, আগমন ভাতা, নিজ দেশে প্রস্থান ভাতা ইত্যাদি পাওয়া যায়। প্রতি বছর নভেম্বরের ৫ তারিখের মধ্যে শেভেনিং স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে হয়।

প্রতি বছর ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আপনাকে আবেদন করতে হবে এবং সকল সার্টিফিকেটসহ অন্যান্য কাগজ পত্রাদি পৌছে দিতে হবে ঢাকাস্থ ইউজিসি সদর দপ্তরে। এই স্কলারশিপ অত্যন্ত সম্মানজনক একটি প্রোগ্রাম। সুতরাং কম্পিটিশনটাও খুব বেশি এই প্রোগ্রামে যাবার জন্য।

শেভেনিং প্রোগ্রামে আবেদন করতে ব্রাউজ করুনঃ https://chevening.smartsimpleuk.com/s_Login.jspএছাড়া এই স্কলারশিপের প্রথমিক বাছাইপর্ব সম্পাদন করে ইউজিসি- তাই তাদের ওয়েবসাইটে http://www.ugc.gov.bd/ গিয়ে আপনি চাইলে আবেদন করতে পারবেন।

৩। DAAD স্কলারশিপঃ জার্মানীতে বিদেশী শিক্ষার্থীদের পড়ার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য আছে ডাড স্কলারশিপ। প্রতি বছর সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর মাসে এই স্কলারশিপের আবেদন চালু হয়। ড্যাড স্কলারশিপও অনেক বেশি সম্মানজনক।

বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েব সাইট http://www.moedu.gov.bd/ এ ড্যাড স্কলারশিপের যাবতীয় সকল তথ্য পাওয়া যাবে।

৪। ইরাসমুস মুন্ডুসঃ

ইউরোপ ভিত্তিক ইরাসমুস মুন্ডুস স্কলারশিপের আওতায় একাধিরক দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে চুক্তি থাকায় এই স্কলারশিপের আওতায় মাস্টার্স বা পিএইচডি কোর্সের শিক্ষার্থীরা কোর্স চলাকালীন সময়ে ২টি ভিন্ন ভিন্ন দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পেয়ে থাকেন। যারা ঘুরতে পছন্দ করেন এই স্কলারশিপ তাদের জন্য একের ভিতর দুই।

ইউরোপের এই স্কলারশিপ প্রোগ্রামে টিউশন ফি, লাইব্রেরি ফি, পরীক্ষা ফি, গবেষণা সংক্রান্ত ফি, বিমান খরচসহ জীবনযাত্রার অর্ধেক খরচ প্রদান করা হয়। এই প্রোগ্রামের আওতায় ১৫০টি বিষয়ের উপর স্কলারশিপ পাওয়া যায়।

বিস্তারিত জানতে ব্রাউজ করুন এই ওয়েব সাইটঃ

https://eacea.ec.europa.eu/erasmus-plus/emjmd-catalogue_en (মাস্টার্স প্রোগ্রাম)

https://ec.europa.eu/research/mariecurieactions/ (পিএইচডি প্রোগ্রাম)

৫। মনবুকাগাকুশো বা মেক্সট বৃত্তি (জাপান): জাপানের মনবুকাগাকুশো বা মেক্সট বৃত্তির আওতায় বাংলাদেশের স্নাতক, স্নাতকোত্তর ও পিএইচডি প্রোগ্রামে মোট ২০০ শিক্ষার্থী সুযোগ পেয়ে থাকে। এই স্কলারশিপ প্রোগ্রামের সার্কুলার প্রতি বছরের মার্চের শেষে বা এপ্রিলের মাঝামাঝি প্রকাশ করা হয়ে থাকে। তাই বছরের শুরুতেই উচিত প্রফেসর খোঁজা।

(https://en.wikipedia.org/wiki/List_of_universities_in_Japan)  এই লিংকে আপনি জাপানের বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা পাওয়া যাবে। এই লিস্ট থেকে পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয় এবং প্রফেসর খুঁজে এপ্লাই করে ফেলতে পারবেন এই স্কলারশিপে। এছাড়া এই প্রোগ্রামের সার্কুলার পাওয়া যাবে এই লিংকেঃ http://www.moedu.gov.bd

৬। VLIR-UOS স্কলারশিপ: এই স্কলারশিপ বেলজিয়াম সরকারের একটি প্রোগ্রাম। এই প্রোগ্রামের আওতায় হেলথ ইনস্যুরেন্স, টিউশন ফি, যাতায়াতের সব খরচ প্রদান করা হয়ে থাকে। এই প্রোগ্রামের সার্কুলার পাওয়া যাবে এই বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের লিংকেঃ http://www.moedu.gov.bd/

৭। তুর্কি বুর্সলারি বৃত্তি : তুরস্ক সরকার প্রদেয় তুর্ক বুর্সলারি বৃত্তির জন্য বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে আবেদন করতে হয়। এই স্কলারশিপের মাধ্যমে আপনিও পেতে পারেন আপনার পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ।

আপনার প্রোফাইল যাদি তাদের নজরে আসে আর পছন্দ হয়ে যায় তাহলে ডাক পেয়ে যাবেন তুরস্কের এম্বেসীতে ইন্টার্ভিউয়ের জন্য। এই প্রোগ্রামের আওতায় আপনি টিউশন ফীর সাথে মাসিক ভাতা পাবেন ৭০০ লিরা করে

বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের নিম্নোক্ত ওয়েবসাইট এ সার্কুলার পাওয়া যাবেঃ http://www.moedu.gov.bd/

৮। সিএসসি স্কলারশিপ: চীনের ২৫০ এর বেশি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা, প্রকৌশল, বিজ্ঞান, কৃষি সহ অন্যান্য বিষয়ে পড়ার জন্য চাইনিজ সরকার এই  বৃত্তি প্রদান করে থাকে। তবে চাইনিজ ভাষা জানা থাকলে এই স্কলারশিপ পেতে বেশি সুবিধা হয়। আর না থাকলে কর্তৃপক্ষ চাইনিজ ভাষার উপর এক বছরের কোর্স করিয়ে নেবে কারণ চীনে পড়াশুনার ভাষাই হল চাইনিজ।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েব পেজে (http://www.moedu.gov.bd/) এই স্কলারশিপের বিস্তারিত পেয়ে ‍যাবেন।

৯। রাশিয়ান সরকারি বৃত্তি: রাশিয়া সরকার প্রদেয় এই বৃত্তি প্রোগ্রামে আবেদন করার জন্য আপনাকে রাশিয়ান ভাষা জানা জরুরী আর না জানলে আপনাকে রাশিয়ায় গিয়ে ৭ মাসের ভাষার কোর্স করতে হবে।

রাশিয়ান সরকারের এই স্কলারশিপ প্রোগ্রামের আওতায় প্রত্যেকে টিউশন ফি, সাবস্থান, ভিসার জন্য খরচ পেয়ে থাকেন। তবে বিমান ভাড়া বা খাবারের খরচ এর আওতাভূক্ত নয়। রাশিয়ায় যেয়ে স্বাস্থ্যবীমাটাও আপনার পকেটের টাকায় করতে হবে। তবে স্কলারশিপ প্রোগ্রামের আওতায় আপনি প্রতি মাসে ১৫০-২৫০ ডলার করে পাবেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েব পেজে (http://www.moedu.gov.bd/) এই স্কলারশিপের বিস্তারিত পেয়ে ‍যাবেন।

১০। কেজিএসপি স্কলারশিপ: কোরিয়ান এই সরকারি বৃত্তি পেতে আপনাকে অবশ্যই কোরিয়ান ভাষা জানা থাকতে হবে। কোরিয়ার এই স্কলারশিপ পেতে  IELTS এর কোন সহায়তা করবে না। আর সকল পরীক্ষায় আপনাকে ৮০% মার্ক্স পেয়ে আসতে হবে। কোরিয়ান স্কলারশিপ কেজিএসপি সম্পর্কে খোঁজে পেতে নভেম্বর থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত চোখ রাখুন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েব পেজে (http://www.moedu.gov.bd/)

বিভিন্ন দেশের সরকারি স্কলারশিপের ওয়েবসাইট:

দেশ / স্থানের নাম ওয়েবসাইট
যুক্তরাষ্ট্র www.dol.gov
অস্ট্রেলিয়া https://www.deakin.edu.au/
ইংল্যান্ড www.ukba.homeoffice.gov.uk
কানাডা
http://www.labour.gov.on.ca/
http://www.huembwas.org/
কোরিয়া http://www.niied.go.kr/eng/contents.do?contentsNo=78&menuNo=349
তুরস্ক https://tbbs.turkiyeburslari.gov.tr/
রাশিয়া http://www.labour.gov.on.ca/
সৌদি আরব http://www.moi.gov.sa/
সিঙ্গাপুর http://www.mom.gov.sg/
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. বিদেশি স্কলারশিপ
  3. বিদেশে উচ্চশিক্ষা : সেরা ১০টি স্কলারশিপ সম্পর্কে জেনে রাখুন

বিদেশে উচ্চশিক্ষা : সেরা ১০টি স্কলারশিপ সম্পর্কে জেনে রাখুন

বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণে স্কলারশিপ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। উচ্চশিক্ষা গ্রহণে বিদেমে পাড়ি জমাতে স্কলারশিপ হতে পারে আপনার জাদুর কাঠি। ফুল ফান্ডেড স্কলারশিপে সব কিছুই, যেমনঃ বসবাসের জন্য ভাতা, যাতায়াত ভাতা, এয়ার টিকিট ইত্যাদি অন্তর্ভুক্ত থাকে।

স্কলারশিপ পাওয়ার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের পছন্দের দেশগুলো হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জাপান, চীন, জার্মানি, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া এবং রাশিয়া। এইসকল দেশের সরকারি স্কলারশিপ সংক্রান্ত খোঁজখবর মিলবে তাদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটগুলোতে।

বিদেশে উচ্চশিক্ষা: ১০টি জনপ্রিয় স্কলারশিপ

১। ফুল ব্রাইট স্কলারশিপঃ যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ফুল ব্রাইট স্কলারশিপ বিশ্বের অন্যতম সন্মানজনক স্কলারশিপ প্রোগ্রাম। এই প্রোগ্রামের আওতায় ১৫৫টি দেশের ৪ হাজার শিক্ষার্থীকে স্কলারশিপ প্রদান করা হয়। বিজ্ঞান, কলা, মানবিক কিংবা প্রকৌশল বিদ্যসহ বিভিন্ন বিষয়ের জন্যই এই স্কলারশিপ পাওয়া যায়। এই স্কলারশিপের জন্য কোন শিক্ষার্থী নির্বাচিত হলে তার আসা-যাওয়ার বিমান ভাড়া, টিউশন ফি সহ যাবতীয় একাডেমিক ফি, থাকা-খাওয়া এবং ব্যক্তিগত খরচের জন্য মাসিক স্টাইপেন্ড, স্বাস্থ্য বীমা, ভ্রমণ ভাতা সহ ইত্যাদি পেয়ে থাকেন।

আবেদনের যোগ্যতা: ফুল ব্রাইট স্কলারশিপ পেতে আপনাকে বাংলাদেশের যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রথম শ্রেণীর স্নাতক ডিগ্রিধারী হতে হবে, ইউএসএর কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রী থাকা যাবে না, স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর বাংলাদেশের হতে হবে। কমপক্ষে দুই বছর কর্ম-অভিজ্ঞতা থাকা আবশ্যক।  IELTS এ ন্যূনতম ৭ অথবা TOEFL ন্যূনতম ৮০ স্কোর থাকতে হবে, সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে হবে।

বিস্তারিত জানতে পারবেন এই লিংকের মাধ্যমেঃ https://apply.iie.org/apply/?sr=5b5a74ae-fac9-4b69-a5cd-8e65e5225750

২। শেভেনিং স্কলারশিপ ও কমনওয়েলথ মাস্টার্স স্কলারশিপঃ  

এটি যুক্তরাজ্যভিত্তিক স্কলারশিপ প্রোগ্রাম। এই স্কলারশিপের আন্ডারে প্রতি বছর ১৪৪ দেশ থেকে ১৫০০ জন ছত্র-ছাত্রীদের পড়ার সুযোগ প্রদান করা হয়। এই স্কলারশিপের আওতায় ইংল্যান্ডে পড়াশোনর পাশাপাশি ২ লাখ টাকাও পাওয়া যায়। তবে এর জন্য প্রয়োজন হবে ২ বছরের কাজের অভিজ্ঞতা এবং পড়াশোনা শেষে ২ বছরের মধ্যে নিজ দেশে ফিরে আসার নিশ্বয়তা।

এই স্কলারশিপের আওতায় শিক্ষার্থী টিউশন ফি, মাসিক ভাতা, নিজ দেশ থেকে যুক্তরাজ্যে যাওয়া-আসার যাতায়াত ভাতা, একটি ভিসা আবেদনের খরচ, আগমন ভাতা, নিজ দেশে প্রস্থান ভাতা ইত্যাদি পাওয়া যায়। প্রতি বছর নভেম্বরের ৫ তারিখের মধ্যে শেভেনিং স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে হয়।

প্রতি বছর ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আপনাকে আবেদন করতে হবে এবং সকল সার্টিফিকেটসহ অন্যান্য কাগজ পত্রাদি পৌছে দিতে হবে ঢাকাস্থ ইউজিসি সদর দপ্তরে। এই স্কলারশিপ অত্যন্ত সম্মানজনক একটি প্রোগ্রাম। সুতরাং কম্পিটিশনটাও খুব বেশি এই প্রোগ্রামে যাবার জন্য।

শেভেনিং প্রোগ্রামে আবেদন করতে ব্রাউজ করুনঃ https://chevening.smartsimpleuk.com/s_Login.jspএছাড়া এই স্কলারশিপের প্রথমিক বাছাইপর্ব সম্পাদন করে ইউজিসি- তাই তাদের ওয়েবসাইটে http://www.ugc.gov.bd/ গিয়ে আপনি চাইলে আবেদন করতে পারবেন।

৩। DAAD স্কলারশিপঃ জার্মানীতে বিদেশী শিক্ষার্থীদের পড়ার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য আছে ডাড স্কলারশিপ। প্রতি বছর সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর মাসে এই স্কলারশিপের আবেদন চালু হয়। ড্যাড স্কলারশিপও অনেক বেশি সম্মানজনক।

বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েব সাইট http://www.moedu.gov.bd/ এ ড্যাড স্কলারশিপের যাবতীয় সকল তথ্য পাওয়া যাবে।

৪। ইরাসমুস মুন্ডুসঃ

ইউরোপ ভিত্তিক ইরাসমুস মুন্ডুস স্কলারশিপের আওতায় একাধিরক দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে চুক্তি থাকায় এই স্কলারশিপের আওতায় মাস্টার্স বা পিএইচডি কোর্সের শিক্ষার্থীরা কোর্স চলাকালীন সময়ে ২টি ভিন্ন ভিন্ন দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পেয়ে থাকেন। যারা ঘুরতে পছন্দ করেন এই স্কলারশিপ তাদের জন্য একের ভিতর দুই।

ইউরোপের এই স্কলারশিপ প্রোগ্রামে টিউশন ফি, লাইব্রেরি ফি, পরীক্ষা ফি, গবেষণা সংক্রান্ত ফি, বিমান খরচসহ জীবনযাত্রার অর্ধেক খরচ প্রদান করা হয়। এই প্রোগ্রামের আওতায় ১৫০টি বিষয়ের উপর স্কলারশিপ পাওয়া যায়।

বিস্তারিত জানতে ব্রাউজ করুন এই ওয়েব সাইটঃ

https://eacea.ec.europa.eu/erasmus-plus/emjmd-catalogue_en (মাস্টার্স প্রোগ্রাম)

https://ec.europa.eu/research/mariecurieactions/ (পিএইচডি প্রোগ্রাম)

৫। মনবুকাগাকুশো বা মেক্সট বৃত্তি (জাপান): জাপানের মনবুকাগাকুশো বা মেক্সট বৃত্তির আওতায় বাংলাদেশের স্নাতক, স্নাতকোত্তর ও পিএইচডি প্রোগ্রামে মোট ২০০ শিক্ষার্থী সুযোগ পেয়ে থাকে। এই স্কলারশিপ প্রোগ্রামের সার্কুলার প্রতি বছরের মার্চের শেষে বা এপ্রিলের মাঝামাঝি প্রকাশ করা হয়ে থাকে। তাই বছরের শুরুতেই উচিত প্রফেসর খোঁজা।

(https://en.wikipedia.org/wiki/List_of_universities_in_Japan)  এই লিংকে আপনি জাপানের বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা পাওয়া যাবে। এই লিস্ট থেকে পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয় এবং প্রফেসর খুঁজে এপ্লাই করে ফেলতে পারবেন এই স্কলারশিপে। এছাড়া এই প্রোগ্রামের সার্কুলার পাওয়া যাবে এই লিংকেঃ http://www.moedu.gov.bd

৬। VLIR-UOS স্কলারশিপ: এই স্কলারশিপ বেলজিয়াম সরকারের একটি প্রোগ্রাম। এই প্রোগ্রামের আওতায় হেলথ ইনস্যুরেন্স, টিউশন ফি, যাতায়াতের সব খরচ প্রদান করা হয়ে থাকে। এই প্রোগ্রামের সার্কুলার পাওয়া যাবে এই বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের লিংকেঃ http://www.moedu.gov.bd/

৭। তুর্কি বুর্সলারি বৃত্তি : তুরস্ক সরকার প্রদেয় তুর্ক বুর্সলারি বৃত্তির জন্য বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে আবেদন করতে হয়। এই স্কলারশিপের মাধ্যমে আপনিও পেতে পারেন আপনার পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ।

আপনার প্রোফাইল যাদি তাদের নজরে আসে আর পছন্দ হয়ে যায় তাহলে ডাক পেয়ে যাবেন তুরস্কের এম্বেসীতে ইন্টার্ভিউয়ের জন্য। এই প্রোগ্রামের আওতায় আপনি টিউশন ফীর সাথে মাসিক ভাতা পাবেন ৭০০ লিরা করে

বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের নিম্নোক্ত ওয়েবসাইট এ সার্কুলার পাওয়া যাবেঃ http://www.moedu.gov.bd/

৮। সিএসসি স্কলারশিপ: চীনের ২৫০ এর বেশি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা, প্রকৌশল, বিজ্ঞান, কৃষি সহ অন্যান্য বিষয়ে পড়ার জন্য চাইনিজ সরকার এই  বৃত্তি প্রদান করে থাকে। তবে চাইনিজ ভাষা জানা থাকলে এই স্কলারশিপ পেতে বেশি সুবিধা হয়। আর না থাকলে কর্তৃপক্ষ চাইনিজ ভাষার উপর এক বছরের কোর্স করিয়ে নেবে কারণ চীনে পড়াশুনার ভাষাই হল চাইনিজ।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েব পেজে (http://www.moedu.gov.bd/) এই স্কলারশিপের বিস্তারিত পেয়ে ‍যাবেন।

৯। রাশিয়ান সরকারি বৃত্তি: রাশিয়া সরকার প্রদেয় এই বৃত্তি প্রোগ্রামে আবেদন করার জন্য আপনাকে রাশিয়ান ভাষা জানা জরুরী আর না জানলে আপনাকে রাশিয়ায় গিয়ে ৭ মাসের ভাষার কোর্স করতে হবে।

রাশিয়ান সরকারের এই স্কলারশিপ প্রোগ্রামের আওতায় প্রত্যেকে টিউশন ফি, সাবস্থান, ভিসার জন্য খরচ পেয়ে থাকেন। তবে বিমান ভাড়া বা খাবারের খরচ এর আওতাভূক্ত নয়। রাশিয়ায় যেয়ে স্বাস্থ্যবীমাটাও আপনার পকেটের টাকায় করতে হবে। তবে স্কলারশিপ প্রোগ্রামের আওতায় আপনি প্রতি মাসে ১৫০-২৫০ ডলার করে পাবেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েব পেজে (http://www.moedu.gov.bd/) এই স্কলারশিপের বিস্তারিত পেয়ে ‍যাবেন।

১০। কেজিএসপি স্কলারশিপ: কোরিয়ান এই সরকারি বৃত্তি পেতে আপনাকে অবশ্যই কোরিয়ান ভাষা জানা থাকতে হবে। কোরিয়ার এই স্কলারশিপ পেতে  IELTS এর কোন সহায়তা করবে না। আর সকল পরীক্ষায় আপনাকে ৮০% মার্ক্স পেয়ে আসতে হবে। কোরিয়ান স্কলারশিপ কেজিএসপি সম্পর্কে খোঁজে পেতে নভেম্বর থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত চোখ রাখুন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েব পেজে (http://www.moedu.gov.bd/)

বিভিন্ন দেশের সরকারি স্কলারশিপের ওয়েবসাইট:

দেশ / স্থানের নাম ওয়েবসাইট
যুক্তরাষ্ট্র www.dol.gov
অস্ট্রেলিয়া https://www.deakin.edu.au/
ইংল্যান্ড www.ukba.homeoffice.gov.uk
কানাডা
http://www.labour.gov.on.ca/
http://www.huembwas.org/
কোরিয়া http://www.niied.go.kr/eng/contents.do?contentsNo=78&menuNo=349
তুরস্ক https://tbbs.turkiyeburslari.gov.tr/
রাশিয়া http://www.labour.gov.on.ca/
সৌদি আরব http://www.moi.gov.sa/
সিঙ্গাপুর http://www.mom.gov.sg/

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন