The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
বৃহস্পতিবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২৩

বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী হয়েও পরীক্ষা দিতে হচ্ছে মানবিক বিভাগে

চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভুলে ভোগান্তির সম্মুখীন হয়েছেন পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ার এক পরীক্ষার্থী। বুড়াবুড়ী মির্জা গোলাম হাফিজ উচ্চ বিদ্যালয়ের মো. মুনির উজ্জামান পড়াশোনা করেছেন বিজ্ঞান বিভাগ থেকে। কিন্তু পরীক্ষার প্রবেশপত্রে জানতে পারেন বিজ্ঞান বিভাগের জায়গায় তার মানবিক বিভাগে ফরম ফিলাপ হয়েছে। উপায়ন্তর না পেয়ে বিজ্ঞান বিভাগে পড়াশোনা করলেও পরীক্ষা দিতে হচ্ছে মানবিক বিভাগে।

বিষয়টি মেনে নিতে পারছে না পরীক্ষার্থী ও তার পরিবার। এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভুগছেন শিক্ষার্থী মুনির উজ্জামান। মুনির উজ্জামান উপজেলার বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া গ্রামের বাবুল হোসেনের ছেলে।

পরীক্ষার্থীর মা শাহিদা বেগম সাংবাদিকদের জানান, ছেলে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে লেখাপড়া করেছে। কিন্তু স্কুলের শিক্ষকদের ভুলের কারণে ছেলেকে মানবিকে পরীক্ষা দিতে হচ্ছে। সে তো মানবিকের কোনো বিষয় পড়েনি। বিষয়টি সমাধানের জন্য স্কুলে গিয়েছিলাম। তারা আমাদের কাছ থেকে দুই ধাপে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত নিয়েছে।

আজ বুড়াবুড়ী মির্জা গোলাম হাফিজ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মোছা. জাহানাহারা বেগম জানান, মুনির উজ্জামানের বিষয়টি সমাধান করে আনা হয়েছে। এখন সে যে বিভাগ থেকে পড়েছে, সে বিভাগের বিষয়েই পরীক্ষা দিতে পারবে। তবে বিভাগ সংশোধনের নামে যে টাকা নেওয়ার অভিযোগ করা হচ্ছে, তা ঠিক নয়।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. পরীক্ষা ও ফালাফল
  3. বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী হয়েও পরীক্ষা দিতে হচ্ছে মানবিক বিভাগে

বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী হয়েও পরীক্ষা দিতে হচ্ছে মানবিক বিভাগে

চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভুলে ভোগান্তির সম্মুখীন হয়েছেন পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ার এক পরীক্ষার্থী। বুড়াবুড়ী মির্জা গোলাম হাফিজ উচ্চ বিদ্যালয়ের মো. মুনির উজ্জামান পড়াশোনা করেছেন বিজ্ঞান বিভাগ থেকে। কিন্তু পরীক্ষার প্রবেশপত্রে জানতে পারেন বিজ্ঞান বিভাগের জায়গায় তার মানবিক বিভাগে ফরম ফিলাপ হয়েছে। উপায়ন্তর না পেয়ে বিজ্ঞান বিভাগে পড়াশোনা করলেও পরীক্ষা দিতে হচ্ছে মানবিক বিভাগে।

বিষয়টি মেনে নিতে পারছে না পরীক্ষার্থী ও তার পরিবার। এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভুগছেন শিক্ষার্থী মুনির উজ্জামান। মুনির উজ্জামান উপজেলার বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া গ্রামের বাবুল হোসেনের ছেলে।

পরীক্ষার্থীর মা শাহিদা বেগম সাংবাদিকদের জানান, ছেলে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে লেখাপড়া করেছে। কিন্তু স্কুলের শিক্ষকদের ভুলের কারণে ছেলেকে মানবিকে পরীক্ষা দিতে হচ্ছে। সে তো মানবিকের কোনো বিষয় পড়েনি। বিষয়টি সমাধানের জন্য স্কুলে গিয়েছিলাম। তারা আমাদের কাছ থেকে দুই ধাপে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত নিয়েছে।

আজ বুড়াবুড়ী মির্জা গোলাম হাফিজ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মোছা. জাহানাহারা বেগম জানান, মুনির উজ্জামানের বিষয়টি সমাধান করে আনা হয়েছে। এখন সে যে বিভাগ থেকে পড়েছে, সে বিভাগের বিষয়েই পরীক্ষা দিতে পারবে। তবে বিভাগ সংশোধনের নামে যে টাকা নেওয়ার অভিযোগ করা হচ্ছে, তা ঠিক নয়।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন