The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
রবিবার, ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪

যুবকের পেট থেকে বের করা হলো ১৫টি কলম

সিরাজগঞ্জ জেলার শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আব্দুল মোতালেব (৩৫) নামের এক যুবকের পেট থেকে অস্ত্রোপচার করে ১৫টি কলম বের করেছে চিকিৎসকরা। চিকিৎসকরা বলছেন ১৫টি কলম খেয়ে ফেলা ওই যুবক একজন মানসিক রোগী।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) সিরাজগঞ্জ শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারে অ্যান্ডোস্কপির মাধ্যমে ১৫টি কলম বের করে আনেন হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের প্রধান ডা. জাহিদুল ইসলাম, কনসালট্যান্ট ডা. আমিনুল ইসলাম খান ও তাদের দল।

হাসপাতালের কনসালট্যান্ট ডা. আমিনুল ইসলাম খান বলেন, রোগীটি পেটে ব্যাথা নিয়ে ভর্তি হন। হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডের চিকিৎসকরা এক্স-রে ও আলট্রাসনোগ্রাম করেও পেটে কী সমস্যা, সেটা শনাক্ত করতে পারছিলেন না। পরে রোগীকে আমার কাছে পাঠানো হয়। আমরা অ্যান্ডোস্কপির মাধ্যমে পরীক্ষা করে তার পেটের ভেতর ১৫টি কলম দেখে প্রথমে চমকে যাই। পরে অ্যান্ডোস্কপির মাধ্যমেই অপারেশন ছাড়াই আমরা কলমগুলো বের করার সিদ্ধান্ত নিই।

তিনি আরও বলেন, অপারেশনের কাজটি মোটেও সহজ ছিল না। কারণ দীর্ঘ দিন হওয়াই কলমগুলো পাকস্থলীতে সেট হয়ে গিয়েছিল। কলমগুলো বের করতে আমাদের প্রথমে চিন্তা করতে হয়েছে, কলমগুলো যাতে করে কোনোভাবেই শ্বাসনালিতে গিয়ে শ্বাসপ্রশ্বাস বন্ধ না হয়ে যায়। এ ছাড়া রক্তক্ষরণের একটা বড় চিন্তাও মাথায় ছিল। অবশেষে তিন ঘণ্টার চেষ্টায় আমরা কলমগুলো বের করে নিয়ে আসতে সক্ষম হই।

এর আগে ১৬ মে হাসপাতালে ওই যুবক মূলত পেটে ব্যাথা নিয়ে হাসপাতে ভর্তি হন। অপারেশন পরবর্তীতে এখন তিনি ভালো আছেন। তাঁকে মানসিক চিকিৎসা দেওয়া হবে।’

মোতালেব সিরাজঞ্জের এনায়েতপুর থানাধীন খুকনী আটারদাগ গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে। পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, ২০০৬ সালে মোতালেব হোসেনের পেটব্যথা হয়েছিল। সে সময় অস্ত্রোপচার করে তার পেট থেকে দুটি লোহার টুকরা বের করা হয়।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা
  3. যুবকের পেট থেকে বের করা হলো ১৫টি কলম

যুবকের পেট থেকে বের করা হলো ১৫টি কলম

সিরাজগঞ্জ জেলার শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আব্দুল মোতালেব (৩৫) নামের এক যুবকের পেট থেকে অস্ত্রোপচার করে ১৫টি কলম বের করেছে চিকিৎসকরা। চিকিৎসকরা বলছেন ১৫টি কলম খেয়ে ফেলা ওই যুবক একজন মানসিক রোগী।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) সিরাজগঞ্জ শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারে অ্যান্ডোস্কপির মাধ্যমে ১৫টি কলম বের করে আনেন হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের প্রধান ডা. জাহিদুল ইসলাম, কনসালট্যান্ট ডা. আমিনুল ইসলাম খান ও তাদের দল।

হাসপাতালের কনসালট্যান্ট ডা. আমিনুল ইসলাম খান বলেন, রোগীটি পেটে ব্যাথা নিয়ে ভর্তি হন। হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডের চিকিৎসকরা এক্স-রে ও আলট্রাসনোগ্রাম করেও পেটে কী সমস্যা, সেটা শনাক্ত করতে পারছিলেন না। পরে রোগীকে আমার কাছে পাঠানো হয়। আমরা অ্যান্ডোস্কপির মাধ্যমে পরীক্ষা করে তার পেটের ভেতর ১৫টি কলম দেখে প্রথমে চমকে যাই। পরে অ্যান্ডোস্কপির মাধ্যমেই অপারেশন ছাড়াই আমরা কলমগুলো বের করার সিদ্ধান্ত নিই।

তিনি আরও বলেন, অপারেশনের কাজটি মোটেও সহজ ছিল না। কারণ দীর্ঘ দিন হওয়াই কলমগুলো পাকস্থলীতে সেট হয়ে গিয়েছিল। কলমগুলো বের করতে আমাদের প্রথমে চিন্তা করতে হয়েছে, কলমগুলো যাতে করে কোনোভাবেই শ্বাসনালিতে গিয়ে শ্বাসপ্রশ্বাস বন্ধ না হয়ে যায়। এ ছাড়া রক্তক্ষরণের একটা বড় চিন্তাও মাথায় ছিল। অবশেষে তিন ঘণ্টার চেষ্টায় আমরা কলমগুলো বের করে নিয়ে আসতে সক্ষম হই।

এর আগে ১৬ মে হাসপাতালে ওই যুবক মূলত পেটে ব্যাথা নিয়ে হাসপাতে ভর্তি হন। অপারেশন পরবর্তীতে এখন তিনি ভালো আছেন। তাঁকে মানসিক চিকিৎসা দেওয়া হবে।’

মোতালেব সিরাজঞ্জের এনায়েতপুর থানাধীন খুকনী আটারদাগ গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে। পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, ২০০৬ সালে মোতালেব হোসেনের পেটব্যথা হয়েছিল। সে সময় অস্ত্রোপচার করে তার পেট থেকে দুটি লোহার টুকরা বের করা হয়।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন