The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
সোমবার, ২৪শে জুন, ২০২৪

চুয়েট শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় বাসচালক গ্রেফতার

চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কে চুয়েটের দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় ঘাতক শাহ আমানত বাসের চালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম নগরী থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়৷ তার নাম তাজুল ইসলাম (৪৮)।

চালক গ্রেফতারের বিষয়ে শিক্ষার্থীদের অবহিত করা হলে তারা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তবে বাকি দাবিগুলো বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবেন বলে জানান তারা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাঙ্গুনিয়া মডেল থানার ওসি চন্দন কুমার চক্রবর্তী জানান, ঘাতক বাস চালককে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে চট্টগ্রাম মহানগর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। চুয়েট শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় তাকে এবং বাসের হেল্পারকে বিবাদী করে সড়ক দুর্ঘটনা আইনে মামলা দায়ের হয়েছিল। এই মামলায় চালককে আইনি প্রক্রিয়া শেষে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে।

এদিকে এই ঘটনায় তৃতীয় দিনের মতো চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করছেন চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। গতকাল ৯ দফা দাবির কথা বলা হলেও তার সঙ্গে আরও এক দফা দাবি যোগ করেছেন তারা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলছেন তাদের দেওয়া এই ১০ দফা দাবি না মানা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন তারা। এছাড়া চলমান আন্দোলন নিয়ে কটূক্তি করা হয়েছে- এমন দাবিতে চুয়েটের এক শিক্ষকেরও ওপর চটেছে শিক্ষার্থীরা। ওই শিক্ষকের অপসারণের দাবি করছেন শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য, গত সোমবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে কাপ্তাই সড়কের রাঙ্গুনিয়ার সেলিমা কাদের কলেজ গেট এলাকায় মোটরসাইকেলে ঘুরতে বেরিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হন চুয়েটের তিন শিক্ষার্থী। দ্রুতগতির শাহ আমানত পরিবহণের একটি বাস শিক্ষার্থীদের মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলে মারা যান চুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শান্ত সাহা। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান একই বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী তৌফিক হোসাইন। এ ঘটনায় আহত হন জাকারিয়া হিমু। তিনি চুয়েটের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। বর্তমানে তিনি এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.