The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪

বাকৃবিতে সাংবাদিকদের ৮ দিনব্যাপি প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী

বাকৃবি প্রতিনিধি: বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) কর্মরত সাংবাদিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য আট দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। ‘বিশ্বব্যাপী আর্থিক সংকট এবং পরিবেশ বিষয়ক সাংবাদিকতা’ শীর্ষক কর্মশালায় বাকৃবিতে কর্মরত বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক ও অনলাইন নিউজ পোর্টালের ১৭ জন সাংবাদিক এবং ২ জন বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ বিভাগের কর্মকর্তা অংশ নেন। প্রশিক্ষণ কর্মশালাটির আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারডিসিপ্লিনারি ইনস্টিটিউট ফর ফুড সিকিউরিটি (আইআইএফএস)।

সোমবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ নজরুল ইসলাম সম্মেলন কক্ষে প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠিত হয়।

সমাপনী অনুষ্ঠানে বাকৃবি সাংবাদিক সমিতির ‘অনুরণন’ নামক একটি স্মরণিকার মোড়ক ‍উন্মোচন করেন বাকৃবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান। এসময় প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে ক্রেস্ট ও সনদপত্র বিতরণ করেন বাকৃবি উপাচার্য।

আইআইএফএসের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. এনামুল হকের সভাপতিত্বে ও কোর্স কো-অর্ডিনেটর ও আইআইএফএসের সহযোগী পরিচালক ড. রাখী চক্রবর্ত্তীর সঞ্চালনায় সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. খান মো. সাইফুল ইসলাম, বাকৃবি রিসার্চ সিস্টেমের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. জয়নাল আবেদীন, বাকৃবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আসলাম আলী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাকৃবি উপাচার্য বলেন, ক্যাম্পাসের সবচেয়ে সুগঠিত সংগঠন বাকৃবি সাংবাদিক সমিতি। বাকৃবিতে কর্মরত সাংবাদিকেরা বস্তুনিষ্ঠতা ও আন্তরিকতার সাথে প্রতিনিয়ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অর্জন জাতির সামনে তুলে ধরছে। সাংবাদিকদের লেখনীর মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের মান মর্যাদা দিন দিন আরও উপরে উঠছে। সাংবাদিকরাই পারে একটি বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশ্বের দরবারে সম্মানের সহিত তুলে ধরতে।

তিনি আরও বলেন, ৮ দিন ব্যাপি এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সাংবাদিকেরা জ্ঞান ও কর্মদক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে তাদের স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনায় আরও বেশি সুদক্ষ হয় উঠবে। এছাড়াও পরিবর্তনশীল পৃথিবীর ভবিষ্যৎ কৃষির মানোন্নয়নে নিজ নিজ অবস্থান থেকে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. ক্যাম্পাস
  3. বাকৃবিতে সাংবাদিকদের ৮ দিনব্যাপি প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী

বাকৃবিতে সাংবাদিকদের ৮ দিনব্যাপি প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী

বাকৃবি প্রতিনিধি: বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) কর্মরত সাংবাদিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য আট দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। ‘বিশ্বব্যাপী আর্থিক সংকট এবং পরিবেশ বিষয়ক সাংবাদিকতা’ শীর্ষক কর্মশালায় বাকৃবিতে কর্মরত বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক ও অনলাইন নিউজ পোর্টালের ১৭ জন সাংবাদিক এবং ২ জন বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ বিভাগের কর্মকর্তা অংশ নেন। প্রশিক্ষণ কর্মশালাটির আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারডিসিপ্লিনারি ইনস্টিটিউট ফর ফুড সিকিউরিটি (আইআইএফএস)।

সোমবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ নজরুল ইসলাম সম্মেলন কক্ষে প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠিত হয়।

সমাপনী অনুষ্ঠানে বাকৃবি সাংবাদিক সমিতির ‘অনুরণন’ নামক একটি স্মরণিকার মোড়ক ‍উন্মোচন করেন বাকৃবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান। এসময় প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে ক্রেস্ট ও সনদপত্র বিতরণ করেন বাকৃবি উপাচার্য।

আইআইএফএসের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. এনামুল হকের সভাপতিত্বে ও কোর্স কো-অর্ডিনেটর ও আইআইএফএসের সহযোগী পরিচালক ড. রাখী চক্রবর্ত্তীর সঞ্চালনায় সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. খান মো. সাইফুল ইসলাম, বাকৃবি রিসার্চ সিস্টেমের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. জয়নাল আবেদীন, বাকৃবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আসলাম আলী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাকৃবি উপাচার্য বলেন, ক্যাম্পাসের সবচেয়ে সুগঠিত সংগঠন বাকৃবি সাংবাদিক সমিতি। বাকৃবিতে কর্মরত সাংবাদিকেরা বস্তুনিষ্ঠতা ও আন্তরিকতার সাথে প্রতিনিয়ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অর্জন জাতির সামনে তুলে ধরছে। সাংবাদিকদের লেখনীর মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের মান মর্যাদা দিন দিন আরও উপরে উঠছে। সাংবাদিকরাই পারে একটি বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশ্বের দরবারে সম্মানের সহিত তুলে ধরতে।

তিনি আরও বলেন, ৮ দিন ব্যাপি এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সাংবাদিকেরা জ্ঞান ও কর্মদক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে তাদের স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনায় আরও বেশি সুদক্ষ হয় উঠবে। এছাড়াও পরিবর্তনশীল পৃথিবীর ভবিষ্যৎ কৃষির মানোন্নয়নে নিজ নিজ অবস্থান থেকে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন