The Rising Campus
News Media
বৃহস্পতিবার, ২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ক্ষেত্রে কাটল আইনি জটিলতা

চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ক্ষেত্রে ১৩তম নিবন্ধনধারীদের রিট সংক্রান্ত আইনি জটিলতা কেটেছে। এখন ইনডেক্সধারীদের  রিটের সুরাহা হলেই গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ)।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এনটিআরসিএ’র উপপরিচালক (আইন ও আইসিটি) মো. সিদ্দিকুর রহমান তালুকদার রাইজিং ক্যাম্পাসকে বলেন, ‘‘১৩তম নিবন্ধনধারীদের করা রিটের উপর আদালত স্থগিতাদেশ দিয়েছেন।”

এনটিআরসিএ সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১৩তম নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণরা একক নিয়োগের দাবিতে আদালতে রিট করেন। রিটের শুনানি শেষে আদালত রিটকারীদের নিয়োগের নির্দেশ দেন। এ বিষয়ে রিভিউ আবেদন করে এনটিআরসিএ। এনটিআরসিএ’র আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত ১৩তম নিবন্ধনধারীদের পক্ষে দেওয়া রায়টি স্থগিত করেছে।

জানা যায় ১৩তম নিবন্ধনধারীরা পৃথক পৃথকভাবে প্রায় ১০টি রিট করেছিলেন। সবগুলোতেই আদালত স্থগিতাদেশ দিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এনটিআরসিএ’র এক কর্মকর্তা রাইজিং ক্যাম্পাসকে জানান, ১৩তম নিবন্ধনধারীদের রিটে স্থগিতাদেশ আসলেও ইনডেক্সধারী শিক্ষকরা আবেদনের সুযোগ চেয়ে রিট করেছেন। এই রিটের ওপর স্থগিতাদেশ পেলে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশে আর কোনো বাঁধা থাকবে না বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।

আবেদনের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হওয়ার শঙ্কা থেকে ইনডেক্সধারী শিক্ষকদের পক্ষে মো. উজ্জল নামে এক ইনডেক্সধারী শিক্ষক এই রিটটি দায়ের করেছেন।

জানা গেছে, চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে কেবলমাত্র ফ্রেশারদের নিয়োগ দিতে চায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সেজন্য বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালার ৭.০ ধারার কার্যকারিতা সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। এই ধারার বদৌলতে এতদিন ইনডেক্সধারী শিক্ষকরা গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদনের সুযোগ পেয়েছেন।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. জব সার্কুলার
  3. চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ক্ষেত্রে কাটল আইনি জটিলতা

চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ক্ষেত্রে কাটল আইনি জটিলতা

চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ক্ষেত্রে ১৩তম নিবন্ধনধারীদের রিট সংক্রান্ত আইনি জটিলতা কেটেছে। এখন ইনডেক্সধারীদের  রিটের সুরাহা হলেই গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ)।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এনটিআরসিএ’র উপপরিচালক (আইন ও আইসিটি) মো. সিদ্দিকুর রহমান তালুকদার রাইজিং ক্যাম্পাসকে বলেন, ‘‘১৩তম নিবন্ধনধারীদের করা রিটের উপর আদালত স্থগিতাদেশ দিয়েছেন।”

এনটিআরসিএ সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১৩তম নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণরা একক নিয়োগের দাবিতে আদালতে রিট করেন। রিটের শুনানি শেষে আদালত রিটকারীদের নিয়োগের নির্দেশ দেন। এ বিষয়ে রিভিউ আবেদন করে এনটিআরসিএ। এনটিআরসিএ’র আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত ১৩তম নিবন্ধনধারীদের পক্ষে দেওয়া রায়টি স্থগিত করেছে।

জানা যায় ১৩তম নিবন্ধনধারীরা পৃথক পৃথকভাবে প্রায় ১০টি রিট করেছিলেন। সবগুলোতেই আদালত স্থগিতাদেশ দিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এনটিআরসিএ’র এক কর্মকর্তা রাইজিং ক্যাম্পাসকে জানান, ১৩তম নিবন্ধনধারীদের রিটে স্থগিতাদেশ আসলেও ইনডেক্সধারী শিক্ষকরা আবেদনের সুযোগ চেয়ে রিট করেছেন। এই রিটের ওপর স্থগিতাদেশ পেলে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশে আর কোনো বাঁধা থাকবে না বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।

আবেদনের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হওয়ার শঙ্কা থেকে ইনডেক্সধারী শিক্ষকদের পক্ষে মো. উজ্জল নামে এক ইনডেক্সধারী শিক্ষক এই রিটটি দায়ের করেছেন।

জানা গেছে, চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে কেবলমাত্র ফ্রেশারদের নিয়োগ দিতে চায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সেজন্য বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালার ৭.০ ধারার কার্যকারিতা সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। এই ধারার বদৌলতে এতদিন ইনডেক্সধারী শিক্ষকরা গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদনের সুযোগ পেয়েছেন।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন