টাকার বিনিময়ে প্রাথমিকে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখালে থানায় দিন: ডিজি

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার। পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে ইতোমধ্যে একাধিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। শিক্ষক বাছাইয়ে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে এই প্রথমবারের মতো উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হলো।

আজ সোমবার (১৮ এপ্রিল) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম বলেন, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রম সম্পূর্ণ স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতার সাথে সম্পন্ন করা হয়। কেউ অর্থের বিনিময়ে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখালে তাকে নিকটস্থ থানায় সোপর্দ করুন।

আগামী ২২ এপ্রিল প্রথম দফায় ১১টি জেলায় সহকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা ২০ মে এবং তৃতীয় বা শেষ ধাপের পরীক্ষা ২৭ মে অনুষ্ঠিত হবে।

তিন ধাপে অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় ৪৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। সকল ধাপে নির্ধারিত দিন সকাল বেলা ১১টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত এক ঘণ্টার লিখিত পরীক্ষা জেলা পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে গত ১২ এপ্রিল পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।