The Rising Campus
News Media
বৃহস্পতিবার, ২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

ফকির পাঞ্জুশাহ ও খোন্দকার রফিউদ্দীনের ৪২তম স্মরণোৎসব অনুষ্ঠিত

ইবি প্রতিনিধি: ফকির পাঞ্জুশাহ ও খোন্দকার রফিউদ্দিন-এর ৪২তম স্মরণোৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে৷ ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকুণ্ডের হরিশপুরে সোম ও মঙ্লবার (২, ৩ জানুয়ারি) এ স্মরণোৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

খোন্দকার দবির উদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক মনিরা বেগম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হরিণাকুণ্ডু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন ও হরিণাকুণ্ডু উপজেলা ইউএনও সুস্মিতা সাহা। আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লালন শাহ সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক খোন্দকার কেরামত আলী, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. শেখ মহা রেজাউল করিম, অধ্যাপক ড. রশিদুজ্জামান, ড. রবিউল হোসেন, অধ্যাপক ড. মনজুর রহমান, ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক প্রদীপ কুমার অধিকারী ও সহযোগী অধ্যাপক ড. আফরোজা বানু।

এছাড়াও হরিণাকুণ্ডু জোড়াদহ কলেজের অধ্যক্ষ শরিফুল ইসলাম ও অধ্যাপক মজিবুর রহমান, সরকারি খোন্দকার মোশারফ হোসেন কলেজের অধ্যাপক আরতী নন্দী এবং জোড়াদহ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম বাবু মিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

স্মরণসভায় আলোচকবৃন্দ মরমী সাধক পাঞ্জু শাহ ও খোন্দকার রফিউদ্দিনের জীবন ও কীর্তির ওপর আলোচনা ধরেন। উল্লেখ্য, ফকির পাঞ্জু শাহ বাঙালি মরমি কবি যাকে শ্রেষ্ঠত্বের বিচারে মরমি কবি লালন ফকিরের পরেই বিবেচনা করা হয়।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. ক্যাম্পাস
  3. ফকির পাঞ্জুশাহ ও খোন্দকার রফিউদ্দীনের ৪২তম স্মরণোৎসব অনুষ্ঠিত

ফকির পাঞ্জুশাহ ও খোন্দকার রফিউদ্দীনের ৪২তম স্মরণোৎসব অনুষ্ঠিত

ইবি প্রতিনিধি: ফকির পাঞ্জুশাহ ও খোন্দকার রফিউদ্দিন-এর ৪২তম স্মরণোৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে৷ ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকুণ্ডের হরিশপুরে সোম ও মঙ্লবার (২, ৩ জানুয়ারি) এ স্মরণোৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

খোন্দকার দবির উদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক মনিরা বেগম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হরিণাকুণ্ডু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন ও হরিণাকুণ্ডু উপজেলা ইউএনও সুস্মিতা সাহা। আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লালন শাহ সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক খোন্দকার কেরামত আলী, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. শেখ মহা রেজাউল করিম, অধ্যাপক ড. রশিদুজ্জামান, ড. রবিউল হোসেন, অধ্যাপক ড. মনজুর রহমান, ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক প্রদীপ কুমার অধিকারী ও সহযোগী অধ্যাপক ড. আফরোজা বানু।

এছাড়াও হরিণাকুণ্ডু জোড়াদহ কলেজের অধ্যক্ষ শরিফুল ইসলাম ও অধ্যাপক মজিবুর রহমান, সরকারি খোন্দকার মোশারফ হোসেন কলেজের অধ্যাপক আরতী নন্দী এবং জোড়াদহ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম বাবু মিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

স্মরণসভায় আলোচকবৃন্দ মরমী সাধক পাঞ্জু শাহ ও খোন্দকার রফিউদ্দিনের জীবন ও কীর্তির ওপর আলোচনা ধরেন। উল্লেখ্য, ফকির পাঞ্জু শাহ বাঙালি মরমি কবি যাকে শ্রেষ্ঠত্বের বিচারে মরমি কবি লালন ফকিরের পরেই বিবেচনা করা হয়।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন