The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪

জাবিতে চাকুরী স্থায়ীকরনের দাবীতে মানববন্ধন

জাবি প্রতিনিধিঃ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) চাকুরী স্থায়ী করনের দাবীতে মানববন্ধন করেছে ‘দৈনিক মজুরি’ ভিত্তিতে কর্মরত অস্থায়ী কর্মচারীরা। আজ সোমবার বেলা ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন রেজিস্ট্রার ভবনের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। পরবর্তীতে বেলা ১২ টা ৪৫ এ উপাচার্য বরাবর স্বারক লিপি প্রদান করেন।

মানববন্ধনে সুফিয়া কামাল হলের ডাইনিং গার্ল নুরুন্নাহার বলেন, ‘কারো বিরুদ্ধে আমাদের অভিযোগ নেই। আমাদের একটাই দাবী আমাদের চাকুরী স্থায়ী করন করতে হবে। আমরা যেন ফ্যামিলি নিয়ে চলতে পারি। ডেইলি বেসিসে কাজ করে বর্তমান সময়ে ১০/১২ হাজার টাকায় পরিবার নিয়ে চলতে পারছি না। বাচ্চাদের লেখাপড়ার খরচ ঠিকমতো চালাতে পারছি না। আমি প্রীতিলতা হলে ১৯ বছর এবং সুফিয়া কামাল হলে ৭ বছর ধরে ডাইনিং গার্ল হিসেবে কাজ করছি। আমরা এই বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য’ই কাজ করি। বিনিময়ে এ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কি কিছুই পাব না?’

শেখ হাসিনা হলের মালি মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, ‘আমি ৯ বছর ধরে আছি শেখ হাসিনা হলে কাজ করছি। আমাদের এক দফা এক দাবি, আমাদের চাকুরী স্থায়ীকরণ করা হোক। আগে ট্রেজারার ম্যাম বলেছিলেন, নতুন হল উদ্বধোন করার সময় আমাদের সিনিয়র এর উপর ভিত্তি করে নিয়োগ দেওয়া হবে। কিন্তু বর্তমানে আমাদের নতুন হলে চাকুরী দেওয়া হবে না। বর্তমান বাজারে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্ব গতির সাথে তাল মিলিয়ে ছেলে মেয়েদের পড়াশোনা করাতে কষ্ট হয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘ডেইলি বেসিসে কর্মচারী হওয়ায় ইদ বোনাস, বিশেষ বিশেষ দিনে ছুটি পাই না।’

উল্লেখ্য, গত ২৪ নভেম্বর দৈনিক মজুরী ভিত্তিক কর্মচারীদের চাকুরী স্থায়ী করণের দাবীতে স্বারকলিপি প্রদান করা হয়। এর আগে ২৪ ফেব্রুয়ারিতে একই দাবীতে মানববন্ধন হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক রাশেদা আখতার অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চাকুরী স্থায়ীকরণের আশ্বাস দেন।’

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. ক্যাম্পাস
  3. জাবিতে চাকুরী স্থায়ীকরনের দাবীতে মানববন্ধন

জাবিতে চাকুরী স্থায়ীকরনের দাবীতে মানববন্ধন

জাবি প্রতিনিধিঃ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) চাকুরী স্থায়ী করনের দাবীতে মানববন্ধন করেছে 'দৈনিক মজুরি' ভিত্তিতে কর্মরত অস্থায়ী কর্মচারীরা। আজ সোমবার বেলা ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন রেজিস্ট্রার ভবনের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। পরবর্তীতে বেলা ১২ টা ৪৫ এ উপাচার্য বরাবর স্বারক লিপি প্রদান করেন।

মানববন্ধনে সুফিয়া কামাল হলের ডাইনিং গার্ল নুরুন্নাহার বলেন, 'কারো বিরুদ্ধে আমাদের অভিযোগ নেই। আমাদের একটাই দাবী আমাদের চাকুরী স্থায়ী করন করতে হবে। আমরা যেন ফ্যামিলি নিয়ে চলতে পারি। ডেইলি বেসিসে কাজ করে বর্তমান সময়ে ১০/১২ হাজার টাকায় পরিবার নিয়ে চলতে পারছি না। বাচ্চাদের লেখাপড়ার খরচ ঠিকমতো চালাতে পারছি না। আমি প্রীতিলতা হলে ১৯ বছর এবং সুফিয়া কামাল হলে ৭ বছর ধরে ডাইনিং গার্ল হিসেবে কাজ করছি। আমরা এই বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য'ই কাজ করি। বিনিময়ে এ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কি কিছুই পাব না?'

শেখ হাসিনা হলের মালি মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, 'আমি ৯ বছর ধরে আছি শেখ হাসিনা হলে কাজ করছি। আমাদের এক দফা এক দাবি, আমাদের চাকুরী স্থায়ীকরণ করা হোক। আগে ট্রেজারার ম্যাম বলেছিলেন, নতুন হল উদ্বধোন করার সময় আমাদের সিনিয়র এর উপর ভিত্তি করে নিয়োগ দেওয়া হবে। কিন্তু বর্তমানে আমাদের নতুন হলে চাকুরী দেওয়া হবে না। বর্তমান বাজারে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্ব গতির সাথে তাল মিলিয়ে ছেলে মেয়েদের পড়াশোনা করাতে কষ্ট হয়।'

তিনি আরো বলেন, 'ডেইলি বেসিসে কর্মচারী হওয়ায় ইদ বোনাস, বিশেষ বিশেষ দিনে ছুটি পাই না।'

উল্লেখ্য, গত ২৪ নভেম্বর দৈনিক মজুরী ভিত্তিক কর্মচারীদের চাকুরী স্থায়ী করণের দাবীতে স্বারকলিপি প্রদান করা হয়। এর আগে ২৪ ফেব্রুয়ারিতে একই দাবীতে মানববন্ধন হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক রাশেদা আখতার অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চাকুরী স্থায়ীকরণের আশ্বাস দেন।'

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন