The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪

খুবির স্বপ্নবাজ শরিফুল এখন একজন সফল উদ্যোক্তা

খুবি প্রতিনিধি: সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে তরুণ উদ্যোক্তা শরিফুল ইসলাম ব্যবসা করে যাচ্ছেন । সফল কাজ করার জন্য কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন এবং সৎতার সাথে ভোক্তাদের চাহিদার অনুযায়ী বাজারে নিজের জায়গা করে নিতে পেরেছেন এবং খুব ভালো ফিডব্যাক পাচ্ছেন।

শরিফুল ইসলাম। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় (খুবি) থেকে স্নাতক শেষ করে, এখন স্নাতকোত্তর করছেন। তাঁর উদ্যোক্তা জীবন শুরু, বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষ (২০১৯) থেকে।

কেন উদ্যোক্তা হওয়ার ইচ্ছা হলো?
আমি ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন দেখতাম, আমার নিজের কয়েকটি গার্মেন্টস,মিল- কারখানা থাকবে। যেখানে অনেকের কর্মসংস্থান তৈরি করব।

বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার পাশাপাশি, কিভাবে সময় বের করেন এ উদ্যোগে?
বিশেষ করে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়েের একজন শিক্ষার্থী পড়াশোনার বাইরে অতিরিক্ত কিছু করার সময় পাই না। তবুও কথায় আছে, “ইচ্ছে থাকলে উপায় হয়”। আমার ইচ্ছাশক্তিই আমাকে সময় বের করে দেয়

আসলে আপনি কি কি প্রডাক্ট নিয়ে কাজ করেন?
আমার বিজনেস মূলত বয়ে’স গার্মেন্টস পোশাক নিয়ে। এর পাশাপাশি, সিজোনাল খাবার যেমন: আম ও খেজুরের গুড়।

এখন তো আমের সময়,কেমন সাড়া পাচ্ছেন?
সত্যো কথা বলতে খুবই ভালো সাড়া পাচ্ছি। প্রতিদিন গড়ে ৮ মণ আমের অর্ডার পাই। মূলত আমার ফেইসবুক পেজ “যোজক ফুডশপ” ও গ্রুপ “যোজক” নামে অনলাইন প্লাটফর্ম থেকে অনেক ভালো সাড়া পাচ্ছি। তাছাড়া আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা প্লাটফর্ম থেকেও অনেক অর্ডার পেয়ে থাকি৷ আমি বাংলাদেশের বৃহত্তম কয়েকটি উদ্যোক্তা প্লাটফর্মে যুক্ত আছি, সেখান থেকেও অনেক অর্ডার পেয়ে থাকি। সরাসরি গাছ থেকে সংগ্রহ ও ক্যেমিক্যালমুক্ত পন্য, বিপনন কার্যক্রমে ক্রেতারা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। সত্য ও সুন্দর ভাবে কাজ করছি, যার জন্য ক্রেতাদের থেকে ফিডব্যাক খুবই ভালো পাচ্ছি।

তরুণদের উদ্দেশ্যে কি বলবেন?
মাদক মুক্ত থাকো, নিজেকে সুস্থ রাখো। এমন একটা প্রফেশনাল বেছে নাও যেটা তুমি ভালো বুঝো এবং তুমি নিজে উপভোগ করো যেটা হবে তোমার জন্য, তোমার পরিবার, সমাজ, এবং দেশের জন্য। সর্বোপরি তুমি তোমাকে একজন সফল উদ্যোক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করো।

আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?
আমি স্বপ্ন দেখি একদিন নিজের গার্মেন্টস থাকবে প্রতিটি জেলায়। প্রতিটি জেলায় থাকবে আম ও খেজুর গুড়ের “যোজক ফুডশপ “। আমার ইচ্ছা আছে ২০০০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান তৈরি করা। আর ব্যবসায়ের লভ্যাংশ থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা দিয়ে তৈরি করতে চাই বিশ্বব্যাপী “যোজক শিক্ষা সংস্থা”

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.