The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
সোমবার, ৪ঠা মার্চ, ২০২৪

পবিপ্রবি’র স্মার্ট অনুষদ ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ

সাব্বির হোসেন, পবিপ্রবি প্রতিনিধি: পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (পবিপ্রবি) এর টেকনো-বেজড স্মার্ট ও সৌন্দর্যমণ্ডিত অনুষদ ব্যবসায় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ে আটটি অনুষদ রয়েছে। এর মধ্য অনেক ক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ। অনুষদের শিক্ষার্থীরা নেতৃত্ব দিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বহুবিধ সংগঠনে। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য বয়ে আনছে সুনাম।

বাস্তব কর্মদক্ষ চাকরি উপযোগী একাডেমিক কারিকুলাম:
এ অনুষদ কোভিড-১৯ অতিমারির অভিঘাতে শিক্ষার্থীদের যে সেশনজট হয়েছে, তা রিকভারী প্ল্যানের আওতায় বাস্তবায়ন করেছে চার মাসের সেমিস্টার। বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য অনুষদের তুলনায় প্রায় দুই সেমিস্টার এগিয়ে রয়েছে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ। নির্দিষ্ট একাডেমিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হচ্ছে অনুষদের ক্লাস-পরীক্ষা, দ্রুততম সময়ে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশসহ সকল একাডেমিক কার্যক্রম।

স্মার্ট গ্র্যাজুয়েট তৈরি:
অনুষদের শিক্ষকদের নিবিড় তত্ত্বাবধানে শিক্ষার্থীরা স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার যোগ্যতা নিয়ে তাদের শিক্ষা জীবন শেষ করছে। একমাত্র এই অনুষদের শিক্ষার্থীরা প্রথম থেকে প্রতি সেমিস্টারে কম্পিহেসিভ ভাইভা দিয়ে আসছে। এ অভিজ্ঞতার সাহসে শিক্ষার্থীদের চাকরিপ্রাপ্তি সহজ হচ্ছে।

সৌন্দর্যমন্ডিত একাডেমিক আঙ্গিনা:
ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের রয়েছে নিজস্ব একাডেমিক ভবন। সেখানে মনোরম পরিবেশে শিক্ষার্থীরা ক্লাস করার সুযোগ পাচ্ছে। একাডেমিক ভবনের মাঝে রয়েছে শিক্ষার্থীদের জন্য উন্মুক্ত আঙ্গিনা৷ যেখানে রয়েছে বিভিন্ন ফুল ও ফলের গাছ। শিক্ষার্থীরা ক্লাসের ফাঁকে বৃক্ষের ছায়ায় বসে করতে পারে গ্রুপ স্টাডি, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, জন্মদিনের পার্টি, দাবা, ক্যারাম, লুডুখেলা, দুপুরে মুক্ত বাতাসে বসে নিজের ক্লান্তি দূর করতে পারে।

একাডেমিক ভবনের পরিবেশ:
প্রতিটি ক্লাসরুমে রয়েছে বৈদ্যুতিক পাখা ও পর্যাপ্ত এলইডি আলোর ব্যবস্থা। রয়েছে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর, সাউন্ড সিস্টেম, দুটি করে ঘড়ি, একাডেমিক ক্যালেন্ডার, স্টেজ, পোডিয়াম, একই রঙের হাতলযুক্ত চেয়ার। রয়েছে নিজস্ব সেমিনার লাইব্রেরি, কম্পিউটার ল্যাব, ল্যাংগুয়েজ ক্লাব, কমনরুম, রয়েছে নিরাপদ খাবার পানির ব্যবস্থা, স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট।

সহশিক্ষা কার্যক্রম:
অনুষদের ছাত্র-শিক্ষকদের নিয়ে গঠিত বিজনেস ক্লাবের ছয়টি উইং থেকে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণ, কর্মশালা, বিজনেস সল্যুশন, বিজনেস কেস কম্পিটিশন আয়োজন করা হয়। ক্লাব শিক্ষার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেয় সমসাময়িক পরিবর্তনশীল টেকনোলজির সঙ্গে। গড়ে তুলে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ চাকরির যোগ্যতাসম্পন্ন করে।

ব্যবসায় প্রশাসন কিছু সমস্যাঃ
অনুষদের ক্লাসরুমগুলো অনুষদের শুরুতে যে ৭০ জন শিক্ষার্থীর ভর্তি নেওয়া হতো সেই মাপে তৈরি হলেও বর্তমানে সেখানে শতাধিক শিক্ষার্থীর ক্লাস করতে হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের দাবি এয়ারকন্ডিশন্ড ক্লাসরুম। বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু অনুষদের শিক্ষার্থীরা সার্ক ক্রান্ট্রিতে শিক্ষা সফরের সুযোগ পেলেও সে সুযোগ পাচ্ছে না এ অনুষদের শিক্ষার্থীরা। মার্কারির মতো ভারী ধাতুর ব্যবহার কমাতে ক্লাসে স্মার্ট বোর্ডের প্রয়োজন।

ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ২০১৮-২০১৯ সেশনের শিক্ষার্থী সিহাব উদ্দিন বুখারী বলেন,” আমাদের অনুষদের মধ্যে ফাঁকা স্থানে মিনি পার্ক, ক্লাসরুম আধুনিকায়নসহ বর্তমানে কিছু উন্নয়ন কাজ চলমান, প্রয়োজন সেগুলোর দ্রুত বাস্তবায়ন । বাস্তবায়িত হলে আমরা সত্যিই বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য অনুষদ থেকে সর্বক্ষেত্রে এগিয়ে যাব।”

ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর আবুল বাশার খান তার অনুষদ সম্পর্কে বলেন,” অনুষদের একাডেমিক, প্রশাসনিক ও আর্থিক শৃংখলা একটি সমবায়ী-যৌথ কর্মযজ্ঞ। এযাৎ অর্জিত সাফল্য শিক্ষার্থী-শিক্ষক- সকলের। সহশিক্ষা কার্যক্রমসহ বৈশ্বিক চাহিদার উপযোগী আউটকাম বেজড কারিকুলাম এ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিবিএ প্রোগ্রামে প্রথম চালু করা হয়। কম্পিউটার ল্যাবের সক্ষমতা বৃদ্ধি করে এটিকে ছাত্রছাত্রীদের ব্যবহারোপযোগী করা, ল্যাংগুয়েজ ক্লাবকে ইংরেজি ভাষা ছাড়াও বিদেশগামী শিক্ষার্থীদের জন্য অন্যান্য ভাষা শিক্ষার সুযোগসহ অনুষদটিকে সকলের সহযোগিতায় একটি মাইলফলকে রেখে যেতে চাই”।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. ক্যাম্পাস
  3. পবিপ্রবি’র স্মার্ট অনুষদ ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ

পবিপ্রবি'র স্মার্ট অনুষদ ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ

সাব্বির হোসেন, পবিপ্রবি প্রতিনিধি: পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (পবিপ্রবি) এর টেকনো-বেজড স্মার্ট ও সৌন্দর্যমণ্ডিত অনুষদ ব্যবসায় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ে আটটি অনুষদ রয়েছে। এর মধ্য অনেক ক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ। অনুষদের শিক্ষার্থীরা নেতৃত্ব দিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বহুবিধ সংগঠনে। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য বয়ে আনছে সুনাম।

বাস্তব কর্মদক্ষ চাকরি উপযোগী একাডেমিক কারিকুলাম:
এ অনুষদ কোভিড-১৯ অতিমারির অভিঘাতে শিক্ষার্থীদের যে সেশনজট হয়েছে, তা রিকভারী প্ল্যানের আওতায় বাস্তবায়ন করেছে চার মাসের সেমিস্টার। বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য অনুষদের তুলনায় প্রায় দুই সেমিস্টার এগিয়ে রয়েছে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ। নির্দিষ্ট একাডেমিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হচ্ছে অনুষদের ক্লাস-পরীক্ষা, দ্রুততম সময়ে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশসহ সকল একাডেমিক কার্যক্রম।

স্মার্ট গ্র্যাজুয়েট তৈরি:
অনুষদের শিক্ষকদের নিবিড় তত্ত্বাবধানে শিক্ষার্থীরা স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার যোগ্যতা নিয়ে তাদের শিক্ষা জীবন শেষ করছে। একমাত্র এই অনুষদের শিক্ষার্থীরা প্রথম থেকে প্রতি সেমিস্টারে কম্পিহেসিভ ভাইভা দিয়ে আসছে। এ অভিজ্ঞতার সাহসে শিক্ষার্থীদের চাকরিপ্রাপ্তি সহজ হচ্ছে।

সৌন্দর্যমন্ডিত একাডেমিক আঙ্গিনা:
ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের রয়েছে নিজস্ব একাডেমিক ভবন। সেখানে মনোরম পরিবেশে শিক্ষার্থীরা ক্লাস করার সুযোগ পাচ্ছে। একাডেমিক ভবনের মাঝে রয়েছে শিক্ষার্থীদের জন্য উন্মুক্ত আঙ্গিনা৷ যেখানে রয়েছে বিভিন্ন ফুল ও ফলের গাছ। শিক্ষার্থীরা ক্লাসের ফাঁকে বৃক্ষের ছায়ায় বসে করতে পারে গ্রুপ স্টাডি, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, জন্মদিনের পার্টি, দাবা, ক্যারাম, লুডুখেলা, দুপুরে মুক্ত বাতাসে বসে নিজের ক্লান্তি দূর করতে পারে।

একাডেমিক ভবনের পরিবেশ:
প্রতিটি ক্লাসরুমে রয়েছে বৈদ্যুতিক পাখা ও পর্যাপ্ত এলইডি আলোর ব্যবস্থা। রয়েছে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর, সাউন্ড সিস্টেম, দুটি করে ঘড়ি, একাডেমিক ক্যালেন্ডার, স্টেজ, পোডিয়াম, একই রঙের হাতলযুক্ত চেয়ার। রয়েছে নিজস্ব সেমিনার লাইব্রেরি, কম্পিউটার ল্যাব, ল্যাংগুয়েজ ক্লাব, কমনরুম, রয়েছে নিরাপদ খাবার পানির ব্যবস্থা, স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট।

সহশিক্ষা কার্যক্রম:
অনুষদের ছাত্র-শিক্ষকদের নিয়ে গঠিত বিজনেস ক্লাবের ছয়টি উইং থেকে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণ, কর্মশালা, বিজনেস সল্যুশন, বিজনেস কেস কম্পিটিশন আয়োজন করা হয়। ক্লাব শিক্ষার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেয় সমসাময়িক পরিবর্তনশীল টেকনোলজির সঙ্গে। গড়ে তুলে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ চাকরির যোগ্যতাসম্পন্ন করে।

ব্যবসায় প্রশাসন কিছু সমস্যাঃ
অনুষদের ক্লাসরুমগুলো অনুষদের শুরুতে যে ৭০ জন শিক্ষার্থীর ভর্তি নেওয়া হতো সেই মাপে তৈরি হলেও বর্তমানে সেখানে শতাধিক শিক্ষার্থীর ক্লাস করতে হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের দাবি এয়ারকন্ডিশন্ড ক্লাসরুম। বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু অনুষদের শিক্ষার্থীরা সার্ক ক্রান্ট্রিতে শিক্ষা সফরের সুযোগ পেলেও সে সুযোগ পাচ্ছে না এ অনুষদের শিক্ষার্থীরা। মার্কারির মতো ভারী ধাতুর ব্যবহার কমাতে ক্লাসে স্মার্ট বোর্ডের প্রয়োজন।

ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ২০১৮-২০১৯ সেশনের শিক্ষার্থী সিহাব উদ্দিন বুখারী বলেন," আমাদের অনুষদের মধ্যে ফাঁকা স্থানে মিনি পার্ক, ক্লাসরুম আধুনিকায়নসহ বর্তমানে কিছু উন্নয়ন কাজ চলমান, প্রয়োজন সেগুলোর দ্রুত বাস্তবায়ন । বাস্তবায়িত হলে আমরা সত্যিই বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য অনুষদ থেকে সর্বক্ষেত্রে এগিয়ে যাব।"

ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর আবুল বাশার খান তার অনুষদ সম্পর্কে বলেন," অনুষদের একাডেমিক, প্রশাসনিক ও আর্থিক শৃংখলা একটি সমবায়ী-যৌথ কর্মযজ্ঞ। এযাৎ অর্জিত সাফল্য শিক্ষার্থী-শিক্ষক- সকলের। সহশিক্ষা কার্যক্রমসহ বৈশ্বিক চাহিদার উপযোগী আউটকাম বেজড কারিকুলাম এ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিবিএ প্রোগ্রামে প্রথম চালু করা হয়। কম্পিউটার ল্যাবের সক্ষমতা বৃদ্ধি করে এটিকে ছাত্রছাত্রীদের ব্যবহারোপযোগী করা, ল্যাংগুয়েজ ক্লাবকে ইংরেজি ভাষা ছাড়াও বিদেশগামী শিক্ষার্থীদের জন্য অন্যান্য ভাষা শিক্ষার সুযোগসহ অনুষদটিকে সকলের সহযোগিতায় একটি মাইলফলকে রেখে যেতে চাই"।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন