The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪

নোবিপ্রবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত অন্তত ২০

নোবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ ‘সিনিয়র-জুনিয়র’ বিরোধের জের ধরে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়(নোবিপ্রবি) ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে থেমে থেমে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উভয় গ্রুপের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার (২২ মার্চ) বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পকেট গেইট এলাকায় রেস্টুরেন্টের খাবার টেবিলে সিনিয়র-জুনিয়র বসাকে কেন্দ্র করে ঘটনার সূত্রপাত। পরে এ ঘটনায় বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত থেমে থেমে ক্যাম্পাসে দুই গ্রুপের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। পরে রাত সাড়ে আটটার দিকে উভয় গ্রুপ আবারো ক্যাম্পাসে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে মারামারিতে জড়িয়ে পড়ে।

এদিকে মারামারিতে জড়ানো ছাত্রলীগের এক গ্রুপের নেতা নজরুল ইসলাম নাঈম অনুসারীদের নিয়ে ক্যাম্পাসে হলে অবস্থান করছেন। মারামারির ঘটনায় তিনি নিজেও আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন। আরেক গ্রুপের নেতা মোহাইমেনুল ইসলাম নুহাশ ক্যাম্পাসের বাহিরে অবস্থান করলেও তার অনুসারীরা ক্যাম্পাসে অবস্থান করছেন। মারামারির বিষয়ে জানতে একাধিকবার কল দিলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনায় ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আহতদের চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী সদর হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। এদিকে বারবার চেষ্টার পরও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি। ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর ইকবাল হোসাইন সুমন বলেছেন, উভয় গ্রুপের সঙ্গে কথা বলে তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছেন।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. রাজনীতি
  3. নোবিপ্রবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত অন্তত ২০

নোবিপ্রবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত অন্তত ২০

নোবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ 'সিনিয়র-জুনিয়র’ বিরোধের জের ধরে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়(নোবিপ্রবি) ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে থেমে থেমে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উভয় গ্রুপের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার (২২ মার্চ) বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পকেট গেইট এলাকায় রেস্টুরেন্টের খাবার টেবিলে সিনিয়র-জুনিয়র বসাকে কেন্দ্র করে ঘটনার সূত্রপাত। পরে এ ঘটনায় বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত থেমে থেমে ক্যাম্পাসে দুই গ্রুপের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। পরে রাত সাড়ে আটটার দিকে উভয় গ্রুপ আবারো ক্যাম্পাসে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে মারামারিতে জড়িয়ে পড়ে।

এদিকে মারামারিতে জড়ানো ছাত্রলীগের এক গ্রুপের নেতা নজরুল ইসলাম নাঈম অনুসারীদের নিয়ে ক্যাম্পাসে হলে অবস্থান করছেন। মারামারির ঘটনায় তিনি নিজেও আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন। আরেক গ্রুপের নেতা মোহাইমেনুল ইসলাম নুহাশ ক্যাম্পাসের বাহিরে অবস্থান করলেও তার অনুসারীরা ক্যাম্পাসে অবস্থান করছেন। মারামারির বিষয়ে জানতে একাধিকবার কল দিলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনায় ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আহতদের চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী সদর হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। এদিকে বারবার চেষ্টার পরও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি। ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর ইকবাল হোসাইন সুমন বলেছেন, উভয় গ্রুপের সঙ্গে কথা বলে তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছেন।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন