কম খরচে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করুন প্রতিবেশী দেশ ভারতে

উচ্চমাধ্যমিকের গন্ডি পার হলেই প্রায় প্রত্যেক শিক্ষার্থী স্বপ্ন দেখে বিদেশে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের। প্রতি বছর হাজার হাজার শিক্ষার্থী তাদের এই স্বপ্ন পূরণে নিজ দেশ ছেড়ে পাড়ি জমাচ্ছে বিভিন্ন দেশে। এই বিভিন্ন দেশের মধ্যে বর্তমানে উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের পছন্দের একটি দেশ হচ্ছে ভারত। ভারতের নান্দনিক প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এবং উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের নানা ধরনের সুযোগ প্রদানের ফলে সাম্প্রতিক সময়ে ভারতে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের জন্য শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ দেখা যাচ্ছে। ফলে প্রতি বছর অসংখ্যক শিক্ষার্থী প্রতিবেশী দেশ ভারতে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের জন্য পাড়ি জমাচ্ছে।

কেন যাবেন ভারতে
ভারতে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য উচ্চশিক্ষা গ্রহণের ক্ষেত্রে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের স্কলারশিপ এবং স্বল্প খরচে পড়াশোনা করার নানা ধরনের সুযোগ-সুবিধা। এছাড়া ভারতের প্রায় ৪৬ হাজার কলেজ ও ১০০০ টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। যেখানে আপনি ফুল-ফ্রি বা আংশিক স্কলারশীপের মাধ্যমে ভর্তির সুযোগ পাবেন।

সুযোগ-সুবিধা
আইসিসিআর , এসআইআই ছাড়াও ৫০% থেকে ৭০% পর্যন্ত স্কলারশীপ দিয়ে থাকে ভারতের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়। ভারতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজগুলো একজন বিদেশি শীক্ষার্থীর জন্য সর্বোচ্চ ৩ হাজার ৫০০ ইউএস ডলারের সমপরিমাণ বার্ষিক শিক্ষাবৃত্তি দেয়।এছাড়াও রয়েছে
• ভর্তি নিশ্চিত হলে দ্রুত ও ৯৯% ভিসা নিশ্চয়তা।
• আবাসন ও খাবারের সুবিধা ।
• পড়াশোনা শেষে জব প্লেসমেন্ট এর সুবিধা ।
• ছাত্র ও ছাত্রীদের জন্য আলাদা হোস্টেল।
• সেশন জট মুক্ত শিক্ষা পরিবেশ ।
• বিশ্বের বড় বড় কোম্পানি ভারত থেকে নিয়োগ দেয়।
• আইইএল এস ও ভাইভা ছাড়াই ভর্তি সহ ভিসা প্রাপ্তি ।
• ইংরেজি মাধ্যমে পড়াশোনার সুযোগ ।

ভারতে উচ্চশিক্ষার খরচ
অন্যান্য দেশের তুলনায় ভারতে পড়াশোনার খরচ অনেক কম। সাধারণত ভারতে একজন বিদেশি শিক্ষার্থী বছরে মাত্র ছয় হাজার ডলার খরচ করে তার উচ্চশিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান, সাবজেক্ট ও মান ভেদে খরচ ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে। এইদিকে বাংলাদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনায় তিনগুণ কম খরচ হয় ভারতীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পড়াশোনার ক্ষেত্রে। যেসব শিক্ষার্থী পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ্যতা অর্জন করে না এবং আর্থিক সমস্যার কারণে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারে না। তারা ভারতের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য আবেদন করতে পারে এবং বাংলাদেশের চেয়ে কম খরচে সেখানে পড়াশোনা করতে পারে। তাছাড়া ভারতীয় সরকার এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর প্রদানকৃত স্কালারশিপের মাধ্যমে বিনামূল্যে পড়াশোনার সুযোগতো রয়েছেই।

স্কলারশিপ
অন্যান্য দেশের মতই ভারতীয় সরকার এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলো আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের জন্য স্কলারশিপ প্রদান করে থাকে। শিক্ষার্থীরা এই স্কলারশিপের মাধ্যমে ফুল-ফ্রি বা আংশিক খরচে পড়াশোনা করার সুযোগ পেয়ে থাকে। ভারতে সাধারণত শিক্ষার্থীরা দুই ধরনের স্কলারশিপের জন্য আবেদন করার সুযোগ পেয়ে থাকেন।

(১) আইসিসিআর (ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশনস) স্কলারশিপ। (২) ইউনিভার্সিটি স্কলারশিপ। আইসিসিআর স্কলারশিপটি বিশেষভাবে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের দেওয়া হয়ে থাকে। বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর প্রোগ্রামে অধ্যায়নের জন্য এই স্কলারশিপটিতে আবেদন করতে পারে। এর পাশাপাশি পিএইচডির জন্যও আবেদন করার সুযোগ দেওয়া হয়ে থাকে।

যেসব বিষয়ে পড়ার সুযোগ রয়েছে
ভারতের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আন্তর্জাতিক চাহিদাসম্পন্ন প্রায় সকল বিষয়েই পড়াশোনার সুযোগ আছে। ভারতের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, বিজনেস, অ্যাকাউন্টিং, মেডিসিন, ডেন্টাল, ফার্মেসি, নার্সিং, ফিজিওথেরাপি, ট্যুরিজম অ্যান্ড হোটেল ম্যানেজমেন্ট, আয়ুর্বেদ, সংস্কৃত, হিন্দি ইত্যাদি বিষয়গুলো ছাড়াও পড়াশোনা করার জন্য নানা ধরনের আন্তর্জাতিক মানের কোর্স অফার করে থাকে।এছাড়াও ভারতে অনেক বিষয়ে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে আন্ডারগ্র্যাজুয়েট, পোস্ট-গ্র্যাজুয়েট অধ্যয়নের সুযোগ রয়েছে।
বিশেষ করে ইঞ্জিনিয়ারিং ও প্রযুক্তি বিষয়গুলোতে ইন্ডিয়ার ডিগ্রির আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি ভালো পাওয়া যায়।

ভারতের যেসব বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা আবেদন করার সুযোগ পেয়ে থাকে
১. এডামাস বিশ্ববিদ্যালয় ২.চণ্ডীগড় বিশ্ববিদ্যালয় ৩.আইআইটিএম ৪. ডিআইটি বিশ্ববিদ্যালয় ৫. ডিকেটিই টেক্সটাইল অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট ৬.মানব রচনা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৭. জৈন বিশ্ববিদ্যালয় ৮. রাজারামবাবু ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি এবং ৯. আসাম ডাউন টাউন।