The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
সোমবার, ১১ই ডিসেম্বর, ২০২৩

বছরের প্রথম প্রান্তিকে বৈশ্বিক স্মার্টফোন রপ্তানিতে আবারও শীর্ষে স্যামসাং

২০২৩ সালের প্রথম প্রান্তিকে বৈশ্বিক স্মার্টফোন রপ্তানিতে ২২ শতাংশ হিস্যা নিয়ে আবারও শীর্ষস্থান অর্জন করেছে স্যামসাং। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি উল্লেখিত সময়ে ৬.০৬০ কোটি ইউনিট স্মার্টফোন বিক্রি করেছে। স্যামসাংয়ের ফ্ল্যাগশিপ এস সিরিজ ও ‘অসাম’ এ সিরিজসহ প্রতিষ্ঠানটির শক্তিশালী ও উদ্ভাবনী ডিভাইসই বৈশ্বিক স্মার্টফোন রপ্তানিতে এর শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।

প্রতিষ্ঠানটির এ সফলতার পেছনে বেশ কয়েকটি বিষয় ভূমিকা পালন করেছে, যার মধ্যে রয়েছে: শক্তিশালী সাপ্লাই চেইন ব্যবস্থাপনা এবং সাপ্লাই ও বাজার চাহিদার ভারসাম্যপূর্ণ অবস্থা। এছাড়াও, কিছু দেশে গ্যালাক্সি এস২৩ এর বিক্রি উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বিক্রি বৃদ্ধি পেয়েছে, যা স্যামসাংয়ের সাম্প্রতিক এ সফলতা অর্জনে ভূমিকা রেখেছে।

পাশাপাশি, নিজেদের অসাম গ্যালাক্সি এ সিরিজের মাধ্যমে মিড-রেঞ্জ সেগমেন্টে নিজেদের নেতৃস্থানীয় ভূমিকা ধরে রেখেছে স্যামসাং। অসাম গ্যালাক্সি এ সিরিজ স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের সাশ্রয়ী মূল্যে ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইসের পারফরমেন্স দিয়েছে।

কোভিড-১৯ এর বৈশ্বিক মহামারির শুরুতে পণ্যের ক্রমবর্ধ্মান মূল্য বৃদ্ধি ও চাহিদার পড়তির কারণে বৈশ্বিকভাবে স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলোর রপ্তানিতে মন্দা দেখা দেয়। বিগত পাঁচ বছর ধরে বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজার ক্রমান্বয়ে হ্রাস পাচ্ছে। এক্ষেত্রে, স্যামসাং এর অবস্থান বিপরীত। বৈশ্বিক বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ক্যানালিসের তথ্য অনুযায়ী, শীর্ষস্থানীয় একমাত্র স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্যামসাং প্রান্তিক প্রতি নিজেদের অবস্থার উন্নতি নিশ্চিত করেছে এবং বৈশ্বিকভাবে স্মার্টফোন রপ্তানিতে শীর্ষ অবস্থানে ফিরে এসেছে; যা ক্রেতাদের কাছে প্রাসঙ্গিক থাকতে উদ্ভাবন ও অনন্যতা নিশ্চিতে স্যামসাংয়ের দৃঢ় অঙ্গীকারের প্রতিফলন।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. অর্থ ও বাণিজ্য
  3. বছরের প্রথম প্রান্তিকে বৈশ্বিক স্মার্টফোন রপ্তানিতে আবারও শীর্ষে স্যামসাং

বছরের প্রথম প্রান্তিকে বৈশ্বিক স্মার্টফোন রপ্তানিতে আবারও শীর্ষে স্যামসাং

২০২৩ সালের প্রথম প্রান্তিকে বৈশ্বিক স্মার্টফোন রপ্তানিতে ২২ শতাংশ হিস্যা নিয়ে আবারও শীর্ষস্থান অর্জন করেছে স্যামসাং। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি উল্লেখিত সময়ে ৬.০৬০ কোটি ইউনিট স্মার্টফোন বিক্রি করেছে। স্যামসাংয়ের ফ্ল্যাগশিপ এস সিরিজ ও ‘অসাম’ এ সিরিজসহ প্রতিষ্ঠানটির শক্তিশালী ও উদ্ভাবনী ডিভাইসই বৈশ্বিক স্মার্টফোন রপ্তানিতে এর শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।

প্রতিষ্ঠানটির এ সফলতার পেছনে বেশ কয়েকটি বিষয় ভূমিকা পালন করেছে, যার মধ্যে রয়েছে: শক্তিশালী সাপ্লাই চেইন ব্যবস্থাপনা এবং সাপ্লাই ও বাজার চাহিদার ভারসাম্যপূর্ণ অবস্থা। এছাড়াও, কিছু দেশে গ্যালাক্সি এস২৩ এর বিক্রি উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বিক্রি বৃদ্ধি পেয়েছে, যা স্যামসাংয়ের সাম্প্রতিক এ সফলতা অর্জনে ভূমিকা রেখেছে।

পাশাপাশি, নিজেদের অসাম গ্যালাক্সি এ সিরিজের মাধ্যমে মিড-রেঞ্জ সেগমেন্টে নিজেদের নেতৃস্থানীয় ভূমিকা ধরে রেখেছে স্যামসাং। অসাম গ্যালাক্সি এ সিরিজ স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের সাশ্রয়ী মূল্যে ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইসের পারফরমেন্স দিয়েছে।

কোভিড-১৯ এর বৈশ্বিক মহামারির শুরুতে পণ্যের ক্রমবর্ধ্মান মূল্য বৃদ্ধি ও চাহিদার পড়তির কারণে বৈশ্বিকভাবে স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলোর রপ্তানিতে মন্দা দেখা দেয়। বিগত পাঁচ বছর ধরে বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজার ক্রমান্বয়ে হ্রাস পাচ্ছে। এক্ষেত্রে, স্যামসাং এর অবস্থান বিপরীত। বৈশ্বিক বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ক্যানালিসের তথ্য অনুযায়ী, শীর্ষস্থানীয় একমাত্র স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্যামসাং প্রান্তিক প্রতি নিজেদের অবস্থার উন্নতি নিশ্চিত করেছে এবং বৈশ্বিকভাবে স্মার্টফোন রপ্তানিতে শীর্ষ অবস্থানে ফিরে এসেছে; যা ক্রেতাদের কাছে প্রাসঙ্গিক থাকতে উদ্ভাবন ও অনন্যতা নিশ্চিতে স্যামসাংয়ের দৃঢ় অঙ্গীকারের প্রতিফলন।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন