The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

জবিতে ৪র্থ আবৃত্তি উৎসব অনুষ্ঠিত

সাকিবুল ইসলাম, জবিঃ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি সংসদের (জবিআস) আয়োজনে চতুর্থ আবৃত্তি উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। আবৃত্তি পরিবেশনা, গান, কবি সম্মাননা ও সনদ প্রদানের মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

বুধবার (৯ নভেম্বর) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যায়লয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ইমদাদুল হক।

এসময় উপাচার্য বলেন, ‘সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডকে উৎসাহিত না করলে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়া সম্ভব হবে না। তাই সাংস্কৃতিক সংঘটনগুলোকে পৃষ্ঠপোষকতা করতে হবে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়েও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো সাংস্কৃতিক অঙ্গনকে এগিয়ে নিতে কাজ করে যাচ্ছে। করোনা মহামারীর কারণে তাদের কার্যক্রম কিছুটা ব্যাহত হয়েছিলো। এখন তারা পুরোদমে তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের একটা ঐতিহ্য আছে, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডেও আমরা পিছিয়ে থাকবো না। আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছি সব কর্মকাণ্ডে যেন এগিয়ে যেতে পারি।’

সংসদের সভাপতি মোহাম্মদ জহির উদ্দীনের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক আন্যনমা নাসুহা নুহিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস, বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজহারুল হক আজাদ এবং ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মহিউদ্দীন।

অনুষ্ঠানে জাতীয় কবিতা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক কবি তারেক সুজাতকে ‘কবি সম্মাননা’ দেওয়া হয়। এছাড়াও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি সংসদের আঠারোতম কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে স্মারক, সনদ এবং বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. ক্যাম্পাস
  3. জবিতে ৪র্থ আবৃত্তি উৎসব অনুষ্ঠিত

জবিতে ৪র্থ আবৃত্তি উৎসব অনুষ্ঠিত

সাকিবুল ইসলাম, জবিঃ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি সংসদের (জবিআস) আয়োজনে চতুর্থ আবৃত্তি উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। আবৃত্তি পরিবেশনা, গান, কবি সম্মাননা ও সনদ প্রদানের মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

বুধবার (৯ নভেম্বর) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যায়লয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ইমদাদুল হক।

এসময় উপাচার্য বলেন, 'সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডকে উৎসাহিত না করলে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়া সম্ভব হবে না। তাই সাংস্কৃতিক সংঘটনগুলোকে পৃষ্ঠপোষকতা করতে হবে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়েও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো সাংস্কৃতিক অঙ্গনকে এগিয়ে নিতে কাজ করে যাচ্ছে। করোনা মহামারীর কারণে তাদের কার্যক্রম কিছুটা ব্যাহত হয়েছিলো। এখন তারা পুরোদমে তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের একটা ঐতিহ্য আছে, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডেও আমরা পিছিয়ে থাকবো না। আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছি সব কর্মকাণ্ডে যেন এগিয়ে যেতে পারি।'

সংসদের সভাপতি মোহাম্মদ জহির উদ্দীনের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক আন্যনমা নাসুহা নুহিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস, বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজহারুল হক আজাদ এবং ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মহিউদ্দীন।

অনুষ্ঠানে জাতীয় কবিতা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক কবি তারেক সুজাতকে ‘কবি সম্মাননা’ দেওয়া হয়। এছাড়াও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি সংসদের আঠারোতম কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে স্মারক, সনদ এবং বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন