The Rising Campus
News Media

কিউএস র‌্যাঙ্কিং : সেরা ৬০০-তে স্থান পেলো ঢাবি

যুক্তরাজ্যভিত্তিক শিক্ষা ও গবেষণা সংস্থা কোয়াককোয়ারেলি সায়মন্ডসের (কিউএস) ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিং সাসটেইনিবিলিটি-২০২৩ প্রকাশিত হয়েছে। এতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অবস্থান ৫৫১-৬০০ এর ভিতর। আর ৬০০+ অবস্থানে আছে বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)। গতকাল বুধবার (২৬ অক্টোবর) এই র‌্যাঙ্কিং প্রকাশিত হয়।

র‌্যাঙ্কিং ঘেঁটে দেখা যায়, ১০০ নম্বরের সাসটেইনেবল ইন্সটিটিউশনসে ২৯.৭, সাসটেইনেবল এডুকেশনে ১০০ এর মধ্যে ৩৭ ও সাসটেইনেবল রিসার্চে ১০০ এর মধ্যে ২ পেয়ে ঢাবি আছে ৫৫১-৬০০ তম অবস্থানে। অন্যদিকে একই ক্যাটাগরিগুলোতে যথাক্রমে ৭.৮, ৩০.৫ ও ৩.৫ পেয়ে ৬০০+ অবস্থানে আছে বুয়েট।

এবারের তালিকায় সাসটেইনেবল ইন্সটিটিউশনসে ১০০, সাসটেইনেবল এডুকেশনে ১০০ ও সাসটেইনেবল রিসার্চে ৯৩. ৯ পেয়ে সবার ওপরে আছে যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, বার্কলে। তিন ক্যাটাগরিতে ৮৮ .১, ৯৩.৬ ও ৯২.২ পেয়ে কানাডার ইউনিভার্সিটি অফ টরেন্টো হয়েছে দ্বিতীয় এবং ৮৪ দশমিক ৭, ৯১ দশমিক ৭ ও ৯২ দশমিক ৫ পেয়ে ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ ক্যালিফোর্নিয়া তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে।

কিউএস র‌্যাংকিংয়ে জায়গা পেতে হলে পরিবেশগত প্রভাব বিভাগে তিনটি কর্মক্ষমতা সূচক মূল্যায়ন করা হয়। সেগুলো টেকসই প্রতিষ্ঠান, টেকসই শিক্ষা এবং টেকসই গবেষণা। এছাড়া সামাজিক প্রভাব বিভাগ পাঁচটি সূচক বিবেচনা করা হয়েছে। তা হলো- সমতা, জ্ঞান বিনিময়, শিক্ষার প্রভাব, কর্মসংস্থান, সুযোগ এবং জীবনের মান।

আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত কিউএস র‌্যাংকিং ২০০৪ সাল থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত যুক্তরাজ্যভিত্তিক শিক্ষা সাময়িকী টাইমস হায়ার এডুকেশনের সঙ্গে যৌথভাবে ‘সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের’ তালিকা প্রকাশ করছিল করে আসছিলো।  ২০১০ সালে আলাদা হয়ে যায় কিউএস। স্থায়িত্বের বৈশিষ্ট্যে প্রকাশিত এবারের এ তালিকায় দেশের হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বাংলাদেশে প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের জায়গা হয়নি।

আরো পড়ুনঃ র‌্যাংকিংয়ে নর্থ সাউথের সমপর্যায়ে আসতে পারায় ঢাবিকে নর্থ সাউথের ভিসির অভিনন্দন: বিতর্কের সৃষ্টি

4
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.