The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
রবিবার, ১৬ই জুন, ২০২৪

জাবিতে ‘হুইসেলব্লোয়িং’ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

জাবি প্রতিনিধিঃ ইএমকে সেন্টারের অর্থায়নে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ‘স্টুডেন্ট’স অ্যাটিচিউড অন হুইসেলব্লোয়িং; অ্যাওয়ারনেস, প্রোগ্রেস অ্যান্ড চ্যালেঞ্জেস অব ইমপ্লিমেন্টেশন অ্যাট দ্য পাবলিক সেক্টরস ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার (২১ মে) সকাল সাড়ে ৯টায় সমাজবিজ্ঞান অনুষদে দিনব্যাপী এই কর্মশালার উদ্বোধন করেন সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক বশির আহমেদ।

কর্মশালায় বক্তারা বলেন, সামাজিক অন্যায় ও অবিচার রোধ করতে কাউকে না কাউকে রুখে দাঁড়াতেই হয়। স্বাভাবিক স্রোতের বিপরীতে দাঁড়িয়ে পরিবর্তনের জন্য কথা বলাই হুইসেলব্লোয়িং। কর্মশালায় বিভিন্ন সেশনে হুইসেল ব্লোয়িংয়ের উপায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হুইসেল ব্লোয়িং এবং হুইসেল ব্লোয়িংয়ের গুরুত্ব বিষয়ে আলোকপাত করেন সরকার ও রাজনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. নুরুল হুদা সাকিব, মোহাম্মদ সাজেদুর রহমান এবং সিরাজগঞ্জ ইসলামিয়া সরকারি কলেজের প্রভাষক ফয়সাল জামান শিশির।

ওয়ার্কশপের উদ্বোধনী সেশনে সরকার ও রাজনীতি বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ড. নাসিম আখতার হোসাইন বলেন, ‘তরুণরা সমাজের প্রাণশক্তি। তারা যদি যেকোন পরিস্থিতিতে অন্যায়, অনিয়মের বিরুদ্ধে আওয়াজ তোলে এবং সে আওয়াজ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে সক্ষম হয় তবে শত বাধা সত্বেও তারা কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবে। এ ধরনের হুইসেলব্লোয়িং প্রোগ্রামের মাধ্যমে তরুণদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি হয় যা কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জনে সহায়ক হবে।’

ওয়ার্কশপের প্রকল্প পরিচালক ড. নুরুল হুদা সাকিব বলেন, তরুণরা দেশের ভবিষ্যৎ। হুইসেলব্লোয়িং প্রোগ্রাম সম্পর্কে খুব কম তরুণই জানে। আমাদের এই ওয়ার্কশপের মাধ্যমে তরুণদেরকে এ সম্পর্কে জানাতে চাই এবং সুসংহত সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে চাই। এই ওয়ার্কশপের মাধ্যমে প্রতিবাদের প্রকৃত পদ্ধতি এবং তাদের সুরক্ষার জন্য যে আইন রয়েছে তা জানানোর মধ্য দিয়ে তরুণদের মধ্যে নেতৃত্বের গুণাবলি বিকশিত হবে। এতে সমাজে বিদ্যমান অনিয়ম ও দুর্নীতির চর্চা কিছুটা হলেও দূরীভূত হবে বলে আশা রাখি।’

এসময় অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন আইন অনুষদের ডিন ও বিভাগীয় সভাপতি তাপস কুমার দাস, সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. শামছুল আলম, সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম, মো. ইখতিয়ার উদ্দিন ভূঁইয়া, সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. শাহেদুর রশিদ, অধ্যাপক উবাইদুর রহমান সিদ্দিকী, অধ্যাপক খন্দকার হাসান মাহমুদ, লোক—প্রশাসন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মো. নুরুল আমিন, অধ্যাপক জেবউননেছা, অর্থনীতি বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক খন্দকার মো. আশরাফুল মুনিম, প্রভাষক ইসতিয়াক রায়হান প্রমুখ।

উল্লেখ্য, সহযোগী অধ্যাপক নুরুল হুদা সাকিব ইএমকে সেন্টারের অর্থায়নে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য ওয়ার্কশপটির আয়োজন করেছেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়াও ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ব
বিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস মোট ১২টি পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে এ সম্পর্কিত ১২ টি ওয়ার্কশপ পর্যায়ক্রমে অনুষ্ঠিত হবে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.