The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
রবিবার, ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪

প্রথমবারের মতো রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক কনফারেন্স

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিঃ ‘Combining the Art of Social Changes towards Smart Bangladesh’ থিমে আগামী ১৫-১৭ জুন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথমবারের মতো আয়োজিত হতে যাচ্ছে The Art Of Social Changes শীর্ষক আন্তর্জাতিক কনফারেন্স।

কনফারেন্সে দেশ-বিদেশের গবেষকদের জমাকৃত প্রবন্ধের মধ্যেকার বাছাইকৃত ১০০ টি প্রবন্ধ উপস্থাপিত হবে। এছাড়াও কি নোট পেপার উপস্থাপন করবেন, রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. পবিত্র সরকার, বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. সজিত কুমার বসু, এবং ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আইনুন নিশাত। আরও থাকবেন মালয়শিয়ার মালায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. নুরিজাহ বিনতে মোহাম্মদ মুস্তামিল, খ্যাতনামা রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী গবেষক রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মহালয়া চক্রবর্তী।

বুধবার (১৪ জুন) সংবাদ সম্মেলনে কনফারেন্সের বিষয়ে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: শাহ্ আজম।

তিনি বলেন, শুরুতেই গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে, তাঁর নেতৃত্বে আমরা যেমন ভুখন্ড পেয়েছি তেমনি সাংস্কৃতিক পরিচয় লাভ হয়েছে। আমরা আজ যে আন্তর্জাতিক সম্মেলন করতে যাচ্ছি তার পশ্চাতে রয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পৃষ্ঠপোষকতা। শাহজাদপুরের ইতিহাসে এক অনন্য ঘটনা এই আন্তর্জাতিক সম্মেলন। জননেত্রী শেখ হাসিনা এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা এবং শিক্ষা-গবেষণাকে তৃণমূলে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য ধন্যবাদার্হ।

ককনফারেন্সের সার্বিক পরিস্থিতি জানিয়ে উপাচার্য বলেন, আপনারা জেনে আনন্দিত হবেন যে, সমাজ পরিবর্তনে বহুমাত্রিক সংস্কৃতি এবং বিচিত্র ভাবনার সংযোগ ঘটেছে। জ্ঞান ও চিন্তনের মিথস্ক্রিয়ায় এই সম্মেলনের জন্য রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় প্রস্তুত। এই তিনদিনের কনফারেন্সে প্রায় একশ প্রবন্ধ উপস্থাপিত হবে। এখানে দেশ-বিদেশের চিন্তক, গবেষক ও বিশ্লেষকগণ আপন ভাবনা নিয়ে উপস্থিত থাকবেন। আমাদের অভিপ্রায় এই সম্মেলনে উপস্থাপিত প্রবন্ধের মাধ্যমে নতুন ভাবনা আসবে।

একই সঙ্গে পাঁচটি স্থানে আলোচনা চলবে। আমাদের একাডেমিক ভবন এবং সীমান্ত কনভেনশেন সেন্টারের পাঁচটি স্থানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হবে। আমরা সেখানে স্মার্ট বাংলাদেশ ও সমাজ পরিবর্তনের নানা ধাপ নিয়ে আলোচনা ও মূল্যায়ন করবো। ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান এবং রাষ্ট্র পারস্পরিক সমঝোতা ও সমন্বয়ের মাধ্যমে এক নতুনতর ধাপে উপনীত হবে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. ক্যাম্পাস
  3. প্রথমবারের মতো রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক কনফারেন্স

প্রথমবারের মতো রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক কনফারেন্স

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিঃ ‘Combining the Art of Social Changes towards Smart Bangladesh’ থিমে আগামী ১৫-১৭ জুন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথমবারের মতো আয়োজিত হতে যাচ্ছে The Art Of Social Changes শীর্ষক আন্তর্জাতিক কনফারেন্স।

কনফারেন্সে দেশ-বিদেশের গবেষকদের জমাকৃত প্রবন্ধের মধ্যেকার বাছাইকৃত ১০০ টি প্রবন্ধ উপস্থাপিত হবে। এছাড়াও কি নোট পেপার উপস্থাপন করবেন, রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. পবিত্র সরকার, বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. সজিত কুমার বসু, এবং ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আইনুন নিশাত। আরও থাকবেন মালয়শিয়ার মালায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. নুরিজাহ বিনতে মোহাম্মদ মুস্তামিল, খ্যাতনামা রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী গবেষক রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মহালয়া চক্রবর্তী।

বুধবার (১৪ জুন) সংবাদ সম্মেলনে কনফারেন্সের বিষয়ে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: শাহ্ আজম।

তিনি বলেন, শুরুতেই গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে, তাঁর নেতৃত্বে আমরা যেমন ভুখন্ড পেয়েছি তেমনি সাংস্কৃতিক পরিচয় লাভ হয়েছে। আমরা আজ যে আন্তর্জাতিক সম্মেলন করতে যাচ্ছি তার পশ্চাতে রয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পৃষ্ঠপোষকতা। শাহজাদপুরের ইতিহাসে এক অনন্য ঘটনা এই আন্তর্জাতিক সম্মেলন। জননেত্রী শেখ হাসিনা এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা এবং শিক্ষা-গবেষণাকে তৃণমূলে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য ধন্যবাদার্হ।

ককনফারেন্সের সার্বিক পরিস্থিতি জানিয়ে উপাচার্য বলেন, আপনারা জেনে আনন্দিত হবেন যে, সমাজ পরিবর্তনে বহুমাত্রিক সংস্কৃতি এবং বিচিত্র ভাবনার সংযোগ ঘটেছে। জ্ঞান ও চিন্তনের মিথস্ক্রিয়ায় এই সম্মেলনের জন্য রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় প্রস্তুত। এই তিনদিনের কনফারেন্সে প্রায় একশ প্রবন্ধ উপস্থাপিত হবে। এখানে দেশ-বিদেশের চিন্তক, গবেষক ও বিশ্লেষকগণ আপন ভাবনা নিয়ে উপস্থিত থাকবেন। আমাদের অভিপ্রায় এই সম্মেলনে উপস্থাপিত প্রবন্ধের মাধ্যমে নতুন ভাবনা আসবে।

একই সঙ্গে পাঁচটি স্থানে আলোচনা চলবে। আমাদের একাডেমিক ভবন এবং সীমান্ত কনভেনশেন সেন্টারের পাঁচটি স্থানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হবে। আমরা সেখানে স্মার্ট বাংলাদেশ ও সমাজ পরিবর্তনের নানা ধাপ নিয়ে আলোচনা ও মূল্যায়ন করবো। ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান এবং রাষ্ট্র পারস্পরিক সমঝোতা ও সমন্বয়ের মাধ্যমে এক নতুনতর ধাপে উপনীত হবে।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন