The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
রবিবার, ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪

পছন্দের মানুষকে বিয়ে করতে এবার সিলেটে ছুটে এলেন জার্মান তরুণী

পছন্দের মানুষকে বিয়ে করতে এবার সুদূর জার্মানি থেকে সিলেটের বিশ্বনাথে ছুটে এসেছেন মারিয়া নামে এক জার্মান তরুণী।

জার্মানের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মারিয়ার সঙ্গে পেশায় কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার আব্রাহাম হাসান নাঈমের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (৫ জানুয়ারি) রাজকীয় আয়োজনের মধ্য দিয়ে মুসলিম রীতি অনুসারে আব্রাহাম-মারিয়ার বিয়ের মূল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়।

জানা যায়, বিশ্বনাথের স্থানীয় এক ব্যক্তির মাধ্যমে মারিয়ার সঙ্গে পরিচয় হয় আব্রাহাম হাসান নাঈমের। পরিচয় পর্বের পর কথা বলতে বলতে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। একসময় আব্রাহাম-মারিয়ার পরিবার সিদ্ধান্ত নেয় আত্মীয়তার বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার।

প্রথমদিকে আব্রাহামকে জার্মানিতে যাওয়ার প্রস্তাব দেন মারিয়া। তাতে রাজি হননি আব্রাহাম। পরবর্তীতে গত ২৩ ডিসেম্বর পছন্দের মানুষ আব্রাহামের কাছে বাংলাদেশে ছুটে আসেন মারিয়া। এরপর মুসলিম রীতি অনুযায়ী তারা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

মারিয়া জার্মানির একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার পাশাপাশি পিএইচডি করছেন। বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হতে পেরে খুবই খুশি আব্রাহাম-মারিয়া দম্পতি।

আব্রাহাম হাসান নাঈম সিলেটের বিশ্বনাথ পৌরসভার শ্রীধরপুর গ্রামের আরিছ আলীর ছেলে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. জাতীয়
  3. পছন্দের মানুষকে বিয়ে করতে এবার সিলেটে ছুটে এলেন জার্মান তরুণী

পছন্দের মানুষকে বিয়ে করতে এবার সিলেটে ছুটে এলেন জার্মান তরুণী

পছন্দের মানুষকে বিয়ে করতে এবার সুদূর জার্মানি থেকে সিলেটের বিশ্বনাথে ছুটে এসেছেন মারিয়া নামে এক জার্মান তরুণী।

জার্মানের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মারিয়ার সঙ্গে পেশায় কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার আব্রাহাম হাসান নাঈমের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (৫ জানুয়ারি) রাজকীয় আয়োজনের মধ্য দিয়ে মুসলিম রীতি অনুসারে আব্রাহাম-মারিয়ার বিয়ের মূল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়।

জানা যায়, বিশ্বনাথের স্থানীয় এক ব্যক্তির মাধ্যমে মারিয়ার সঙ্গে পরিচয় হয় আব্রাহাম হাসান নাঈমের। পরিচয় পর্বের পর কথা বলতে বলতে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। একসময় আব্রাহাম-মারিয়ার পরিবার সিদ্ধান্ত নেয় আত্মীয়তার বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার।

প্রথমদিকে আব্রাহামকে জার্মানিতে যাওয়ার প্রস্তাব দেন মারিয়া। তাতে রাজি হননি আব্রাহাম। পরবর্তীতে গত ২৩ ডিসেম্বর পছন্দের মানুষ আব্রাহামের কাছে বাংলাদেশে ছুটে আসেন মারিয়া। এরপর মুসলিম রীতি অনুযায়ী তারা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

মারিয়া জার্মানির একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার পাশাপাশি পিএইচডি করছেন। বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হতে পেরে খুবই খুশি আব্রাহাম-মারিয়া দম্পতি।

আব্রাহাম হাসান নাঈম সিলেটের বিশ্বনাথ পৌরসভার শ্রীধরপুর গ্রামের আরিছ আলীর ছেলে।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন