The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
বৃহস্পতিবার, ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪

প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলছে ১ মার্চ

আগামী ১ মার্চ থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো খুলে দেয়া হচ্ছে। শীঘ্রই এ সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করা হবে। এ তথ্য জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মাহবুব রহমান তুহিন। তিনি বলেন, করোনা সংক্রমণ কমে আসায় বৃহস্পতিবার রাতে মন্ত্রণালয় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এর আগে, গতকাল শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে মাধ্যমিক থেকে উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সশরীরে পাঠনদান শুরু হবে বলে জানান। করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ২০ জানুয়ারি থেকে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রয়েছে। দুই দফায় বাড়ানো হয় ছুটি। শুরুতে ৬ ফেব্রুয়ারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দিন ঠিক থাকলেও পরে ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে ১৬ ফেব্রুয়ারি জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সেখানে সিদ্ধান্ত হয় ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার। পরে এ বিষয়ে গতকাল সংবাদ সম্মেলন করেন শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, দ্বিতীয় ডোজ যারা নেবেন না তারা বাড়িতে থেকে অনলাইনে ক্লাস করবেন। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তাদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় টিকার ব্যবস্থা করবে। ১২ বছরের নিচে যারা আছে, তাদের জন্য টিকা প্রদানের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয় সরকার। টানা দেড় বছর বন্ধ রাখার পর গত বছরের সেপ্টেম্বরে সব স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া হয়। পরে ধাপে ধাপে খুলে যায় উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোও। করোনার নতুন ধরন ওমিক্রণ শনাক্ত হওয়ার পর প্রায় ১ মাস বন্ধ থাকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. ক্যাম্পাস
  3. প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলছে ১ মার্চ

প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলছে ১ মার্চ

আগামী ১ মার্চ থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো খুলে দেয়া হচ্ছে। শীঘ্রই এ সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করা হবে। এ তথ্য জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মাহবুব রহমান তুহিন। তিনি বলেন, করোনা সংক্রমণ কমে আসায় বৃহস্পতিবার রাতে মন্ত্রণালয় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এর আগে, গতকাল শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে মাধ্যমিক থেকে উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সশরীরে পাঠনদান শুরু হবে বলে জানান। করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ২০ জানুয়ারি থেকে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রয়েছে। দুই দফায় বাড়ানো হয় ছুটি। শুরুতে ৬ ফেব্রুয়ারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দিন ঠিক থাকলেও পরে ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে ১৬ ফেব্রুয়ারি জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সেখানে সিদ্ধান্ত হয় ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার। পরে এ বিষয়ে গতকাল সংবাদ সম্মেলন করেন শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, দ্বিতীয় ডোজ যারা নেবেন না তারা বাড়িতে থেকে অনলাইনে ক্লাস করবেন। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তাদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় টিকার ব্যবস্থা করবে। ১২ বছরের নিচে যারা আছে, তাদের জন্য টিকা প্রদানের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয় সরকার। টানা দেড় বছর বন্ধ রাখার পর গত বছরের সেপ্টেম্বরে সব স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া হয়। পরে ধাপে ধাপে খুলে যায় উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোও। করোনার নতুন ধরন ওমিক্রণ শনাক্ত হওয়ার পর প্রায় ১ মাস বন্ধ থাকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন