দীর্ঘ অপেক্ষার পর এসএসসি পরীক্ষা, প্রস্তুতি সম্পন্ন

দীর্ঘ অপেক্ষার পর অবশেষে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট/সমমানের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আগামী বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) থেকে শুরু হবে এ পরীক্ষা। দেশের সর্ববৃহৎ এ পরীক্ষায় ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছেন। তবে করোনার প্রকোপ ও দেশজুড়ে বন্যার কারণে এবারের এসএসসি/সমমানের পরীক্ষায় বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর।

মাউশি জানিয়েছে, এবারে এসএসসি/সমমানের পরীক্ষা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে অনুষ্ঠিত হবে। ২ ঘণ্টায় এবারের পরীক্ষা নেওয়া হবে। এছাড়া এবারের এসএসসি পরীক্ষা সকাল ১১টা থেকে শুরু হবে, রাজধানী ও বিভাগীয় শহরগুলোর যানজট পরিস্থিতি বিবেচনায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পরীক্ষা শেষে ৬০ দিনের মধ্যেই ফল ঘোষণা হবে।

এদিকে এসএসসি ও ভোকেশনালের লিখিত পরীক্ষা আগামী ১ অক্টোবর এবং মাদরাসার ৩ অক্টোবরের মধ্যেই শেষ হবে। তবে ১০ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবরের মধ্যে ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

প্রকাশিত রুটিন অনুযায়ী, এবার ১৫ সেপ্টেম্বর বাংলা (আবশ্যিক) প্রথমপত্র, সহজ বাংলা প্রথমপত্র; ১৭ সেপ্টেম্বর বাংলা (আবশ্যিক) দ্বিতীয়পত্র, সহজ বাংলা দ্বিতীয়পত্র; ১৯ সেপ্টেম্বর ইংরেজি (আবশ্যিক) প্রথমপত্র, ২০ সেপ্টেম্বর ইংরেজি (আবশ্যিক) দ্বিতীয়পত্র, ২২ সেপ্টেম্বর গণিত।

২৪ সেপ্টেম্বর বিজ্ঞান বিভাগের পদার্থ বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়), মানবিকের বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা এবং বাণিজ্য বিভাগের ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং; পরদিন ২৫ সেপ্টেম্বর গার্হস্থ্য বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়), কৃষি শিক্ষা, সংগীত, আরবি, সংস্কৃত, পালি, শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া, চারু ও কারুকলা (তত্ত্বীয়)।

এছাড়া ২৬ সেপ্টেম্বর বিজ্ঞান শাখার রসায়ন (তত্ত্বীয়), মানবিকের পৌরনীতি ও নাগরিকতা এবং বাণিজ্য শাখার ব্যবসায় উদ্যোগ, পরদিন মানবিক শাখার ভূগোল ও পরিবেশ, ২৮ সেপ্টেম্বর বিজ্ঞান শাখার জীববিজ্ঞান (তত্ত্বীয়) ও মানবিকের অর্থনীতি, ২৯ সেপ্টেম্বর হিসাববিজ্ঞান এবং ১ অক্টোবর উচ্চতর গণিত (তত্ত্বীয়) পরীক্ষার মাধ্যমে এসএসসি পরীক্ষা শেষ করা হবে।

এদিকে এবার বিকেলে কোনো পরীক্ষা আয়োজন করা হবে না। এমসিকিউ পরীক্ষার সময় ২০ মিনিট এবং রচনামূলক পরীক্ষার সময় ১ ঘণ্টা ৪০ মিনিট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে পরীক্ষা নেওয়া হবে। প্রশ্নফাঁস ও গুজব ঠেকাতে গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হবে। পরীক্ষা কেন্দ্রে কেউ মোবাইল ব্যবহার করতে পারবে না। শুধু কেন্দ্র সচিব বাটন মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন। পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে প্রশ্নের সেট কোড ঘোষণা করা হবে। দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেট সরকারি কর্মকর্তার উপস্থিতিতে কেন্দ্র সচিব ও পুলিশ কর্মকর্তার স্বাক্ষরে প্রশ্নপত্রের প্যাকেট খোলা হবে।

বেলা ১১টায় পরীক্ষা শুরু

যানজট বিবেচনায় বেলা ১১টায় এবার পরীক্ষা শুরু হবে। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা শুরুর কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে। অনিবার্য কারণে কোনো পরীক্ষার্থীকে প্রবেশ করতে দিলে পরীক্ষার্থীর নাম, রোল নম্বর, দেরির কারণ নিবন্ধন খাতায় লিপিবদ্ধ করে ওই দিনই সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ডে পাঠিয়ে দিতে হবে।

কমেছে পরীক্ষার্থী

এবার ২ লাখ ২১ হাজার ৩৮৬ জন এসএসসি ও সমমানে পরীক্ষার্থী কমেছে। এর আগে, ২০২১ সালে ২২ লাখ ৪৩ হাজার ২৫৪ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় বসেছিল।

কোন বোর্ডে কত পরীক্ষার্থী

এবার সারাদেশে ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন শিক্ষার্থী আসন্ন এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় বসবে। এর মধ্যে- ছাত্র ১০ লাখ ৯ হাজার ৫১১ জন আর ছাত্রী ১০ লাখ ১২ হাজার ৩৫৭ জন। এছাড়া ৯টি সাধারণ শিক্ষাবোর্ডে ১৫ লাখ ৯৯ হাজার ৭১১ জন শিক্ষার্থী, দাখিলে ২ লাখ ৬৮ হাজার ৪৯৫ জন শিক্ষার্থী, ভোকেশনালে ১ লাখ ৫৩ হাজার ৬৬২ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় বসবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, এবছর ঢাকা বোর্ড থেকে ৩ লাখ ৯৪ হাজার ৯৯৮ জন শিক্ষার্থী, রাজশাহী বোর্ড থেকে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৬০০ জন শিক্ষার্থী, কুমিল্লা বোর্ড থেকে ১ লাখ ৮৮ হাজার ৭১৪ জন শিক্ষার্থী, যশোর বোর্ড থেকে ১ লাখ ৭০ হাজার ৩৭৭ জন শিক্ষার্থী, চট্টগ্রাম বোর্ড থেকে ১ লাখ ৪৯ হাজার ৭১০ জন শিক্ষার্থী, বরিশাল বোর্ড থেকে ৯৫ হাজার ৯৭৬ জন শিক্ষার্থী, সিলেট বোর্ড থেকে ১ লাখ ১৬ হাজার ৪২৭ জন শিক্ষার্থী, দিনাজপুর বোর্ড থেকে ১ লাখ ৭৩ হাজার ৯৬১ জন শিক্ষার্থী আর ময়মনসিংহ বোর্ড থেকে ১ লাখ ১২ হাজার ৯৪৮ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবেন।

এছাড়া পরীক্ষার্থীদের মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগের ৫ লাখ ৮ হাজার ২৩৬ জন, মানবিক বিভাগের ৭ লাখ ৯০ হাজার ৯১ জন আর ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের ৩ লাখ ১ হাজার ৩৮৪ জন।

পরীক্ষার চলাকালে রাজনৈতিক কর্মসূচি নয়

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এসএসসি পরীক্ষা চলাকালীন কোনো ধরনের রাজনৈতিক কর্মসূচি না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। মন্ত্রী বলেন, আমরা রাজনীতি করি আমাদের সন্তানদের জন্য। যে কাজ তাদের কল্যাণ হবে না, সেটি আমরা করতে পারি না। আমাদের শিক্ষার্থীরা আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। তাদের মঙ্গলের জন্য সকল রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড থেকে সকল দলকে বিরত থাকতে আহ্বান জানান তিনি।