দুদক সচিব মো. মাহবুব হোসেনকে প্রধান উপদেষ্টা করে সংস্থাটি নব গঠিত দুদক অ্যাসোসিয়েশন গঠন করেছে

দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) ১৩১ সদস্যের সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন গঠন করেছে সংস্থাটির কর্মকর্তারা। অ্যাসোসিয়েশনের নাম রাখা হয়েছে ‘দুদক সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন (ডিইউএসএ)’।

দুদক সচিব মো. মাহবুব হোসেনকে প্রধান উপদেষ্টা করে সংস্থাটি উপ-পরিচালক মশিউর রহমানকে সভাপতি ও সৈয়দ নজরুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে নব গঠিত দুদক সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনে।

সহ-সভাপতি পদে রয়েছেন- উপপরিচালক এ এস এম সাজ্জাদ হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম, ফারুক আহমেদ, মুহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসেন, জাকারিয়া, হুমায়ুন কবীর, শেখ গোলাম মাওলা, রেজাউল করিম, আহসানুল কবীর পলাশ, আতিকুর রহমান ও উপপরিচালক মো. শফিউল্লাহ।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে উপপরিচালক জাহিদ কালাম, মোজাম্মিল হোসেন, রতন কুমার দাশ ও ইসমাইল হোসেন। এই পদে আরও আছেন সহকারী পরিচালক সুবেল আহমেদ, আজিজুল হক, সাইদুজ্জামান, আতাউর রহমান সরকার, সিলভিয়া ফেরদৌস, আফনান জান্নাত কেয়া, আবুল কালাম আজাদ ও মুহাম্মদ জাফর সাদেক শিবলী।

সাংগঠনিক সম্পাদক হলেন সহকারী পরিচালক তানজির হাসিব সরকার। সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সহকারী পরিচালক রিয়াজ উদ্দিন, রণজিৎ কুমার কর্মকার, সাইফুল ইসলাম, তানভীর আহমদ, রাকিবুল হায়াত, সাহিদুর রহমান, আরিফ হোসেন, ফাহমিদা আক্তার, নীল কমল পাল ও সহকারী পরিচালক নুরুল ইসলাম।

দপ্তর সম্পাদক উপপরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী. সহ-দপ্তর সম্পাদক উপপরিচালক বায়েজিদুর রহমান খান, সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নেয়ামুল আহসান গাজী ও কামিয়াব আফতাহি-উন-নবী।

প্রচার সম্পাদক পদে সহকারী পরিচালক তাহাসিন মুনাবীল হক। সহ-প্রচার সম্পাদক সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম ভূঁইয়া, সাধন চন্দ্র সূত্র ধর, এমরান হোসেন, নূর আলম সিদ্দিকী ও নাছরুল্লাহ হোসাইন।

অন্যদিকে তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক উপপরিচালক শাওন মিয়া। সহ-তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক প্রোগামার সোহাগ কুমার দাস, জাভেদ হাবীব ও সহকারী পরিচালক আফরোজা হক খানের নাম ঘোষণা করা হয়েছে।

আইন বিষয়ক সম্পাদক উপ-পরিচালক কামরুজ্জামান। সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক উপপরিচালক আবদুল ওয়াদুদ, রাউফুল ইসলাম ও সিফাত উদ্দিন, সহকারী পরিচালক আমিনুল ইসলাম, আশিকুর রহমান, কোর্ট পরিদর্শক চয়ন কুমার সাহা ও শফিকুল ইসলাম।

আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক উপ-পরিচালক মনিরুল ইসলাম। সহ-আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক সহকারী পরিচালক হোসাইন শরীফ ও মিজানুর রহমান ভূঞা।

সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক উপপরিচালক মঈনুল হাসান রওশনী। সহ-সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক, সহকারী পরিচালক মানসী বিশ্বাস ও উপসহকারী পরিচালক জুয়েল মজুমদার।

ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক উপপরিচালক রাম প্রসাদ মন্ডল। সহ-ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক সহকারী পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ ও বিজন কুমার রায়।

গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক সহকারী পরিচালক জেসমিন আক্তার। সহ-গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ শিহাব সালাম ও উপসহকারী পরিচালক আব্দুল মালেক।

কোষাধ্যক্ষ উপপরিচালক হাফিজুল ইসলাম এবং সহ-কোষাধ্যক্ষ সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন ও সহকারী পরিচালক বিলকিস আক্তার।

মহিলা বিষয়ক সম্পাদক উপপরিচালক ফারজানা ইয়াসমিন ও উপসহকারী পরিচালক মাহমুদা আক্তার।

ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক উপপরিচালক আল আমিন। সহ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক উপপরিচালক নারগিস সুলতানা ও উপসহকারী পরিচালক সুদীপ কুমার চৌধুরী।

প্রশিক্ষণ ও উচ্চ শিক্ষা সম্পাদক উপপরিচালক গুলশান আনেয়ার প্রধান। সহ-প্রশিক্ষণ ও উচ্চ শিক্ষা সম্পাদক উপপরিচালক মোহাম্মদ ফয়সাল ও রাজ কুমার সাহা।

মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক সহকারী পরিচালক প্রবীর কুমার দাস। সহ-মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শাহজাহান মিরাজ ও উপসহকারী পরিচালক ছানোয়ার হোসেন মোল্লা।

সংস্কৃতি ও বিনোদন বিষয়ক সম্পাদক সহকারী পরিচালক শারিকা ইসলাম। সহ-সংস্কৃতি ও বিনোদন বিষয়ক সম্পাদক সহকারী পরিচালক সোহানা আক্তার ও উপসহকারী পরিচালক ওয়াহিদ মঞ্জুর সোহাগ।

ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক উপপরিচালক নাজমুল হাসান, সহ-ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক সহকারী পরিচালক কোরবান আলী সেখ ও উপসহকারী পরিচালক মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম।

স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক উপপরিচালক মো. মনিরুজ্জামান। সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক সহকারী পরিচালক আশরাফ উদ্দিন ও সোমা হোড়।

আর আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে উপপরিচালক আতিকুল আলম। সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক সহকারী পরিচালক রাফী মো. নাজমুস সা’দাৎ ও এস এম আনিসুজ্জামান।

কার্যকরী সদস্যরা হলেন, উপ-পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান, সুমিত্রা সেন, মো. সালাহ উদ্দিন, নুর-ই-আলম, নাজমুল হুসাইন, কমলেশ মন্ডল, শাহরিয়ার জামিল, জাহাঙ্গীর আলম, রাশেদুল ইসলাম, আলমগীর হোসেন, এরশাদ মিয়া, খায়রুল হক, আনোয়ার হোসেন, আবু সাঈদ ও উপপরিচালক ফজলুল বারী। কার্যকরী সদস্যদের মধ্যে আরও রয়েছেন- সহকারী পরিচালক ফাতেমা সরকার নুরজাহান পারভীন, মাহফুজ ইকবাল, খন্দকার নিলুফা জাহান, শোয়েব হোসেন, ফয়সাল কাদের, এনামুল হক, নূর আলম, জিন্নাতুল ইসলাম, আজমেরী খানম, আখতারুজ্জামান, বুলু মিয়া, আমির হোসাইন ও কোর্ট পরিদর্শক আমির হোসেন।

এর আগে গত ২০ ফেব্রুয়ারি ১২১ সদস্য বিশিষ্ট দুদক সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন গঠিত হয়। বর্তমান ইস্যুসহ দুদক কর্মকর্তাদের সুবিধা-অসুবিধা ও কল্যাণে অ্যাসোসিয়েশন কাজ করবে। ওই দিনই দুর্নীতি দমন কমিশনের পক্ষ থেকে ৫৪(২) বিধির বিষয়ে আপিল বিভাগে যে রিভিশন করা হয়েছে সেটি প্রত্যাহারের মাধ্যমেই বাতিলের কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা সম্ভব।

এর আগে ১৬ ফেব্রুয়ারি দুদক চেয়ারম্যান মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহর সই করা এক প্রজ্ঞাপনে বরখাস্ত করা দুদকের উপসহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিনকে অপসারণ করা হয়। পরের দিন কমিশনের প্রধান কার্যাখলয়সহ ২১ জেলায় দুদকের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা ওই বিধি বাতিল ও অপসারণের আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন করে। এর প্রেক্ষাপটে দুদক সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের যাত্রা শুরু হয়।