The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
সোমবার, ৪ঠা মার্চ, ২০২৪

ঢাবিতে বঙ্গবন্ধু শিক্ষাবৃত্তি পেল ১০০ শিক্ষার্থী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) “বঙ্গবন্ধু শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩” প্রদান করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ১০০ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও নাতি-নাতনীদের এনআরবিসি ব্যাংকের সৌজন্যে এই শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়।

মঙ্গলবার (৩০ মে) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ আয়োজিত এক অনুষ্ঠা তাদের হাতে এই শিক্ষাবৃত্তির অর্থ তুলে দেওয়া হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ১০০ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মদের হাতে এনআরবিসি ব্যাংকের এটিএম কার্ড তুলে দেন অনুষ্ঠানের অতিথিরা। বৃত্তিপ্রাপ্ত প্রত্যেকটি শিক্ষার্থীর নামে খোলা ব্যাংক অ্যাকাউন্টের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও এটিএম কার্ড প্রদানের মাধ্যমে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়।

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক আল মামুনের সঞ্চালনায় সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এনআরবিসি ব্যাংকের চেয়ারম্যান এসএম পারভেজ তমাল প্রমুখ।

অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধারা দেশ ও জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাঁদের ঋণ কখনো শোধ হওয়ার নয়। তাঁদের সন্তান ও প্রজন্মকে এনআরবিসি ব্যাংকের সৌজন্যে শিক্ষাবৃত্তি প্রদানের উদ্যোগকে আমি সাধুবাদ জানাই।

এনআরবিসি ব্যাংকের চেয়ারম্যান এস এম পারভেজ তমাল বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ১০০ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মকে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করতে পেরে আমরা অনেক গর্বিত। এনআরবিসি ব্যাংক সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে দেশের মানুষের কল্যাণে নানাবিধ কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে।  ভবিষ্যতে আমরা আরো অনেক শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়াবো।

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য এনআরবিসি ব্যাংকের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। এনআরবিসি ব্যাংকের মতো প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠানকে সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে এ ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করা উচিত।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. উদ্যোক্তা ও সফলতার গল্প
  3. ঢাবিতে বঙ্গবন্ধু শিক্ষাবৃত্তি পেল ১০০ শিক্ষার্থী

ঢাবিতে বঙ্গবন্ধু শিক্ষাবৃত্তি পেল ১০০ শিক্ষার্থী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) "বঙ্গবন্ধু শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩" প্রদান করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ১০০ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও নাতি-নাতনীদের এনআরবিসি ব্যাংকের সৌজন্যে এই শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়।

মঙ্গলবার (৩০ মে) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ আয়োজিত এক অনুষ্ঠা তাদের হাতে এই শিক্ষাবৃত্তির অর্থ তুলে দেওয়া হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ১০০ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মদের হাতে এনআরবিসি ব্যাংকের এটিএম কার্ড তুলে দেন অনুষ্ঠানের অতিথিরা। বৃত্তিপ্রাপ্ত প্রত্যেকটি শিক্ষার্থীর নামে খোলা ব্যাংক অ্যাকাউন্টের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও এটিএম কার্ড প্রদানের মাধ্যমে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়।

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক আল মামুনের সঞ্চালনায় সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এনআরবিসি ব্যাংকের চেয়ারম্যান এসএম পারভেজ তমাল প্রমুখ।

অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধারা দেশ ও জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাঁদের ঋণ কখনো শোধ হওয়ার নয়। তাঁদের সন্তান ও প্রজন্মকে এনআরবিসি ব্যাংকের সৌজন্যে শিক্ষাবৃত্তি প্রদানের উদ্যোগকে আমি সাধুবাদ জানাই।

এনআরবিসি ব্যাংকের চেয়ারম্যান এস এম পারভেজ তমাল বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ১০০ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মকে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করতে পেরে আমরা অনেক গর্বিত। এনআরবিসি ব্যাংক সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে দেশের মানুষের কল্যাণে নানাবিধ কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে।  ভবিষ্যতে আমরা আরো অনেক শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়াবো।

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য এনআরবিসি ব্যাংকের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। এনআরবিসি ব্যাংকের মতো প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠানকে সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে এ ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করা উচিত।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন